• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • বিশ্বে ভারতে হৃদরোগে মৃত্যুর হার বেশি, সচেতনতার জন্য কী করা প্রয়োজন

বিশ্বে ভারতে হৃদরোগে মৃত্যুর হার বেশি, সচেতনতার জন্য কী করা প্রয়োজন

Photo : News18

Photo : News18

  • Share this:

    #কলকাতা: হৃদরোগের রাজধানী। সমীক্ষা বলছে, সারা বিশ্বের মধ্যে ভারতে হৃদরোগে মৃত্যুর হার সবচেয়ে বেশি। সেকারণেই এই নাম। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ভারতে হৃদরোগের চিকিৎসায় আর্থিক বা পরিকাঠামোগত দিক থেকে সমস্যা আছে ঠিকই, তবে তার থেকেও বড় সমস্যা, সচেতনতার অভাব। তাহলে কীভাবে মোকাবিলা? কলকাতায় তাই নিয়েই হয়ে গেল হৃদরোগ বিশেষজ্ঞদের সম্মেলন।

    প্রতিদিন সময় এগোয়... সময়ের বুকে হৃদযন্ত্রের ঘড়ি.. জীবনের কাঁটা এগোতে থাকে...কিন্তু একদিন হঠাৎ বুকে ব্যথা... ঘাম.. অস্বস্তি। ব্যস্ত জীবন বা গাফিলতিতে এড়িয়ে যাওয়া। কিন্তু, এই লক্ষ্মণ হার্ট অ্যাটাক নয় তো? হৃদয়ের মন বুঝতে দেরি হয়ে যাচ্ছে না তো?

    ভারতে জনসংখ্যা প্রায় একশ পঁয়ত্রিশ কোটি। হৃদরোগ বিশেষজ্ঞরা বলছেন, সারা বিশ্বের মধ্যে ভারতে হৃদরোগে মৃত্যুর হার সবথেকে বেশি ৷ ভারত তাই হৃদরোগের রাজধানী ৷ হৃদরোগ মোকাবিলায় সচেতনতা বাড়াতে শহরে সম্মেলন করেছিলেন চিকিৎসকরা। কার্ডিওলজিক্যাল সোসাইটি অফ ইন্ডিয়া স্টেমি কাউন্সিল ও স্টেমি ইন্ডিয়ার উদ্যোগে এই সম্মেলন হয়। দেশে বিদেশের প্রায় সাতশো হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ অনুষ্ঠানে অংশ িনয়েছিলেন। তাঁরা বলছেন, ভারতের মত দেশে চিকিৎসায় আর্থিক বা পরিকাঠামোগত সমস্যা আছে। তবে তার থেকেও বেশি সমস্যা সচেতনতার। হার্ট অ্যাটাকের পর বুঝতে না পেরেই বিপদ ডেকে আনেন বেশিরভাগ মানুষ।

    হৃদরোগের সচেতনতার কারণে কী করতে হবে-

    - হার্ট অ্যাটাকের পর প্রথম দু'ঘণ্টার মধ্যে চিকিৎসা সবচেয়ে বেশি প্রয়োজন

    - অনেকক্ষেত্রেই ৬ ঘণ্টার পরে চিকিৎসকদের কাছে যান মানুষ

    অন্যান্য দেশে এই সচেতনতার হার অনেকটাই বেশি। হৃদরোগে আক্রান্ত রোগীর কীভাবে খেয়াল রাখতে হবে তাই নিয়ে নার্সিং স্টাফদেরও উন্নত প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়। সঙ্গে সস্তা ওষুধেও হৃদরোগের চিকিৎসা নিয়ে আলোচনা করেন চিকিৎসকরা। হৃদরোগ বিশেষজ্ঞদের মত, নিজে থেকে ডাক্তারি একদম নয়। অস্বস্তি বুঝলেই আগে চিকিৎসকদের কাছে যেতে হবে। সচেতনতাই দিতে পারে সুস্থতা.. আর তখনই হৃদয় লিখবে জীবনের কথা..

    Published by:Amrit Halder
    First published: