সুস্বাদু ভারতীয় পদে মিটবে শরীরে ক্যালসিয়ামের ঘাটতি! বাড়িতে চটজলদি বানিয়ে ফেলুন

সুস্বাদু ভারতীয় পদে মিটবে শরীরে ক্যালসিয়ামের ঘাটতি! বাড়িতে চটজলদি বানিয়ে ফেলুন

চিকিৎসকরা বলে থাকেন, একজন সুস্থ, প্রাপ্তবয়স্ক মানুষের প্রতি দিন ১০০০ মিলিগ্রাম ক্যালসিয়াম ইনটেক প্রয়োজন।

চিকিৎসকরা বলে থাকেন, একজন সুস্থ, প্রাপ্তবয়স্ক মানুষের প্রতি দিন ১০০০ মিলিগ্রাম ক্যালসিয়াম ইনটেক প্রয়োজন।

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: হাড় মজবুত রাখা, দাঁত ভালো রাখা-সহ একাধিক কারণে শরীরে ক্যালসিয়ামের প্রয়োজন। কারও ক্যালসিয়াম কম থাকলে চিকিৎসকরা ক্যালসিয়াম সাপ্লিমেন্ট দিয়ে থাকেন। কিন্তু এই ধরনের সাপ্লিমেন্ট বা ট্যাবলেট খাওয়ার থেকে যদি প্রাকৃতিক ভাবে বিভিন্ন খাবার থেকে ক্যালসিয়াম পাওয়া যায়, সেটাই বেশি ভালো হয়।

চিকিৎসকরা বলে থাকেন, একজন সুস্থ, প্রাপ্তবয়স্ক মানুষের প্রতি দিন ১০০০ মিলিগ্রাম ক্যালসিয়াম ইনটেক প্রয়োজন। এ ক্ষেত্রে মনে রাখতে হবে, এমনি এমনি শরীরে ক্যালসিয়াম বাড়তে পারে না বা যেতে পারে না। ফলে ক্যালসিয়াম আছে এমন খাবার খাওয়া অত্যন্ত জরুরি।

এ ক্ষেত্রে এমন কিছু ইন্ডিয়ান রেসিপি রয়েছে, যাতে প্রচুর পরিমাণে ক্যালসিয়াম থাকে। বানানো সহজ, খেতেও অত্যন্ত ভালো।

১. পনির ভুরজি: পনিরে প্রচুর পরিমাণে ক্যালসিয়াম থাকে। খুব সহজেই পনিরের ভুরজি বানানো যায়। একটু কসৌরি মেথি, ধনে, হলুদ, জিড়ে গুঁড়ো, টমেটো, লঙ্কা দিয়ে এই রেসিপিটি বানানো যেতে পারে। এই মশলাগুলি ভালো করে নেড়ে নিয়ে পনির একটু ভেঙে ভেঙে ভুরজির মতো করে দিয়ে দিতে হবে। তা হলেই তৈরি হয়ে যাবে পনির ভুরজি। পাউরুটি, রুটি বা পরোটার সঙ্গে পরিবেশন করা যেতে পারে।

২. রেগি দোসা বা রেগি রুট : রেগির আটা অনেক খাবারেই ব্যবহার করা হয়ে থাকে। এতে প্রচুর পরিমাণে ক্যালসিয়াম থাকে। রেগির আটা দিয়ে সাধারণ রুটি বা পরোটা বানানো যেতে পারে। দক্ষিণ ভারতে রেগি দিয়ে দোসাও বানানো হয়ে থাকে। তা ছাড়াও রেগি দিয়ে প্যান কেকও বানানোর চল রয়েছে।

৩. সবুজ শাক-পাতার তরকার : মেথি বা পালংয়ে প্রচুর পরিমাণে ক্যালসিয়াম থাকে। পাশাপাশি ফাইবার, পটাসিয়াম, ম্যাগনেসিয়ামও থাকে। তাই ডায়েটে এই সবজিগুলো রাখলে ক্যালসিয়ামের ঘাটতি মিটতে পারে। এ ক্ষেত্রে হলুদ, আদা বা সর্ষে দিয়ে এই সবজিগুলোর তরকারি করলে স্বাদ খুলবে। না হলে মেথির শাকের পরোটা, পালং দোসা বা পালং পনিরও খাওয়া যেতে পারে।

৪. রাজমা চাট: রাজমায় প্রোটিন ও ফাইবারের সঙ্গে সঙ্গে প্রচুর পরিমাণে ক্যালসিয়ামও থাকে। রাজমা চাওয়াল বা রাজমা দিয়ে অন্য কোনও তরকারির পাশাপাশি ট্রাই করা যেতে পারে রাজমা চাট। চিনা বাদাম, ক্যাপসিকাম (কড়াইয়ে হালকা ভেজে নেওয়া), টমেটো, লেবুর রস ও সামান্য ঘি দিয়ে খুব তাড়াতাড়ি বানানো যেতে পারে এই রাজমা চাট।

৫. তিল লাড্ডু: তিলেও প্রচুর পরিমাণে ক্যালসিয়াম থাকে। তিল অন্যান্য রান্নায় দিলেও খুবই উপকার মিলতে পারে। পাশাপাশি বানানো যেতে পারে তিলের লাড্ডু। বানানো যেতে পারে তিলের চিক্কিও। নারকেল, গুড় ও তিল দিয়ে বানানো এই দুই রেসিপিই বানাতে খুব অল্প সময় লাগে। খেতে অত্যন্ত ভালো। বিশেষ করে বাচ্চারা খুব সহজেই খেয়ে নেয়। এবং ক্যালসিয়ামও যায় শরীরে!

Published by:Pooja Basu
First published:

লেটেস্ট খবর