Home /News /life-style /
Parenting Tips: সাবধান! রাগের মাথায় সন্তানকে চিৎকার করে বকছেন? তারপরেই এইগুলো করছেন তো? না হলেই কেলেঙ্কারি!

Parenting Tips: সাবধান! রাগের মাথায় সন্তানকে চিৎকার করে বকছেন? তারপরেই এইগুলো করছেন তো? না হলেই কেলেঙ্কারি!

Representative Image

Representative Image

Parenting Tips: সন্তানের উপর চিৎকার করার পরে আমরা কিছু জিনিস করতে পারি, তাতে সম্পর্ক ঠিক থাকে।

  • Share this:

বাংলায় একটা মোক্ষম প্রবাদ আছে- শাসন করা তারেই সাজে, সোহাগ করে যে! সন্তান মানুষ করার ব্যাপারে কথাটা একেবারে একশো ভাগ সত্যি। আসলে, সন্তানের উপর রেগে গিয়ে চিৎকার করা যদিও ঠিক নয়, তবে কোনও কোনও পরিস্থিতিতে তা যেন অনিবার্য হয়ে দাঁড়ায়, তখন আর নিজেদের সংযত করা যায় না!

কখনও কখনও চিৎকার করতেই হয়, সে মা-বাবা যতই শান্ত হন কিংবা সন্তান যতই শৃঙ্খলাপরায়ণ হোক না কেন, মাঝে মাঝে সন্তানের ভুলের জন্য রাগে চিৎকার না করা ছাড়া আর যেন উপায় থাকে না।

আরও পড়ুন: খাস কলকাতায় ভেজাল সিমেন্টের কারখানা, ঠকছেন ক্রেতারা! কিছুই জানে না প্রশাসন?

আর তার পরেই দেখা দেয় প্রবল অনুতাপ! তাহলে উপায়?

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে এবং সন্তানকে কতটা ভরসা করা হয় তা বোঝাতে সন্তানের উপর চিৎকার করার পরে আমরা কিছু জিনিস করতে পারি, তাতে সম্পর্ক ঠিক থাকে।

ক্ষমা চাওয়া

সন্তানের কাছে ক্ষমা চাইলে আমাদের সম্মান কমবে না। এমনকী এর ফলে সন্তানের সঙ্গে আমাদের সম্পর্কের বন্ধন আরও মজবুত হবে।

আরও পড়ুন: দুই দফতরে হাজার হাজার কর্মী নিয়োগ, বড় সিদ্ধান্ত নিল রাজ্য মন্ত্রিসভা

ভালবাসার কথা বলা

চিৎকার করার পরে সন্তানকে আশ্বস্ত করা দরকার যে আমরা তাকে ভালবাসি। তবে সঙ্গে সঙ্গে নয়- আমরা নিজেরা এবং আমাদের সন্তান যখন শান্ত হবে, তখনই এটি করতে হবে।

জড়িয়ে ধরা

উত্তপ্ত বাক্য বিনিময়ের পরে সন্তানকে জড়িয়ে ধরে সে আমাদের কাছে সে কতটা গুরুত্বপূর্ণ তা বোঝানোর চেষ্টা করতে হবে। এক্ষেত্রে আমাদের কাজই কথার চেয়ে বেশি প্রভাব ফেলবে।

ভুলটা বোঝানো

সন্তানকে তার ভুল বোঝানো এবং ভুল সংশোধনের বিষয়ে ঠান্ডা মাথায় পথ দেখাতে হবে। যদি এই ধরনের ভুল দিনের পর দিন হয়ে যায় তাহলে এটা তাদের ব্যবহারের সমস্যা হতে পারে, সেক্ষেত্রে প্রয়োজনে কাউন্সিলিংয়ের কথা ভাবা যেতে পারে।

সন্তানের অনুভূতিকে যাচাই করা

খোলা মন নিয়ে সন্তানের কথা শুনতে হবে এবং তাদের কথা বোঝার চেষ্টা করতে হবে। নিজেদের মধ্যে আলোচনা করে ভবিষ্যতে এই ধরনের পরিস্থিতি যাতে তৈরি না হয় তার জন্য সমাধানসূত্র খোঁজার চেষ্টা করতে হবে।

একই কথা অনেকক্ষণ টেনে নিয়ে যাওয়া

একই বিষয় দীর্ঘক্ষণ টেনে নিয়ে যাওয়া কখনওই উচিত নয়। যদি আমরা একই বিষয় নিয়ে একনাগাড়ে আলোচনা করতে থাকি, তাহলে আমাদের এবং সন্তানের মধ্যে বাধা তৈরি হতে পারে।

First published:

Tags: Children, Parenting Tips, Parents

পরবর্তী খবর