Home /News /life-style /

পরিবেশ বাঁচাতে নিষিদ্ধ হতে পারে এই জনপ্রিয় বস্তুটি

পরিবেশ বাঁচাতে নিষিদ্ধ হতে পারে এই জনপ্রিয় বস্তুটি

প্রতীকী চিত্র

প্রতীকী চিত্র

প্লাস্টিকের মতই বিপজ্জনক প্লাস্টিক স্ট্র, তাই জারি হতে পারে নিষেধাজ্ঞা ।

  • Share this:

    #কলকাতা: ককটেল প্রস্তুতকারক, ফাস্ট-ফুড অনুরাগী কিংবা স্মুথি প্রেমিক-সবার জন্যই অপরিহার্য হল প্লাস্টিকের স্ট্র। কিন্তু পরিবেশ বাঁচানোর  জোরদার প্রচারণার ফলে পাল্টাতে পারে এই চিত্র ।

    পরিবেশকর্মীদের ক্রমাগত আন্দোলনের ফলে ইতিমধ্যেই ইউরোপীয় ইউনিয়ন, ব্রিটেন ও ভারতে প্লাস্টিক স্ট্র বন্ধ করার জন্য কিছু পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে । এমনকী বৃহত্তম ফাস্ট-ফুড চেন ম্যাকডোনাল্ডও প্লাস্টিক স্ট্র বন্ধের কথা ভাবছে ।

    আরও পড়ুন: বয়ঃসন্ধিকালে মদ্যপান কমাতে পারে মস্তিস্কের কর্মক্ষমতা, বলছে গবেষণা

    সম্প্রতি প্রকাশিত মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের একটি বিজ্ঞান জার্নালের রিপোর্টে জানা গেছে প্রতি সেকেন্ডে ২৫০ কিলোগ্রাম (৫৫০ পাউন্ড ) প্লাস্টিক পৃথিবীর সমুদ্রগুলিতে ফেলা হয় । পৃথিবীর সমুদ্রতটগুলিতে সবমিলিয়ে প্রতি বছর ৮মিলিয়ন টন প্লাস্টিক ফেলা হয় । এতদিন পর্যন্ত পরিবেশকর্মীরা প্লাস্টিকের বিরুদ্ধেই কথা বলেছেন। কিন্তু সম্প্রতি কোস্টারিকায় একটি সামুদ্রিক কচ্ছপের নাসারন্ধ্র থেকে একটি স্ট্র বের করার ভিডিও ভাইরাল হতেই প্লাস্টিক স্ট্র বন্ধ করার বিষটি সামনে এসেছে ।

    ইউরোপীয় সরকার একক ব্যবহারযোগ্য স্ট্রএর উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করার কথা ভাবছে । এপ্রিল মাসে ব্রিটিশ সরকার জানায় যে তারাও একক ব্যবহারযোগ্য প্লাস্টিক বন্ধ করার পরিকল্পনা করছে । চলতি বছরের জুন মাসে মুম্বইয়ের ম্যাকডোনাল্ড, বার্গার কিং ও স্টারবাকসকে একক ব্যবহারযোগ্য প্লাস্টিকের উপর নিষেধাজ্ঞা লঙ্ঘন করার জন্য জরিমানা দিতে হয়েছিল । ২০২২ এর মধ্যে  একক ব্যবহারযোগ্য প্লাস্টিকমুক্ত ভারত গড়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ।

    ২০১৯ এর মধ্যে যুক্তরাষ্ট্র ও আয়ার্ল্যান্ডে প্লাস্টিক ষ্ট্র'এর পরিবর্তে কাগজের ষ্ট্র ব্যবহার করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে ম্যাকডোনাল্ড । ইউরোপে জীবাশ্ম জ্বালানি ও আলু, ভুট্টা ইত্যাদির থেকে তৈরি হচ্ছে 'বায়োপ্লাস্টিক' বা পরিবেশবান্ধব প্লাস্টিক । জার্মানির নোভা ইনস্টিটিউটের রিপোর্ট অনুযায়ী ২০১৬ সালে  কমপক্ষে ১লাখ টন পরিবেশবান্ধব প্লাস্টিক উৎপাদন হয়েছে । যদিও এতেই সব সমস্যার সমাধান হবে বলে মনে করছেনা না বিশেষজ্ঞরা । ইউরোপের বৃহত্তম প্লাস্টিক স্ট্র প্রস্তুতকারী কোম্পানি সোয়েজের মতে এই পরিবর্তন এত তাড়াতাড়ি আসা সম্ভব নয় । বিশেষজ্ঞরা আরো জানাচ্ছেন এই বায়োপ্লাস্টিকের বর্জ্য পরিশ্রুত করার জন্য প্রয়োজন একটি পৃথক ব্যবস্থার কিন্তু তার জন্যেও প্রচুর লক্ষ টাকা বিনিয়োগের প্রয়োজন । আরও পড়ুন: কর্মব্য়স্ত সপ্তাহে অভ্য়াস করুন এই ৫টি প্রোটিন জাতীয় নোনতা খাবার, জাঙ্কফুডকে বলুন বাইবাই . . .
    First published:

    Tags: Britain, EU, India, Plastic ban, Plastic straw, Plastic straw ban

    পরবর্তী খবর