Home /News /life-style /

সঙ্গী/সঙ্গিনীর আগের সম্পর্কের ব্যর্থতা দূর করতে কতটুকু ভূমিকা নেওয়া বাঞ্ছনীয়, জানাচ্ছেন বিশেষজ্ঞ

সঙ্গী/সঙ্গিনীর আগের সম্পর্কের ব্যর্থতা দূর করতে কতটুকু ভূমিকা নেওয়া বাঞ্ছনীয়, জানাচ্ছেন বিশেষজ্ঞ

প্রশ্ন উঠতে পারে, যাঁকে ভালোবাসি, তাঁর কষ্ট দূর করার ব্যাপারে সক্রিয় ভূমিকা নেওয়াটাই কি বাঞ্ছনীয় নয়? কিন্তু কেন সেটা করা ঠিক হবে না?

  • Share this:

#কলকাতা: ইংরেজিতে একটা কথা প্রচলিত আছে- Take a broken guy, fix him, and he will love you forever! মানেটা সহজ- আগের সম্পর্কে ব্যর্থ হয়েছেন, কষ্ট পেয়েছেন এমন কাউকে ভালোবাসা দিতে পারলে তিনি বরাবরের মতো অপর পক্ষকে ভালোবেসে যাবেন, সম্পর্কের ভিত নড়বড়ে হওয়ার কোনও জায়গাই থাকবে না!

আর ঠিক এখানেই এই প্রচলিত ধারণার বিরোধিতা করেছেন বিশেষজ্ঞা পল্লবী বার্নওয়াল! এক পাঠিকা চিঠি দিয়ে জানতে চেয়েছেন যে এই ব্যাপারে কতটুকু এফর্ট দেওয়া যায়! পল্লবীর সাফ উত্তর- কোনও এফর্ট দেওয়ার প্রয়োজন নেই!

আপাতদৃষ্টিতে পল্লবীর এই পরামর্শ খুবই স্বার্থপরের মতো মনে হতে পারে! প্রশ্ন উঠতে পারে, যাঁকে ভালোবাসি, তাঁর কষ্ট দূর করার ব্যাপারে সক্রিয় ভূমিকা নেওয়াটাই কি বাঞ্ছনীয় নয়? কিন্তু কেন সেটা করা ঠিক হবে না, তা এক এক করে বিশ্লেষণ করেছেন বিশেষজ্ঞা।

১. সবার প্রথমে পল্লবী একটা উদাহরণ দিয়েছেন। বাড়ির কোনও যন্ত্র যদি ভেঙে যায়, সেটা কি আমরা নিজে ঠিক করতে যাই? বদলে কেন মেকানিক ডেকে পাঠাই? কেন না, তিনি সেই কাজটা ভালো ভাবে যাবেন। সঙ্গী/সঙ্গিনীর মানসিক কষ্ট দূর করার ব্যাপারেও একই কথা বলছেন তিনি। কেন না, আমরা কেউ মনোবিদ নই, কী ভাবে সেই কষ্ট দূর করা যেতে পারে, কী করলে ভালো হয়, সেই সম্পর্কে আমাদের ধারণা তেমন থাকে না। অতএব, এমন কিছু করা উচিৎ হবে না যাতে হিতে বিপরীত হয়।

২. হিতে বিপরীত মানে? সঙ্গী/সঙ্গিনীর কষ্ট দূর করতে গিয়ে আমাদের সবার মধ্যেই, বিশেষ করে মেয়েদের মধ্যে, নানা ব্যাপারে কম্প্রোমাইজ করার একটা প্রবণতা থাকে। পল্লবী বলছেন, দীর্ঘ সময় ধরে তা করে গেলে একটা পর্যায়ে এসে মনের মানুষের ব্যবহার অসহনীয় হয়ে উঠবে, তখন কিন্তু সম্পর্ক ভাঙনের মুখে এসে দাঁড়াতে পারে।

৩. এর ঠিক পরেই আসে সময়ের কথা! অর্থাৎ মনোবিদ যে নিয়ম করে সময় দেন তাঁর রোগীদের, সেটার জন্য তিনি কিন্তু টাকা পান, এটাই তাঁর পেশা! কিন্তু নিজেদের সব কাজ সামলে ব্যর্থ প্রেমিক/প্রেমিকার দাবি মেটানো সাধারণ মানুষের পক্ষে সব সময়ে সম্ভব নয়।

তাই পল্লবী বলছেন, মনের মানুষকে ভালোবাসা অবশ্যই দিতে হবে, কিন্তু প্রয়োজন অনুভব করলে তাঁর পাশে থেকে তাঁকে নিয়ে মনোবিদের দ্বারস্থ হওয়াটাই ঠিক হবে!

Pallavi Barnwal

Published by:Ananya Chakraborty
First published:

Tags: Break Up, Love, Relationship, Relationship Tips, Sexual Tips, Sexual Wellness

পরবর্তী খবর