• Home
  • »
  • News
  • »
  • life-style
  • »
  • আলাদা আলাদা ডায়াবেটিসে আলাদা চিকিৎসা, জেনে নিন ডায়াবেটিসের যাবতীয় খুঁটিনাটি!

আলাদা আলাদা ডায়াবেটিসে আলাদা চিকিৎসা, জেনে নিন ডায়াবেটিসের যাবতীয় খুঁটিনাটি!

প্রকারভেদ থেকে চিকিৎসা, জেনে নিন ডায়াবেটিসের যাবতীয় খুঁটিনাটি!

প্রকারভেদ থেকে চিকিৎসা, জেনে নিন ডায়াবেটিসের যাবতীয় খুঁটিনাটি!

ডায়াবেটিসের মূলত দু'টি প্রকার রয়েছে: টাইপ ওয়ান এবং টাইপ টু।

  • Share this:

#কলকাতা:  ডায়াবেটিস মেলিটাস হল একজাতীয় বিপাকীয় বা মেটাবলিক রোগ। এই রোগে রক্তে শর্করা বা গ্লুকোজের মাত্রা বেড়ে যায়। ফলে শরীরে ইনসুলিন নিঃসরণ ক্রিয়া নিয়ে সমস্যা দেখা দেয়। ইনসুলিন হল সেই হরমোন যা প্যানক্রিয়াস বা অগ্ন্যাশয় থেকে নির্গত হয় এবং রক্তে গ্লুকোজের মাত্রা নিয়ন্ত্রণ করে। যখন রক্তে গ্লুকোজের মাত্রা বৃদ্ধি পায়, তখন অগ্ন্যাশয় গ্লুকোজ স্তরকে স্বাভাবিক করতে ইনসুলিন নির্গত করে। ডায়াবেটিসের মূলত দু'টি প্রকার রয়েছে: টাইপ ওয়ান এবং টাইপ টু।

চিন্তার বিষয় হল দুই প্রকার ডায়াবেটিসই দীর্ঘস্থায়ী হয় এবং রক্তে শর্করা বা গ্লুকোজের মাত্রা নিয়ন্ত্রণের ক্ষেত্রে প্রভাব ফেলে। গ্লুকোজ হল অনেকটা জ্বালানির মতো যা দেহের কোষে পুষ্টি যোগায়। কিন্তু কোষে প্রবেশ করতে হলে গ্লুকোজের যে চাবিকাঠি লাগে তার নাম হল ইনসুলিন।

টাইপ ১ ডায়বেটিস: এই ধরনের ডায়াবেটিস যাঁদের আছে তাঁরা ইনসুলিন উৎপন্ন করতে পারেন না।

টাইপ টু ডায়বেটিস: এই রোগীরা ইনসুলিন নিঃসরণ হলেও তাতে সাড়া দিতে পারেন না এবং ধীরে ধীরে এঁদের যথেষ্ট পরিমাণ ইনসুলিন নিঃসরণ কমে যায়।

ইনসুলিন আসলে কী?

ইনসুলিন হল এক প্রকার হরমোন যা অগ্ন্যাশয় বা প্যানক্রিয়াসের বিশেষ কিছু কোষ দ্বারা উৎপন্ন হয়। রক্তে গ্লুকোজের মাত্রা কঠোর ভাবে নিয়ন্ত্রণে রাখতে ইনসুলিনের ভূমিকা খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

ইনসুলিন ট্রিটমেন্ট:

যাঁদের টাইপ টু ডায়াবেটিস আছে তাঁদের ইনসুলিন প্রয়োজন হয় যখন তাঁদের ডায়েট, এক্সারসাইজ বা ওষুধ কোনওটাই কাজে দেয় না। অনেক কিছু করেও যখন শরীরে প্রয়োজনীয় ইনসুলিনের অভাব দেখা দেয়, তখন ইনসুলিন ইঞ্জেকশন নিতে হয়। যেহেতু ডায়াবেটিস ধীরে ধীরে প্রভাব বিস্তারকারী একটি রোগ, তাই ইনসুলিন ট্রিটমেন্টকে অবহেলা করা ঠিক নয়।

সম্ভাব্য চিকিৎসা:

টাইপ ওয়ান ডায়বেটিস: কোনও চিকিৎসা নেই। তবে জিন থেরাপি, রিজেনারেটিভ মেডিসিন যা স্টেম সেল-সহ হয় এবং প্যানক্রিয়াসে আইলেট ট্রান্সপ্লান্ট করা ইত্যাদি পদ্ধতি বেছে নেওয়া যেতে পারে।

প্রতিরোধ:

টাইপ ওয়ান ডায়বেটিস: কোনও ব্যবস্থা নেই।

টাইপ টু ডায়বেটিস: চিকিৎসকের পরামর্শ সহ ডায়েট, এক্সারসাইজ ইত্যাদি।

দৃষ্টিভঙ্গি:

ডায়াবেটিস একটি গুরুতর শারীরিক অবস্থা। টাইপ ওয়ান ডায়াবেটিস হলে ইনসুলিন-সহ অন্যান্য ওষুধ নিলে স্বাভাবিক জীবন যাপন করা যায়। অনেকের এটা বংশগত রোগ হয়। টাইপ টু ডায়াবেটিস সঠিক জীবনযাত্রা, ডায়েট ও এক্সারসাইজ দ্বারা নিয়ন্ত্রণ করা যায়। যারা প্রিডায়াবেটিক তাঁদের বহু আগে থেকেই এক্সারসাইজ ও ডায়েট অনুসরণ করা উচিৎ যাতে টাইপ টু ডায়াবেটিস না হয়।

Published by:Debalina Datta
First published: