Brown Sugar: পিরিয়ডের ব্যথা হোক বা বাড়তি মেদ, কমবে ব্রাউন সুগারে !

Brown Sugar: অত্যাধিক মাত্রায় হোয়াইট সুগার গ্রহণ করলে শরীরে প্রয়োজনের অতিরিক্ত ক্যালোরি জমা হতে পারে।

Brown Sugar: অত্যাধিক মাত্রায় হোয়াইট সুগার গ্রহণ করলে শরীরে প্রয়োজনের অতিরিক্ত ক্যালোরি জমা হতে পারে।

  • Share this:

বেশিরভাগ ডাক্তাররাই আজকাল খাদ্যতালিকায় প্রায় সবকিছুই ‘ব্রাউন’ রাখতে বলেন। সে হতে পারে ব্রাউন রাইস, ব্রাউন ব্রেড বা ব্রাউন সুগার। বিশেষত শেষেরটি আজকাল অনেক মানুষেরই খাদ্য তালিকায় ঢুকে গিয়েছে। কিন্তু আপনি কি এখনো হোয়াইট সুগার বা চিনির লোভনীয় স্বাদ থেকে নিজেকে ছাড়াতে পারছেন না? তাহলে এই লেখাটি পড়ুন।

অত্যাধিক মাত্রায় হোয়াইট সুগার গ্রহণ করলে শরীরে প্রয়োজনের অতিরিক্ত ক্যালোরি জমা হতে পারে। তার ফলাস্বরূপ আপনি নিজের অজান্তেই শরীরের ওজন বাড়িয়ে তোলেন।

এতকিছু জানার পরেও আপনি চিনি খাওয়ার অভ্যেস ছাড়তে পারছেন না। তাই তো? চিন্তা নেই, আপনার সমস্ত সমস্যার সমাধান হবে ব্রাউন সুগারে।

সাধারণ চিনির তুলনায় ব্রাউন সুগার শরীরে কম ক্যালোরি উৎপাদন করে। এছাড়াও আয়রণ, ক্যালসিয়াম, জিঙ্ক, পটাসিয়াম, কপার, ফস্‌ফরাস এবং ভিটামিন বি-৬-এর মতো বেশ কিছু মাইক্রোনিউট্রয়েন্স বৃদ্ধিতে সাহায্য করে। এইসব মাইক্রোনিউট্রয়েন্স আমাদের শরীরকে তরতাজা আর সুস্থ রাখতে খুবই উপকারী। কেননা ব্রাউন সুগার আসলে তৈরি হয় গুড় থেকে যেটা সাধারণ চিনির থেকে কম ক্ষতিকারক।

এতকিছু জানার পরেও মন মানছে না? আসুন ব্রাউন সুগারের আরো কিছু উপকারীতা জেনে নিই।

১ খুব সহজেই খাবার হজম করে

খাবার হজম করতে ব্রাউন সুগার খুবই ভালো। ধরুন আপনার কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা রয়েছে। এক গ্লাস গরম জলে এক চামচ আদা এবং এক চামচ ব্রাউন সুগার মিশিয়ে খেলে চটজলদি আরাম পাবেন।

২ পিরিয়ডের ব্যথা দূর করে

ব্রাউন সুগারে থাকা পটাসিয়াম পিরিয়ডের ব্যাথা কমাতে খুবই কার্যকরী।

৩ ওজন কমাতে সাহায্য করে

আপনি যদি কমাতে চান তাহলে কম ক্যালোরিযুক্ত ব্রাউন সুগার আপনাকে সাহায্য করবে। পাশাপাশি এটি নিয়মিত খেলে আপনার মেটাবলিজম সিস্টেমও ভালো হবে। অর্থাৎ মিষ্টির স্বাদ না ভুলেও সহজেই আপনি ওজন কমাতে পারবেন।

৪ ত্বক ভালো রাখতে সাহায্য করে

এই সুগারে থাকা মাইক্রোনিউট্রয়েন্স যেমন ভিটামিন বি-৬, প্যান্টোথেনিক অ্যাসিড এবং অন্যান্য খনিজ পদার্থ আপনার ত্বককে সতেজ রাখবে ও অকাল বার্ধক্য থেকে রক্ষা করবে। এমনকি আপনি স্ক্রাব হিসেবেও এই সুগার ব্যবহার করতে পারেন।

৫ অ্যাস্থেমা থেকে উপশম দেয়

এই সুগারে অ্যান্টি-অ্যালার্জিক উপাদান রয়েছে যা অ্যাস্থেমার রোগীদের তাৎক্ষণিক উপশম দেবে।

৬ অ্যান্টিসেপটিক গুনাবলী

ব্রাউন সুগারে রয়েছে অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়াল উপাদান যা কোনো ব্যাকটেরিয়া বা ইনফেকশনের সাথে শরীরকে লড়তে সাহায্য করে।

Published by:Piya Banerjee
First published: