• Home
  • »
  • News
  • »
  • life-style
  • »
  • ২৪ ঘণ্টার মধ্যে শরীরে করোনার বিস্তার আটকে, নির্মূল করবে Molnupiravir ট্যাবলেট

২৪ ঘণ্টার মধ্যে শরীরে করোনার বিস্তার আটকে, নির্মূল করবে Molnupiravir ট্যাবলেট

শরীরের ভিতরে করোনাভাইরাসের অস্তিত্ব নির্মূল করে তার বিস্তারট ঠেকিয়ে দিতে পারে।

শরীরের ভিতরে করোনাভাইরাসের অস্তিত্ব নির্মূল করে তার বিস্তারট ঠেকিয়ে দিতে পারে।

শরীরের ভিতরে করোনাভাইরাসের অস্তিত্ব নির্মূল করে তার বিস্তারট ঠেকিয়ে দিতে পারে।

  • Share this:

সম্প্রতি কোভিড ১৯ (Covid 19) ভাইরাসের প্রতিরোধ এবং চিকিৎসার লক্ষ্যে এই সমীক্ষাটি পেশ করা হয়েছে জর্জিয়া স্টেট ইউনিভার্সিটির ইন্সটিটিউট অফ বায়োমেডিকাল সায়েন্সের একদল চিকিৎসক তথা গবেষকদের তরফে। কোভিড ১৯ ভাইরাস যাতে শরীরকে পর্যুদস্ত করতে না পারে, সে জন্য সারা বিশ্ব জুড়েই চলছে এর ভ্যাকসিন আবিষ্কারের প্রচেষ্টা। চলছে ভ্যাকসিনের (Vaccine) ট্রায়ালও। আর তার মাঝেই কোভিড ১৯ ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসা কী ভাবে সঠিক ভাবে পরিচালনা করা যায়, কী ভাবে তাদের রোগ থেকে নিয়ে আসা যায় আরোগ্যের খাতে, সে নিয়েও নানা গবেষণা চলছে। সেই লক্ষ্যেই এ বার এই সমীক্ষার সিদ্ধান্ত প্রকাশ্যে এল। যা দাবি করছে যে Molnupiravir ট্যাবলেট মাত্র ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই শরীরের ভিতরে করোনাভাইরাসের অস্তিত্ব নির্মূল করে তার বিস্তারট ঠেকিয়ে দিতে পারে।

Molnupiravir, যা কি না বাজারে MK-4482/EIDD-2801 নামেও পরিচিত, সম্প্রতি তার এ হেন আশ্চর্য ক্ষমতার কথা জানিয়েছেন সমীক্ষার প্রধান ডক্টর রিচার্ড প্লামপার। তিনি বলেছেন যে ফেরেটদের উপরে এই ওষুধের কার্যকারিতা নিয়ে তাঁরা পরীক্ষা-নিরীক্ষা করেছেন। অন্য দিকে, গবেষণার সঙ্গে যুক্ত ডক্টর রবার্ট কক্স বিষয়টি ব্যাখ্যা করেছেন।

এই প্রসঙ্গে জানিয়ে রাখা ভালো, অন্য অনেক কোভিড ১৯ সংক্রান্ত সমীক্ষার মতো জর্জিয়া স্টেট ইউনিভার্সিটির ইন্সটিটিউট অফ বায়োমেডিকাল সায়েন্সের এই গবেষণা কিন্তু করোনাক্রান্ত রোগীদের নিয়ে হয়নি; হয়েছে ফেরেট নামে এক শ্রেণীর ক্ষুদ্রকায় প্রাণীদের নিয়ে।

কক্স জানিয়েছেন যে ফেরেটদের (Ferret) সহজেই মানবশিশুর সঙ্গে তুলনা করা যেতে পারে। কেন না এরা শিশুদের মতোই সহজে কোভিড ১৯ ভাইরাসদ্বারা আক্রান্ত হয়, তবে খুব বেশি উপসর্গ তাদের মধ্যে দেখা যায় না। একটি খাঁচায় এমন একাধিক করোনাক্রান্ত ফেরেট রেখে তাদের Molnupiravir ট্যাবলেট খাইয়ে দেখা গিয়েছে যে ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই শরীরের ভিতরে করোনার (Coronavirus) বিস্তার বন্ধ হয়ে গিয়েছে, এমনকি শরীরে আর ভাইরাসের অস্তিত্বও মেলেনি।

সব মিলিয়ে, সমীক্ষার এই ফলাফলে বেশ ভালো রকমের উদ্দীপনা বোধ করছেন গবেষকরা। তাঁদের দাবি, এই ওষুধের প্রয়োগ শুধু শারীরিক স্বাস্থ্যই নয়, করোনাক্রান্ত রোগীর আইসোলেশনে (Self Isolation) থাকার সময়ে যে মানসিক কষ্ট হয়, তা থেকেও রেহাই দেবে!

Published by:Piya Banerjee
First published: