শীতে চটজলদি বানিয়ে ফেলুন স্বাদ ও পুষ্টিগুণে ভরপুর এই পাঁচ স্যুপ !

photo source collected

ভেজ হোক বা নন ভেজ, শীতকালে গরম গরম স্যুপ খেতে কার না ভালো লাগে!

  • Share this:

ভেজ হোক বা নন ভেজ, শীতকালে গরম গরম স্যুপ খেতে কার না ভালো লাগে! তার উপরে ব্যস্ত সময়ে চটজলদি তৈরিও হয়ে যায়। ইন্ডিয়ান বা চাইনিজ স্যুপ, অনেকেই দুপুরে বা রাতে খেয়ে থাকেন। যা তাড়াতাড়ি হজম হয়ে যায় ও দ্রুত খিদে পেয়ে যেতে পারে। তবে, এমন কয়েকটি স্যুপ আছে যা খেলে পেট ভরতি থাকবে অনেকক্ষণ ও বানাতেও খুব বেশি সময় লাগবে না।

১. টম্যাটো স্যুপ স্যুপের কথা মনে পড়লেই খুব পরিচিত যে নাম প্রথমেই মাথায় আসতে পারে, তা হল টম্যাটো স্যুপ। টক-টক, ঝাল-ঝাল আর ঘন এই স্যুপ অনেকেরই পছন্দ। আর এটি বানাতেও সময় লাগে খুব কম। একটি কড়াইয়ে মাখন গরম করে তাতে দিতে হবে পিঁয়াজ কুচি ও দু'চামচ রসুন কুচি। ভালো করে ২ থেকে ৩ মিনিট নেড়ে দিয়ে দিতে হবে টম্যাটো কুচি। দিতে হবে স্বাদ মতো নুন। ঢাকা দিয়ে ৮ থেকে ১০ মিনিট রেখে দিয়ে দিতে হবে হাফ কাপ জল। টম্যাটো ভালো করে জল ও মশলার সঙ্গে মিশে গেলে নামিয়ে ছেঁকে নিতে হবে। ছেঁকে নেওয়া মিশ্রণটি আবারও ভালো করে ফোটালে তৈরি হয়ে যাবে টম্যাটো স্যুপ।

২. মাশরুম স্যুপ স্বাদে যেমন ভালো, তেমনই পুষ্টিতেও সেরা এই স্যুপ খেলে খিদেও কম পেতে পারে। মাশরুম স্যুপ বানাতে প্রথমেই ২৫০ গ্রাম মাশরুম কুচি করে কেটে নিতে হবে। প্যানে এক চা-চামচ মাখন দিয়ে গরম করে নিয়ে তাতে দিতে হবে এক চা-চামচ রসুন কুচি, একটা পিঁয়াজ কুচি, কেটে রাখা মাশরুম ও স্বাদ মতো নুন। ভালো করে ভাজা-ভাজা হয়ে গেলে দিয়ে দিতে হবে এক চা-চামচ আটা বা ময়দা, যা স্যুপটি ঘন করতে সাহায্য করবে। এর পর মিশ্রণটিতে দিয়ে দিতে হবে মরিচ। আরেকটু নেড়েচেড়ে দিতে হবে পরিমাণ মতো জল। একটু ফুটে উঠলে এতে এক কাপ দুধ দিয়ে ফোটাতে হবে। একটু ঘন হতে শুরু করলে দু' থেকে তিন চামচ ক্রিম দিয়ে নামিয়ে নিতে হবে।

৩. গাজরের স্যুপ শীতকালের সবজির মধ্যে অন্যতম গাজর। স্যালাড বা হালুয়ার পাশাপাশি গাজরের স্যুপও হয় খুব সুস্বাদু। গাজরের স্যুপ বানাতে তিন থেকে চারটে গাজর, একটা পিঁয়াজ ও এক চা-চামচ কুচি করে কাটা আদা লাগবে। একটি পাত্রে কুচি করে কাটা গাজর, পিঁয়াজ ও আদা দিয়ে ভালো করে সামান্য তেলে নেড়ে নিতে হবে। দিতে হবে এক কাপ জল। কম আঁচে সিদ্ধ করতে হবে। গাজর, পিঁয়াজ ও আদা নরম হয়ে এলে নামিয়ে ঠাণ্ডা করে, একটি মিক্সারে ভালো পেস্ট করে নিতে হবে। মিশ্রণটি নামিয়ে একটি প্যানে আবার রান্না করতে হবে। দিতে হবে নুন ও মরিচ। প্রয়োজনে দিতে হবে এক কাপ জল। মিশ্রণ ঘন হতে শুরু করলে নামিয়ে পরিবেশন করতে হবে।

৪. চিকেন স্যুপ ভেজ স্যুপ না-পসন্দ হলে চট করে বানিয়ে নেওয়াই যায় চিকেন স্যুপ। যেহেতু চিকেনে প্রচুর পরিমাণ প্রোটিন থাকে তাই এই স্যুপ অনেক্ষণ পেট ভরতি রাখে। চিকেন স্যুপ বানাতে একটি প্রেসার কুকারে হাফ কাপের মতো চিকেন (হাড় ছাড়া) ও সমপরিমাণ গাজর নিতে হবে। নিতে হবে ছোট করে কাটা পিঁয়াজ, পালং শাক, টমেটো, কড়াইশুটি, দারচিনি, ৫-৬টা গোলমরিচ ও সামান্য হলুদ। প্রেশার কুকারে অ্যাড করতে হবে ৫ কাপ জল ও একটি শুকনো লঙ্কা। এ বার প্রেসার কুকারটি ওভেনে বসিয়ে দিতে হবে দু'টো সিটি। নামিয়ে সবজি ও চিকেন পিসগুলি একটি পাত্রে আলাদা করে রাখতে হবে। এ বার একটি প্যানে মাখন দিয়ে তাতে দিয়ে দিতে হবে আদা ও রসুন কুচি। ভালো করে নেড়ে সবজি ও চিকেন দিয়ে আবারও নাড়তে হবে। দিয়ে দিতে হবে প্রেসার কুকারে থাকা চিকেন ও সবজির স্টকটা। ভালো করে ফুটিয়ে নিলেই তৈরি হয়ে যাবে চিকেন স্যুপ।

৫. ভেজ স্যুপ শীতকাল মানেই প্রচুর সবজির সমাগম। আর এই হরেক সবজি দিয়ে বানিয়ে নেওয়া যেতে পারে ভেজ স্যুপ। পছন্দ মতো সবজি কুচি করে কেটে নিতে হবে। প্যানে দিতে হবে মাখন, তাতে অ্যাড করতে হবে আদা ও রসুন কুচি। ভালো করে নেড়ে দিয়ে দিতে হবে সবজি। দিয়ে হবে ৩ কাপ জল। একটু ফুটে উঠলে অ্যাড করতে হবে নুন ও মরিচ। ঢাকা দিয়ে কম আঁচে সিদ্ধ হতে দিতে হবে। একটু ঘন হয়ে গেলে নামিয়ে উপরে ক্রিম ও পিঁয়াজ কুচি দিয়ে পরিবেশন করা যাবে।

Published by:Piya Banerjee
First published: