লাইফস্টাইল

corona virus btn
corona virus btn
Loading

একই সময়ে দু'জনকে সমান ভাবে ভালোবাসা কি সুস্থতার লক্ষণ? কী বলছেন বিশেষজ্ঞ?

একই সময়ে দু'জনকে সমান ভাবে ভালোবাসা কি সুস্থতার লক্ষণ? কী বলছেন বিশেষজ্ঞ?
Representational Image

নাম প্রকাশ না করে পল্লবী জানিয়েছেন যে এ বিষয়ে এক যুবক তাঁর পরামর্শ চেয়ে চিঠি দিয়েছিলেন। তিনি জানতে চেয়েছিলেন যে একই সময়ে, সমানভাবে দুই ব্যক্তির সঙ্গে সম্পর্ক রক্ষা করা সুস্থতার লক্ষণ কি না!

  • Share this:

#কলকাতা: এই পর্বে বিশেষজ্ঞ পল্লবী বার্নওয়াল মুখ খুলেছেন একটি অত্যন্ত পরিচিত সমস্যা নিয়ে। তা হল- একই সময়ে দুই ব্যক্তিকে ভালোবেসে  যাওয়া!

নাম প্রকাশ না করে পল্লবী জানিয়েছেন যে এ বিষয়ে এক যুবক তাঁর পরামর্শ চেয়ে চিঠি দিয়েছিলেন। তিনি জানতে চেয়েছিলেন যে একই সময়ে, সমানভাবে দুই ব্যক্তির সঙ্গে সম্পর্ক রক্ষা করা সুস্থতার লক্ষণ কি না!

পল্লবী বলছেন যে আমরা কিন্তু সব সময়েই একাধিক ব্যক্তিকে একই সঙ্গে ভালোবাসা দিয়ে থাকি। মা তার সন্তানদের ভালোবাসেন, সন্তানরা বাবা আর মাকে দুই পক্ষকেই ভালোবাসেন, ভাই-বোনেরা পরস্পরকে ভালোবাসেন। কিন্তু যখনই এই এক সময়ে অনেকজনকে ভালোবাসার মধ্যে জড়িয়ে থাকে যৌনতার (Sex) বিষয়টি, তখনই সমস্যা দেখা দেয় নানা দিক থেকে। রক্ষণশীল সমাজ তখন এ ধরনের অভ্যেসকে Polygamy বা বহুগামিতার তকমা দিয়ে থাকে। ধরেই নেওয়া হয় যে এটা দুশ্চরিত্রের লক্ষণ!

কিন্তু সাফ বক্তব্য পল্লবীর- বহুগামিতারও একটা প্রাকৃতিক দিক আছে। একই মানুষের সঙ্গে দিনের পর দিন মানসিক এবং শারীরিক ভাবে (Sexual Relationship) জুড়ে থাকা সবাইকেই ক্লান্ত করে তোলে। কেউ সেই জায়গা থেকে বেরিয়ে আসেন, কেউ বা আবার ওই সম্পর্কেই সীমাবদ্ধ থেকে যেতে পছন্দ করেন জটিলতা না বাড়িয়ে।

তার মানে এই যে বহুগামিতাকে স্বাভাবিক হিসেবেই বিবেচনা করতে হবে। তা অস্বাভাবিক কিছু নয়। কেউ একই সঙ্গে দুই বা ততোধিক ব্যক্তির সঙ্গে সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েছেন মানেই তাঁর যৌন সংযম নেই, এই ধারণায় আসা ঠিক হবে না।

কিন্তু সমস্যা একটা থাকে ঠিকই। সম্পর্কের ভিত্তি যেহেতু সামাজিক, তাই বহুগামিতার ক্ষেত্রেও নির্দিষ্ট একজন পেয়ে থাকেন বৈধ সঙ্গী বা সঙ্গিনীর মর্যাদা। কাজেই এ বিষয়ে সেই সঙ্গী বা সঙ্গিনী কী ভাবছেন, তাঁর প্রতিক্রিয়া কী, সেটা মাথায় না রাখলেই নয়।

তাই পল্লবীর পরামর্শ- যদি এমন একাধিক সম্পর্কে থাকতেই হয়, তা হলে সব সঙ্গী বা সঙ্গিনীকেই (Sexual Partner) তা জানানোটা ঠিক হবে, বিষয়টা নিয়ে স্পষ্ট ভাবে কথা বলতে হবে সবার সঙ্গেই। এর পর তাঁদের সিদ্ধান্তকে সম্মান দিয়েই করতে হবে পরবর্তী পদক্ষেপ, এ ছাড়া অন্য পন্থা নেই!

Pallavi Barnwal

Published by: Siddhartha Sarkar
First published: December 16, 2020, 6:17 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर