দুষ্প্রাপ্য কিছু নয়, সবই আছে রান্নাঘরে! জানেন কি কোন কোন খাবার ভালো রাখে কিডনির স্বাস্থ্য?

Certain nutrients in many food items help for a healthy kidney.

5 Food Items To Keep Your Kidney Healthy: কিডনি সুস্থ রাখতে খাদ্যতালিকায় এই খাবারগুলি খুবই উপকারী!

  • Share this:

আমাদের প্রতি দিনের জীবনে কাজের চাপ, স্ট্রেস, ব্যস্ততা সব কিছু মিলিয়ে ঠিকঠাক হয় তো শরীরের যত্নই নেওয়া হয় না। অথচ প্রতি দিন সুষম আহার শরীরের জন্য খুবই দরকার। বিশেষজ্ঞদের মতে পুষ্টিকর খাবার এবং শরীরচর্চা আমাদের দীর্ঘজীবী করে তোলে। সঠিক ও সুষম ডায়েট শুধু শরীরকে তরতাজাই করে তা নয়, অনেক অনাকাঙ্ক্ষিত রোগপ্রতিরোধেও সাহায্য করে। কিডনি এক্ষেত্রে শরীরে খানিকটা ফিল্টারের মতো কাজ করে। আমাদের শরীরের যাবতীয় টক্সিন কিডনির সাহায্যেই অপসারিত হয়। কিন্তু শরীরের তুলনায় আলাদাভাবে কিডনির যত্ন নেওয়ার কথা হয় তো আমাদের মনে আসে না। ফলস্বরূপ কিডনিতে স্টোন বা ক্যান্সারের মতো ঘটনা আজকাল প্রায়ই শোনা যাচ্ছে। অপরিমিতভাবে ক্ষতিকর খাবার খাওয়া, ঠিকঠাক ডায়েট অনুসরণ না করায় অজান্তেই শরীরে বড় ধরনের ক্ষতি হয়ে যাচ্ছে। তাই কিডনি সুস্থ রাখতে খাদ্যতালিকায় এই খাবারগুলি খুবই উপকারী!

পালং শাক

যে কোনও শাকই শরীরের জন্য উপকারী। এতে রয়েছে ভিটামিন- A, C এবং K। এছাড়াও থাকে আয়রন, ম্যাগনেসিয়াম ও ফোলেটের মতো প্রয়োজনীয় খনিজ। পালং শাকে থাকা বেটা-ক্যারোনেট ইমিউনিটি বাড়াতে সাহায্য করে। প্রতি দিনের খাবারের তালিকায় রাখা পালং কিডনিকে সুস্থ রাখবে।

আনারস

আনারসে প্রচুর পরিমানে ফাইবার থাকে যা কিডনির রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। আনারসে থাকা ম্যাসিয়াম, ভিটামিন C ও ব্রোমেলাইন জাতীয় উৎসেচক কিডনির প্রদাহজনিত ব্যথা থেকে উপশম দেয়। এছাড়াও পর্যাপ্ত পরিমাণে আনারস খেলে এতে থাকা পটাসিয়াম কিডনির নানান সমস্যার হাত থেকে বাঁচাবে।

ক্যাপসিকাম

ক্যাপসিকামে রয়েছে ভরপুর অ্যান্টি-অক্সিড্যান্ট এবং পর্যাপ্ত পরিমাণে ভিটামিন ন। কিডনিকে সুস্থ রাখতে প্রতি দিনের ডায়েটে ক্যাপসিকাম রাখা সম্ভব হলে ভালো হয়।

ফুলকপি

কিডনিকে সুস্থ রাখার অপরিহার্য উপাদান ভিটামিন C, ফোলেট এবং ফাইবার পাওয়া যায় ফুলকপিতে। এছাড়াও ফুলকপি শরীরের দূষিত টক্সিন দূর করে। এর পাশাপাশি ফুলকপি কিডনির প্রেসার কমাতেও সাহায্য করে, কেননা এতে সোডিয়াম, পটাসিয়াম ও ফসফরাস কম পরিমাণে থাকে।

রসুন

রসুনেও সোডিয়াম, পটাসিয়াম ও ফসফরাসের পরিমাণ কম থাকে বলে তা মূত্রাশয়জনিত অসুখ বা রেনাল ডিজিজের রোগীদের জন্য খুবই উপকারী। কিডনি সুস্থ রাখতেও রোজ রসুনের ব্যবহার করা যেতে পারে খাবারে।

Published by:Siddhartha Sarkar
First published: