বঙ্গে ধরাশায়ী দল, গোপন বৈঠকে মোদি-শাহ-নাড্ডা! বিস্ফোরক দাবি যশবন্ত সিনহার

বঙ্গে ধরাশায়ী দল, গোপন বৈঠকে মোদি-শাহ-নাড্ডা! বিস্ফোরক দাবি যশবন্ত সিনহার

সাংবাদিক বৈঠকে যশবন্ত সিনহা এবং শশী পাঁজা। ছবি ফেসবুক থেকে নেওয়া।

যশবন্তের দাবি অনুযায়ী শুক্রবার গভীর রাতে বাংলা ভোটে পদ্ম বিপর্যয় নিয়ে কথাবার্তাও সেরেছেন নরেন্দ্র মোদি, অমিত শাহ, জেপি নাড্ডা।

  • Share this:

    #কলকাতা: এখনও বাকি ছয় দফা ভোট। কিন্তু বিজেপি নাকি দুই দফাতেই ধরাশায়ী। আর সেই কারণেই তড়িঘড়ি ড্যামেজ কন্ট্রোলে নামছেন নরেন্দ্র মোদি, অমিত শাহ-রা।  শনিবার দুপুরে সাংবাদিক সম্মেলনে এমনটাই দাবি করলেন তৃণমূলের সর্বভারতীয় সভাপতি যশবন্ত সিনহা। যশবন্তের দাবি অনুযায়ী শুক্রবার গভীর রাতে বাংলা ভোটে পদ্ম বিপর্যয়  নিয়ে কথাবার্তাও সেরেছেন নরেন্দ্র মোদি, অমিত শাহ, জেপি নাড্ডা।

    আজ যশবন্ত সিং ওই সাংবাদিক বৈঠকে বলেন, সূত্র মারফত জেনেছি দিল্লিতে শুক্রবার গভীর রাতে নরেন্দ্র মোদি, জে পি নাড্ডা, অমিত শাহ একটি অভ্যন্তরীণ বৈঠখএ বসেছেন। তাঁরা বুঝেছেন  প্রথম দুদফায় নিরাশাজনক ফল হতে চলেছে। বাকি যে ৬টি পর্যায় রয়ছে সেখানে ফল আরও খারাপ হতে পারে তাই মাইন্ডগেমেই ভরসা রাখছে বিজেপি। মিথ্যে দিয়ে মানুষকে বিভ্রান্ত করা হবে।

    যশবন্ত সিনহার দাবির সত্যতা যাচাই করেনি নিইজ১৮। কিন্তু রাজনৈতিক মহলে প্রশ্ন ঘুরতে শুরু করেছে, মোদি যখন হুগলিতে সভা করবেন তার ঠিক কয়েক ঘণ্টা আগেই কেন এমন মত প্রকাশ করলেন যশবন্ত? পর্যবেক্ষকরা বলছেন এটা পাকা মাথার খেলা। এদিন সাংবাদিক সম্মেলনে শশী পাঁজার সঙ্গে তিনি উপস্থিত হলেন কারণ বিজেপির সব মহলে তাঁর যোগাযোগ প্রশ্নাতীত। কাজেই তিনি একটি যুক্তি দিলে তা অনেক বেশি বিশ্বাসযোগ্য হবে।

    আরও একটি ব্যখ্যা রয়েছে। রাজনৈতিক মহল বলছে, মাত্র দুই দফার ভোট হয়েছে। এখনও বাকি ছয় দফার লড়াই। এর মধ্যেই বিজেপি বলতে শুরু করেছে তারা ম্যাচ পকেটে শুরু করে নিয়েছে। তৃণমূল নেত্রী নিজেও বলছেন খুবই ভালো হয়েছে প্রথম দুটি  দফার ভোটের ফল। কিন্তু রণাঙ্গনে তিনি একা, তার সঙ্গে পাল্লা দিচ্ছেন বিজেপির বহু ডাকসাইটে নেতা। তাঁদের মূল লক্ষ্য ভোটের ফল যাই হোক না কেন, আপাতত ধারণা তৈরি করে হাওয়া যতটা সম্ভব অনুূকূলে আনা। ফলে তৃণমূলের পাল্টা দাওয়াই বিজেপির স্ট্র্যাটেজিকে আগেভাগেই মাইন্ডগেম বলে চিহ্নিত করা। এই কারণেই যশবন্ত সিং এদিন এমন অভিযোগ করলেন।

    Published by:Arka Deb
    First published: