লকডাউনে মডেলিংয়ের কাজ নেই! মানসিক অবসাদে আত্মঘাতী তরুণী

Photo- Representative

বেশ কিছুদিন আগেই একটি এয়ার হোস্টেস ট্রেনিং সেন্টারে ভর্তি হন ওই তরুণী। ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট গ্রুপে মডেলিং করার সুযোগও পান তিনি।

  • Share this:
আর্থিক স্বচ্ছলতা, তার সঙ্গে জীবনে গ্ল্যামার জগতের হাতছানি। কলকাতায় নামী-দামি মডেলিং করে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করার সুযোগ।  সেই স্বপ্ন পূরণ করতে বছর চব্বিশের তরুণী জয়নগর থেকে চলে এসেছিলেন কলকাতায়। কলকাতার যাদবপুরের একটি বাড়ি ভাড়া করে থাকতেন তিনি। বেশ কিছুদিন আগেই একটি এয়ার হোস্টেস ট্রেনিং সেন্টারে ভর্তি হন ওই তরুণী। ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট গ্রুপে মডেলিং করার সুযোগও পান তিনি। রবিবার সকাল থেকে অনেকের সঙ্গে কথা বললেও মন ভাল ছিল না তরুণীর। সকাল থেকেই বিভিন্ন কথার মাধ্যমে মানসিক অবসাদের কথাই উঠে আসছিল। রবিবার বিকালে বারবার ডাকাডাকি হলেও সাড়া দেননি তিনি। পরে যাদবপুর থানায় তদন্তকারী অফিসার বন্ধ ঘরের দরজা ভেঙে উদ্ধার করা হয় ওই তরুণীর দেহ। পুলিশের প্রাথমিক অনুমান, গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন তিনি। করোনা পরিস্থিতিতে লকডাউন থাকার জন্য আর্থিক সঙ্কটের মধ্যে পড়েছিলেন ওই তরুণী৷ কারণ কাজ ছিল না৷ মানষিক অবসাদে ভেঙে পড়েন তিনি। যদিও কী কারণে মৃত্যু, তা স্পষ্ট হবে ময়নাতদন্তের রিপোর্টেই। অন্যদিকে উনিশ বছরের একটি ছেলের মৃত্যু হয় রবিবার। প্রেমিকা উপহার ফিরিয়ে দাওয়ায় আত্মঘাতী প্রেমিক। উপহার ফিরিয়ে দাওয়ায় ঘরের মধ্যে গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যা করে ওই তরুণ। রবিবার ঘটনাটি ঘটেছে রিজেন্ট পার্ক এলাকায় নিরঞ্জন পল্লিতে। রিজেন্ট পার্ক থানার পুলিশ সূত্রে খবর, সুভাষ পার্ক এলাকার এক তরুণীর সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক ছিল বছর ১৯- এর ওই তরুণের। সূত্রের খবর, শনিবার তাঁর প্রেমিকা ওই তরুণের দেওয়া উপহার ফিরিয়ে দিয়েছিলেন। Susobhan Bhattacharya
Published by:Debamoy Ghosh
First published: