Home /News /life-style /
 Body Language|| সাবধান! কথা বলার সময়ে এই কাজগুলো ভুলেও করবেন না...

 Body Language|| সাবধান! কথা বলার সময়ে এই কাজগুলো ভুলেও করবেন না...

 Body Language|| শরীরের ভাষা ব্যক্তিত্ব নির্ধারণ করে।

  • Share this:

বাইরের জগতের সঙ্গে সামাজিক মেলামেশায় আমাদের শরীর সবার আগে অন্যের চোখে পড়ে। নানা অঙ্গভঙ্গি আমাদের আত্মবিশ্বাসের মাত্রা, মানসিকতা এবং বার্তা প্রকাশের সবচেয়ে শক্তিশালী যন্ত্র। কারণ আমাদের অর্ধেকেরও বেশি সময়ে যোগাযোগ অমৌখিকভাবেই ঘটে। বৈজ্ঞানিক গবেষণায় প্রমাণিত হয়েছে যে, শরীরের ভাষা একজন ব্যক্তির ব্যক্তিত্ব নির্ধারণ করে। ফলে কার্যকর ব্যক্তিত্ব অর্জন করা খুবই গুরুত্বপূর্ণ ও প্রয়োজনীয়।

সঠিক ভাবে কথা বলার ভঙ্গি, শারীরিক অঙ্গভঙ্গি, অঙ্গপ্রত্যঙ্গের নড়াচড়া, মুখের অভিব্যক্তি এবং চোখের দৃষ্টি এই সবই শক্তিশালী ব্যক্তিত্বের চাবিকাঠি যা একজন ব্যক্তির সঙ্গে সাক্ষাতের সময়ে তাঁর ব্যক্তিত্ব সম্পর্কে প্রথম ধারণা তৈরি করে। আজ আমরা ৫টি শারীরিক অঙ্গভঙ্গির কথা বলব যা সাধারণত দুর্বল ব্যক্তিত্বের লক্ষণ বলে মনে করা হয়।

আরও পড়ুন: CID-র ক্ষমতা নেই, সিবিআই চাই! বিধায়কদের লক্ষ-লক্ষ টাকা উদ্ধারে হাই কোর্টে জোর সওয়াল আরও পড়ুন: ববির থেকে বাদ আবাসন-পরিবহণ! দায়িত্ব বাড়ল অরূপের, পার্থর দফতর বণ্টনে চমক

হাত পেছনে রেখে ক্রস করে দাঁড়ানো

কারও সঙ্গে কথা বলার সময়ে যদি পিঠের পিছনে হাতদুটোকে একে অপরের উপরে ক্রস ভাবে রেখে দিই তবে তা খারাপ লক্ষণ প্রকাশ করে। মনে হতে পারে, আমরা যোগাযোগ থামিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করছি। এও প্রকাশ পায় যে আমরা অন্য ব্যক্তির কথা বিশ্বাসযোগ্য নয় বলে মনে করছি। শক্ত ভাবে হাত ধরে রাখার অর্থ হল কথোপকথনের সময়ে আমরা অনেক কথা লুকিয়ে ফেলছি। আবার এক হাত দিয়ে পিঠের পিছনের হাত ধরে অন্য হাত শক্তভাবে চেপে ধরে রাখার অর্থ হল হতাশা, রাগ, নার্ভাসনেস এবং আত্মবিশ্বাসের অভাবের লক্ষণ।

কথা বলার সময় মুখ স্পর্শ করা

কারও সঙ্গে কথা বলার সময়ে মুখ স্পর্শ করার অর্থ ব্যক্তি নার্ভাসনেস, উদ্বেগে ভুগছেন। তাঁর মধ্যে আত্মবিশ্বাসের অভাব রয়েছে। এও বোঝায় যে, ব্যক্তি ক্রমাগত কিছু সম্পর্কে চিন্তা করছেন এবং বর্তমান কথোপকথনে মনোযোগ দিতে পারছেন না। আবার কথা বলার সময় অন্যের মুখ স্পর্শ করার অর্থ হল ঘনিষ্ঠতা এবং স্নেহের অঙ্গভঙ্গি, কিন্তু নিজের মুখ স্পর্শ করার মানে হল সত্যিকারের আবেগ লুকিয়ে ফেলা।

হ্যান্ড ক্ল্যাসিং

হ্যান্ড ক্ল্যাসিংয়ের অর্থ হল কারও সঙ্গে কথা বলার সময় হাতের আঙুল আঁকড়ে ধরে থাকা। অনেকেই একে দাপুটে মনোভাবের পরিচয়সূচক ব্যক্তিত্ব মনে করলেও আসলে তা ভুল। এটি আসলে উদ্বেগ, নার্ভাস হওয়া, দ্বিধাগ্রস্ততা, চিন্তিত এবং আত্মবিশ্বাসের অভাব বোঝায়। এটি হতাশা, মানসিক চাপ এবং উত্তেজনার লক্ষণও বটে।

কারও/কিছুর দিকে আঙুল দ্বারা নির্দেশ করা

অনেকেই কোনও কিছু নির্দেশ করার জন্য আঙুলের ইশারা ব্যবহার করেন, কিন্তু এটি আসলে অভদ্র এবং আক্রমণাত্মক ভঙ্গি বোঝায়। যে কোনও শিক্ষিত সমাজ, কোনও কিছুর দিকে আঙুল তোলাকেও শিষ্টাচারের অভাব হিসেবে ধরা হয়।

দাঁড়ানোর সময় পা ক্রস করে দাঁড়ানো

এমন ভাবে দাঁড়িয়ে কথা বলার অর্থ হল ব্যক্তির নিজের ওপরে আস্থার অভাব রয়েছে। এটি কেবলমাত্র আমাদের আত্মবিশ্বাসই নষ্ট করে না বরং আমাদের কথাবার্তাতেও দুর্বলতার মনোভাব প্রকাশ করে।

Published by:Rachana Majumder
First published:

Tags: Personality

পরবর্তী খবর