corona virus btn
corona virus btn
Loading

করোনা থেকেও বাঁচায় 'ZUMBA' ! শরীর ফিট রাখতে সংগীত-নাচের তালে আধুনিক শরীরচর্চা কলকাতায়

করোনা থেকেও বাঁচায় 'ZUMBA' ! শরীর ফিট রাখতে সংগীত-নাচের তালে আধুনিক শরীরচর্চা কলকাতায়

নিয়মিত মিউজিকের তালে তালে নাচের মাধ্যমে এই শরীরচর্চা করলে শরীরের ইমিউনিটি বাড়ে। ফুসফুসকে করোনা সংক্রমণের হাত থেকে রক্ষা করে। এমনটাই বলছেন ফুসফুস বিশেষজ্ঞরা।

  • Share this:

 VENKATESWAR  LAHIRI 

#কলকাতা:  লকডাউনের পর আনলক ওয়ান। তবু পুরোদমে এখনও শুরু হয়নি অফিস কাছারি। স্বাভাবিক হয়নি জনজীবন। ওয়ার্ক ফ্রম হোমের মাধ্যমে আজও অনেকেই নিজের বাড়ি থেকেই অফিসের কাজ সামাল দিচ্ছেন। শুয়ে বসে শরীর লক? মন ডাউন? রোজই সংক্রমণ হু হু করে বাড়ছে। ফিটনেসই  করোনার সঙ্গে লড়াইয়ের অন্যতম মোক্ষম অস্ত্র । এমনটাই বলছে বিশেষজ্ঞ মহল।

কোরিয়া, থাইল্যান্ডে ইতিমধ্যেই বেশ জনপ্রিয় এই ফিটনেস ফাইটিং ফান্ডা। কেউ কেউ বাইরে বের হচ্ছেন। আবার কেউ কেউ করোনা আতঙ্কে বাড়িতে বসেই বিভিন্ন চিন্তা করছেন। আর এর থেকেই তৈরি হচ্ছে ডিপ্রেশন বা মানসিক অবসাদ। বিশেষ ধরনের শরীরচর্চা বদলে দিতে পারে সব অবসাদ। সেই বিশেষ শরীরচর্চা যা  ZUMBA  নামে পরিচিত। নিয়মিত মিউজিকের তালে তালে নাচের মাধ্যমে এই শরীরচর্চা করলে শরীরের ইমিউনিটি বাড়ে। ফুসফুসকে করোনা সংক্রমণের হাত থেকে রক্ষা করে। এমনটাই বলছেন ফুসফুস বিশেষজ্ঞরা।

কলকাতা শহরের দুই বাঙালি ফিটনেস প্রফেশনাল পিউ মজুমদার এবং মৈনাক বন্দ্যোপাধ্যায় নিজের শহরের পাশাপাশি দেশ-বিদেশে করোনা সংক্রমণ রুখতে প্রযুক্তিকে হাতিয়ার করে লকডাউনের সময় থেকে অনলাইন পদ্ধতিতে চালিয়ে যাচ্ছেন এই ফিটনেস ফান্ডা। তাঁরা দু’জনেই ফিটনেস এবং  ZUMBA  প্রশিক্ষক। যে দেশগুলোতে  করোনা সংক্রমণের হার বেশি, মৈনাক এবং পিউ জোর দিচ্ছেন সেই দেশের নাগরিকদের সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে তথা বিদেশি প্রশিক্ষকদের সঙ্গে যোগাযোগের মাধ্যমে সচেতন করে তোলার পাশাপাশি এই বিশেষ ধরনের শরীরচর্চার পাঠ দিতে। ব্যতিক্রম নয় কলকাতাও। আগামী ২৭ এবং ২৮ জুন বিশেষ জুম্বা প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা হয়েছে । তবে বর্তমান সময়ে নিয়মিত তাঁদের প্রশিক্ষণ চলছে অনলাইনে। চলছে ফেসবুক লাইভ কনসার্টও। প্রশিক্ষণের সময় যেখানে যাঁদের ভুল অনলাইনে দেখছেন সঙ্গে সঙ্গে শহরের দুই  বাঙালি প্রশিক্ষক শুধরে দিচ্ছেন। দ্য ডেন ফিটনেস স্টুডিওর সোশ্যাল সাইট থেকে চলছে এই বিশেষ প্রশিক্ষণ। মূলত করোনা সংক্রমণের হার ঠেকাতে পিউ - মৈনাকের এই যৌথ উদ্যোগ নিঃসন্দেহে প্রশংসার।

সবকিছু স্বাভাবিক থাকলে আগামী বছরের জানুয়ারি মাসে পিউ এবং মৈনাক ফিটনেসের ওপর  প্রতিযোগিতাও করতে চান। যার প্রধান উদ্দেশ্য  বিদেশের পাশাপাশি দেশ এবং কলকাতাতে  'ZUMBA' কে আরও  জনপ্রিয় করে তোলা। মৈনাক এবং পিউয়ের দাবি, 'ডিপ্রেশন কাটাতে চাই মোটিভেশন বা প্রেরণা এবং এক্সারসাইজ বা অনুশীলন। প্রতিদিন  জুম্বা এক্সারসাইজ  করলে ডিপ্রেশন দূর করবে। সুগার কন্ট্রোলে রাখবে। এমনকী ব্লাড প্রেসারকেও নিয়ন্ত্রণে রাখবে। জুম্বা এক্সারসাইজ শরীরের অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট রিলিজ করে, যা ফুসফুসের জন্য ভাল।  ডায়াবেটিক রোগীকে অনেকটাই সুস্থ রাখে এবং ইমিউনিটিও বাড়ায়'।

কবে জিম সম্পূর্ণ স্বাভাবিক ছন্দে ফিরবে তা নিয়ে অনিশ্চিয়তায় এখন জিম কর্তারা। এই টানাপোড়নের মাঝেই  নিজেদের সোশ্যাল সাইটের মাধ্যমে প্রতিদিন নিয়ম করে মৈনাক এবং পিউ চালিয়ে যাচ্ছেন নাগরিকদের সুস্থ রাখার কর্মযজ্ঞ। ফিটনেস স্টুডিওর কর্ণধার মৈনাক  বন্দোপাধ্যায়ের  কথায়, 'জিম পুরোপুরি স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরলে সরকারি নিয়ম মেনে জিম চালাবো'। শুধুমাত্র রূপচর্চায় বিউটি পার্লার কিম্বা স্যালনে গেলেই হবে না। নজর রাখতে হবে শরীরকে সুস্থ রাখার প্রতিও। আর সে কারণেই করোনা ভাইরাস মোকাবিলায় 'জুম্বা এক্সারসাইজ উইথ মিউজিক অ্যান্ড ডান্স' এ  অনলাইন শরীরচর্চায় আমরা বেশি জোর দিয়েছি। কলকাতার পাশাপাশি  দেশ তথা বিদেশের অনেকেই নিজেদের ফিট রাখতে আজ অনলাইন প্রশিক্ষণে অংশ নিচ্ছেন, বললেন পিউ। বিদেশের মানুষরা অনেক বেশি  সচেতন নিজেদের শরীর নিয়ে। সেই জায়গায় সচেতনতার এখনও যথেষ্ট খামতি রয়েছে আমাদের দেশ তথা কলকাতা কিম্বা রাজ্যের মানুষের। করোনা যুদ্ধে জুম্বা  কিম্বা নিয়মিত অন্যান্য হরেকরকম শারীরচর্চা জয় আনবে বলেই মত বিশেষজ্ঞদের । শারীরিক চর্চায় অংশ নেওয়ার কোনও বয়স হয় না। হাজারো ব্যস্ততার মাঝেও শরীরকে ফিট এবং করোনা-সহ নানা ধরনের সংক্রমণ ঠেকাতে দিনে অন্তত তিরিশ মিনিট শারীরিক চর্চা সকলেরই  প্রয়োজন। আর তাতেই থাকবেন আপনি রোগমুক্ত বলে মত বিশেষজ্ঞদের।

Published by: Simli Raha
First published: June 15, 2020, 11:30 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर