• Home
  • »
  • News
  • »
  • life-style
  • »
  • ব্রেকফাস্টে এই সব খাবার খান? সাবধান, নিজের বিপদ নিজেই ডেকে আনছেন...

ব্রেকফাস্টে এই সব খাবার খান? সাবধান, নিজের বিপদ নিজেই ডেকে আনছেন...

কিন্তু এর মাঝেই কিছু খাবার আছে, যা আমাদের শরীরের ক্ষতি করতে পারে।

কিন্তু এর মাঝেই কিছু খাবার আছে, যা আমাদের শরীরের ক্ষতি করতে পারে।

কিন্তু এর মাঝেই কিছু খাবার আছে, যা আমাদের শরীরের ক্ষতি করতে পারে।

  • Share this:

#কলকাতা: কথায় বলে, সকাল দেখেই না কি দিনটাকে চেনা যায়! অর্থাৎ সকালটা কী ভাবে শুরু হচ্ছে, তা পুরো দিনের ভাল থাকা বা খারাপ থাকাকে অনেকাংশেই সুনিশ্চিত করে। আর বিষয়টি যদি ব্রেকফাস্ট হয়, তা হলে আর আলাদা করে কিছু লার অপেক্ষা রাখে না। কারণ সকালের পর্যাপ্ত ও যথাযথ প্রাতরাশ, একজনকে সারাদিন সুস্থ ও ফিট থাকতে সাহায্য করে। রাতের ঘুমের পর শরীর পুরো দমে মৌল বিপাকীয় প্রক্রিয়া শুরু করে দেয়। তাই সকালের খাবার অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। কিন্তু এর মাঝেই কিছু খাবার আছে, যা আমাদের শরীরের ক্ষতি করতে পারে। এ ক্ষেত্রে ব্রেকফাস্টে এই খাবারগুলি এড়িয়ে যাওয়াই ভাল। এ বার দেখে নেওয়া যাক, এই খাবারগুলির তালিকা।

প্যাকেটজাত ফলের জুস- অধিকাংশ ক্ষেত্রে ব্রেকফাস্টে টেবিলে জুসের একটি গ্লাস দেখা যায়। আর বেশিরভাগ মানুষজনই কোনও শপিং মল বা সুপার মার্কেট থেকে সিল করা বোতল বা প্যাকেটজাত ফলের জুস কেনেন। সবার মনেই একটি ধারণা রয়েছে যে, এই ফলের জুস শরীর ভাল রাখে। এনার্জি দেয়। কিন্তু দুর্ভাগ্যবশত প্যাকেটজাত ফলের জুসের একাধিক ক্ষতিকর প্রভাব রয়েছে। এগুলি পান করলে ব্লাড সুগারের মাত্রা বাড়তে পারে। এমনকি ডায়াবেটিস পর্যন্ত হতে পারে। পরবর্তীকালে হজমের ক্ষেত্রেও সমস্যা তৈরি করতে পারে এই ধরনের পানীয়। তাই বাজার থেকে গোটা ফল কিনে, তার জুস বের করে খাওয়া যেতে পারে।

কেক-পেস্ট্রি- প্যাকেটজাত ফলের জুসের মতো কেক-পেস্ট্রিতেও প্রচুর পরিমাণে চিনি থাকে। আর এই চিনি শরীরে তাৎক্ষণিক শক্তি সরবরাহ করে। যা পরে দ্রুত হজম হয়ে যায় আর মানুষজনকে ফের নিস্তেজ করে দেয়। এই ধরনের খাবারে রিফাইন করা ময়দায়ও থাকে। সকালে খালি পেটে খেলে, যা একাধিক ক্ষতির কারণ হতে পারে। তা ছাড়া এতে প্রচুর ক্যালোরি থাকতে পারে। দীর্ঘ দিন ধরে এই ক্যালোরি শরীরে গেলে ডায়াবেটিস, স্থূলতা এমনকি হার্টের অসুখও দেখা দিতে পারে।

কফি- যাঁরা কাজের সঙ্গে যুক্ত, তাঁদের অধিকাংশকেই এক কাপ কফি দিয়ে দিন শুরু করতে দেখা যায়। কিন্তু কফিতে ক্যাফেইন থাকার জেরে এর কিছু খারাপ দিক রয়েছে। অতিরিক্ত মাত্রায় কফি পান করলে, শরীরে নানা সমস্যা দেখা দেয়। শরীরের ক্লান্তি, ঘুম দূর করতে অনেকেই কফি পান করেন, কিন্তু এই নিদ্রাহীনতা বা বিশ্রামের অভাব শরীরের জন্য একেবারেই ভালো নয়। এর জেরে অস্থিরতা, উদ্বেগসহ একাধিক সমস্যা দেখা দিতে পারে। তা ছাড়া খালি পেটে কফি খেলে একাধিক শারীরিক সমস্যাও দেখা দেয়।

মাথায় রাখতে হবে, যে সব খাবারে প্রোটিন ও ফাইবারের পরিমাণ বেশি, প্রাতরাশে সেগুলিকেই গুরুত্ব দেওয়া উচিত। তবে কফি বা কেক-পেস্ট্রিতে সেই মাত্রায় প্রোটিন বা ফ্যাট নেই। এ ক্ষেত্রে ডিম, পাঁউরুটি, কোনও সবজির তরকারি, সেদ্ধ কোনও খাবার আদর্শ হতে পারে। ডায়েট বিশেষজ্ঞদের মতে, সাধারণত প্রোটিন আমাদের শক্তি দেয় এবং ফাইবার হজমের প্রক্রিয়ার গতি কমিয়ে দেয়। এর জেরে দীর্ঘক্ষণ পর্যন্ত পেট ভর্তি থাকে। ফিট থাকেন মানুষজন। বলা বাহুল্য, একটি যথাযথ ব্রেকফাস্ট ওজন নিয়ন্ত্রণের পাশাপাশি একাধিক রোগের সম্ভাবনা কমায়।

Published by:Pooja Basu
First published: