চুল পড়ে যাচ্ছে ? পাকা চুলে জেরবার? ম্যাজিকের মতো কাজ করে এই ঘরোয়া উপায়গুলি!

চুল পড়ে যাচ্ছে ? পাকা চুলে জেরবার? ম্যাজিকের মতো কাজ করে এই ঘরোয়া উপায়গুলি!
চুলের রুক্ষ-শুষ্কভাব নিয়ে অস্বস্তিতে? প্রচুর চুল ঝরছে বা সেই ঔজ্জ্বল্য আর নেই? বেশি ভেবে লাভ নেই। এটি খুবই সাধারণ সমস্যা। আর এই সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে হাতের কাছেই রয়েছে উপায়।

চুলের রুক্ষ-শুষ্কভাব নিয়ে অস্বস্তিতে? প্রচুর চুল ঝরছে বা সেই ঔজ্জ্বল্য আর নেই? বেশি ভেবে লাভ নেই। এটি খুবই সাধারণ সমস্যা। আর এই সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে হাতের কাছেই রয়েছে উপায়।

  • Share this:

চুলের রুক্ষ-শুষ্কভাব নিয়ে অস্বস্তিতে? প্রচুর চুল ঝরছে বা সেই ঔজ্জ্বল্য আর নেই? বেশি ভেবে লাভ নেই। এটি খুবই সাধারণ সমস্যা। আর এই সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে হাতের কাছেই রয়েছে উপায়। এক্ষেত্রে চুলকে আরও মজবুত ও উজ্জ্বল করার জন্য ঘরোয়া উপায়গুলি জেনে নিন।

এগ হেয়ার মাস্ক

ডিম দিয়ে হেয়ার মাস্ক তৈরি করে চুলে লাগানো যেতে পারে। এক্ষেত্রে পরিমাণ মতো একটি বা দু'টি ডিমের সাদা অংশ নিয়ে মাস্ক তৈরি করা যেতে পারে। ডিমের সঙ্গে চা চামচে পরিমাণ মতো দই, মধু ও লেবুর রস নিতে হবে। এবার ২০ মিনিটের জন্য এই হেয়ার মাস্ক লাগিয়ে রেখে দিতে হবে। এর পর সালফেট-ফ্রি শ্যাম্পু দিয়ে চুল ধুয়ে নিতে হবে। এই মাস্কে উপস্থিত প্রোটিন ও ভিটামিন C চুলের রুক্ষ-শুষ্কভাব দূর করে। গোড়া মজবুত করে। চুলের রং উজ্জ্বল করে।


কলা দিয়ে হেয়ার মাস্ক

কলা দিয়ে হেয়ার মাস্ক তৈরি করা যেতে পারে। এক্ষেত্রে কলা, অলিভ অয়েল ব্যবহার করতে হবে। এর পর ধীরে ধীরে মালিশ করতে হবে। ঘণ্টাখানেক পর হালকা গরম জল দিয়ে ধুয়ে নিতে হবে চুল। চুলের রুক্ষভাব দূর করতে পারে কলার মধ্যে উপস্থিত পটাসিয়াম। চুলের গোড়াও মজবুত করে এটি।

হট অয়েল মাসাজ

বিশেষজ্ঞদের অনেকেই এই পরামর্শ দিয়ে থাকেন। এক্ষেত্রে ১৫-২০ মিনিটের জন্য হট অয়েল মাসাজ করতে হবে। ভালো করে চুলের গোড়ায় মালিশ করতে হবে। তার পর একটা তোয়ালে দিয়ে চুলটা বেঁধে নিতে হবে। এতে চুল নরম হয়। যে কোনও বিউটি পার্লার বা সালঁর ডিপ-কন্ডিশনিংয়ের মতোই সমান কার্যকরী এই হট অয়েল মাসাজ।

জেলাটিন মাস্ক

এক চা চামচ জেলাটিন, অ্যাপেল সাইডার ভিনিগারের সঙ্গে কয়েক ফোঁটা গোলাপ, জেসমিন ও রোজমেরির তেল দিয়ে একটি মাস্ক তৈরি করতে হবে। এর সঙ্গে এক কাপ মতো ঈষৎ-উষ্ণ জল মিশিয়ে নিতে হবে। এর পর ১৫ মিনিটের জন্য চুলে দিয়ে রেখে দিন। চুলের সৌন্দর্য বাড়ানোর পাশাপাশি ঔজ্জ্বল্য বজায় রাখে।

ক্যাস্টর অয়েল বা অ্যাভোক্যাডো পেস্ট

ক্যাস্টর অয়েলের মধ্যে ওমেগা-৯ -এর একাধিক উপাদান থাকে। এক্ষেত্রে আমন্ড অয়েলের সঙ্গে ক্যাস্টর অয়েল মিশিয়ে ভালো করে মালিশ করতে হবে। সঙ্গে কয়েকটি জবাফুল মিশিয়ে নিতে হবে। এই মিশ্রণে ফ্ল্যাভোনয়েড, ভিটামিন E, অ্যামিনো অ্যাসিড থাকে। এর জেরে চুল মজবুত হওয়ার পাশাপাশি চুলের রং উজ্জ্বল হয়ে ওঠে। যদি ক্যাস্টর অয়েল না থাকে, তাহলে অ্যাভোকাডো পেস্টের সঙ্গে ডিম মিশিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে। এতে স্যাচুরেটেড ফ্যাটের পাশাপাশি ভিটামিন E, ভিটামিন A ও একাধিক খনিজ থাকে। এর জেরে চুল ঘন হয়।

Published by:Piya Banerjee
First published: