• Home
  • »
  • News
  • »
  • life-style
  • »
  • DESIGNER SABYASACHI MUKHERJEE SHOOTS WITH PLUS SIZE MODEL POST GOES VIRAL PBD

থল থলে চেহারা, পেটে জমেছে চর্বি! এ কোন মডেলকে দিয়ে শ্যুট করলেন সব্যসাচী, ছবি ভাইরাল

কে এই মহিলা, যিনি এমন চেহারায় সব্যসাচীর শাড়ি পরে শ্যুট করলেন?

কে এই মহিলা, যিনি এমন চেহারায় সব্যসাচীর শাড়ি পরে শ্যুট করলেন?

  • Share this:

    #মুম্বই: নিজেদের তৈরি পোশাক মডেলদের পরিয়ে শ্যুট করেন ডিজাইনারা৷ এটাই রীতি৷ এভাবেই নিজেদের পোশাক সকলের সামনে তুলে ধরেন পৃথিবীর যে কোনও বিখ্যাত ফ্যাশান ডিজাইনার৷ সুন্দর টানটান চেহারার মডেলদের শরীর সেই পোশাক যেন আরও উজ্জ্বল হয়ে ওঠে সকলের সামনে৷ কিন্তু এবার সেই পথে হাঁটলেন না ডিজাইনার সব্যসাচী মুখোপাধ্যায়৷ ভারতীয় পোশাক এবং শাড়ি তাঁর ডিজাইনের অন্যতম বৈশিষ্ট৷ এবার সেই শাড়ি পরলেন এক থলথলে চেহারার মহিলা৷ যা দেখে হতবাক সব্যসাচী ভক্তরা৷ কেন এমন করলেন তিনি? কী তাঁর উদ্দেশ্য? সেই প্রশ্ন তো উঠলই, সঙ্গে ভাইরাল হল স্থূলকায় মহিলার ছবিও৷

    পেটে জমেছে মেদ, যা ভীষণভাবে নজরে পড়ছে সকলের৷ সেই চেহারায় সব্যসাচী ব্র্যান্ডের শাড়ি পরে ক্যামেরার সামনে মহিলা৷ বলা হয় যে সৌন্দর্যের কোনও ব্যাখ্যা হয় না৷ মনের সৌন্দর্যই ফুটে ওঠে চোখে মুখে৷ আর সেটাই করে দেখালেন ভারতের অন্যতন সেরা ডিজাইনার সব্যসাচী মুখোপাধ্যায়৷ এবার তিনি বেছে নিলেন তেমনই মডেল৷ যাঁকে দেখে হয়ত অনেকেই নাক সিঁটকোবেন, কিন্তু সব্যসাচী মনে করলেন যে তাঁর পোশাক এই মহিলার উপরই সবথেকে বেশি শোভা পাবে৷

    আসলে সব্যসাচী তাঁর সর্বশেষ বিজ্ঞাপন প্রচারে একটি প্লাস সাইজের মডেল বেছে নিয়েছেন। অপূর্ব রামপাল নামের এক প্লাস সাইজের মডেলকে তাঁর লাল রঙের শাড়ি পরা অবস্থায় দেখা গিয়েছে। মডেল গর্বের সঙ্গে তাঁর মেদযুক্ত শরীর সামনে এনেছেন৷ এবং এই ছবিগুলি দেখার পরে নেটিজেনরা সব্যসাচীর প্রশংসাই করছেন। কারণ নিজেকে সুস্থ রাখাই প্রধান উদ্দেশ্য, রোগা বা শীর্ণকায় থাকা নয়৷ তাই বহু ক্ষেত্রেই একটু মোটা হলেই মডেল বা অভিনেত্রীদের পেশা থেকে বিরতি নিতে হয়৷ এমনকী বহু পেশা রয়েছে যেখানে মহিলাদের টানটান চেহারাই হয়ে ওঠে কাজের মাপকাঠি৷ যা নিয়ে বহুদিন ধরেই অনেকে প্রতিবাদ করেছেন৷ গুণের বিচারে পেশায় টিকে থাকার লড়াই চলতে পারে, রূপের বিচারে নয়৷ এমনই মত অনেকে৷ এবার সব্যসাচীও বুঝিয়ে দিলেন তিনি এই মতেই বিশ্বাসী৷

    Published by:Pooja Basu
    First published: