• Home
  • »
  • News
  • »
  • life-style
  • »
  • Diabetes | Health care : রোজই ঘুম আসে না? ডায়াবেটিসের বিপদ এড়াতে মেনে চলুন এই নিয়মগুলো

Diabetes | Health care : রোজই ঘুম আসে না? ডায়াবেটিসের বিপদ এড়াতে মেনে চলুন এই নিয়মগুলো

ফাইল ফো‌টো

ফাইল ফো‌টো

Diabetes | Health care : অনিদ্রার কোন কোন প্রধান উপসর্গগুলি দেখলে সাবধান হওয়া উচিত জেনে নেওয়া যাক!

  • Share this:

#কলকাতা: পর্যাপ্ত ঘুম আমাদের শরীরের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। ঠিক মতো ঘুম না হলে আমাদের শরীরের যেমন মেটাবলিক অর্ডার যেমন নষ্ট হয়, তেমনই অনিদ্রার সঙ্গে ডায়াবেটিসের নিবিড় সম্পর্ক রয়েছে। কারণ ঠিকমতো ঘুম না হলে শরীরে কর্টিসোলের মতো স্ট্রেস হরমোন তৈরি হয়। ফলে শরীরে ইনসুলিন উৎপাদন ব্যাহত হয় বলে ব্লাড সুগারের মাত্রা বেড়ে যায়। একই সঙ্গে এই স্ট্রেস হরমোনগুলি আমাদের কার্বোহাইড্রেট ও মিষ্টি জাতীয় খাবারের প্রতি আসক্তি বাড়িয়ে দেয়। যা থেকে ওজন বেড়ে যাওয়ার এবং টাইপ ২ ডায়াবেটিস হওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

শুধু তাই নয়, অপর্যাপ্ত ঘুম কার্বোহাইড্রেটের বিপাক নিয়ন্ত্রণে সাহায্যকারী লেপটিন হরমোনের পরিমাণও কমিয়ে দেয়, ফলে আমাদের কার্বোহাইড্রেটের প্রতি শরীরের ক্রেভিং বেড়ে যায়। তাই অনিদ্রার সমস্যায় ভুগলে সুগারের মাত্রা খেয়াল রাখতে হব। এই বিষয়ে আমেরিকান অ্যাকাডেমি অফ স্লিপ মেডিসিন অ্যান্ড দ্য স্লিপ রিসার্চ সোসাইটি বলছে যে, সুস্থ ও ফিট থাকতে প্রতি রাতে আমাদের অন্তত সাত ঘন্টা ঘুম জরুরি। সেক্ষেত্রে সারাদিন ক্লান্ত থাকা ঘুম ঠিক মতো না হওয়ার বড় লক্ষণ।

আরও পড়ুন- শীতে ওজন কমাতে হিমশিম খেতে হবে না! রোজ সকালে এক গ্লাস খেলেই বাজিমাত

ঘুম ঠিক মতো না হলে আমরা অনেক সময় বুঝতে পারি না। তাই অনিদ্রার কোন কোন প্রধান উপসর্গগুলি দেখলে সাবধান হওয়া উচিত জেনে নেওয়া যাক-

-যে কোনও বিষয়ে প্রখর চিন্তাভাবনা না করা এবং কম মনোযোগ দেওয়া -সারা দিন ক্লান্তিভাব -দুর্বল স্মৃতি -মুড স্যুইং -সব সময় চিন্তিত থাকা -কাজে বিরক্তিভাব আসা

আরও পড়ুন-  শীতে গর্ভবতী হলে প্রয়োজন অতিরিক্ত সতর্কতা! সুস্থ থাকতে এই ৬টি বিষয় মেনে চলুন

কারও ক্ষেত্রে যদি এই লক্ষণগুলো মিলে যায়, তাহলে ঘুমের নিয়মিত শিডিউল মেনে চলতে হবে। নচেৎ ঘুম না হলে অজান্তে ডায়াবেটিসের মতো গুরুতর অসুখ বাড়তে থাকতে পারে। তাই এখানে ঠিক মতো ঘুম হওয়ার কিছু সহজ পরামর্শ দেওয়া হল-

-শোয়ার ঘর অন্ধকার, আরামদায়ক এবং শান্ত পরিবেশের হতে হবে। -ঘুমানোর আগে টিভি, মোবাইল সহ যে কোনও ধরনের স্ক্রিনে তাকানো উচিত নয় কারণ ওগুলো ঘুমের ব্যাঘাত ঘটায়। -সারা দিন শারীরিকভাবে সচল থাকতে হবে। -বিছানায় যাওয়ার আগে রিল্যাক্স করতে হবে। -ঘুমাতে যাওয়ার আগে স্নান করা যায়। -বই পড়ার অভ্যাস থাকলে খুবই ভালো, তা ঘুম আনতে সাহায্য করবে। -শোয়ার আগে ক্যাফেইন, অ্যালকোহল এবং নিকোটিন থেকে দূরে থাকতে হবে; এগুলো থেকে ঘুমের ব্যাঘাত ঘটে। -দুপুর ৩টের পরে ন্যাপ না নেওয়াই উচিত, কারণ তখন ঘুমোলে রাতে ঘুম না-ও আসতে পারে।

Published by:Swaralipi Dasgupta
First published: