• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • কলকাতা পুরসভায় প্রশাসক বসানোর সিদ্ধান্ত কীভাবে? মুখ্যমন্ত্রীর থেকে জবাব চাইলেন রাজ্যপাল

কলকাতা পুরসভায় প্রশাসক বসানোর সিদ্ধান্ত কীভাবে? মুখ্যমন্ত্রীর থেকে জবাব চাইলেন রাজ্যপাল

সিদ্ধান্ত কে নিলেন, সিদ্ধান্তের কথা রাজ্যপাল কে কেন জানানো হল না, এসব জানতে চেয়ে বুধবার রাতেই রাজভবনের তরফে চিঠি যায় মুখ্যসচিবের কাছে

সিদ্ধান্ত কে নিলেন, সিদ্ধান্তের কথা রাজ্যপাল কে কেন জানানো হল না, এসব জানতে চেয়ে বুধবার রাতেই রাজভবনের তরফে চিঠি যায় মুখ্যসচিবের কাছে

সিদ্ধান্ত কে নিলেন, সিদ্ধান্তের কথা রাজ্যপাল কে কেন জানানো হল না, এসব জানতে চেয়ে বুধবার রাতেই রাজভবনের তরফে চিঠি যায় মুখ্যসচিবের কাছে

  • Share this:

#‌কলকাতা:‌ কলকাতা পুরসভায় প্রশাসক বসানোর সিদ্ধান্ত কিভাবে নেওয়া হল তা জানতে চেয়ে বুধবার রাতেই মুখ্য সচিবকে চিঠি পাঠানো হয়েছিল রাজভবনের তরফে। কিন্তু বৃহস্পতিবার বিকাল পর্যন্ত সেই চিঠির কোন উত্তর না পাওয়ায় শেষ পর্যন্ত মুখ্যমন্ত্রীর কাছ থেকেই জবাব চাইলেন রাজ্যপাল জগদীপ ধন‌খড়। কলকাতা পুরসভায় প্রশাসক নিয়োগের সিদ্ধান্তের কথা কেন তাঁকে জানানো হল না, সেটাই মুখ্যমন্ত্রীর কাছ থেকে জবাব চেয়েছেন রাজ্যপাল। বৃহস্পতিবার বিকেল নাগাদ বাংলা ও ইংরেজিতে ট্যুইট করেন রাজ্যপাল। ট্যুইট করে তিনি বলেন, ‘‌মুখ্য সচিবের কাছ থেকে কোন সাড়া না পাওয়ায় মুখ্যমন্ত্রীর কাছে কলকাতা পৌরসভার ৬ মে ২০২০–তে জারি করা নির্দেশ সম্পর্কে জানতে চেয়েছি। অনুচ্ছেদ ১৬৭ অনুসারে মুখ্যমন্ত্রীর কর্তব্য রাজ্যপালকে তথ্য সরবরাহ করা। এই নির্দেশটির গভীর তাৎপর্য রয়েছে।’‌

বৃহস্পতিবার শেষ হচ্ছে কলকাতা পুরসভার নির্বাচিত বোর্ডের মেয়াদ। শুক্রবার থেকেই দায়িত্ব নেবে প্রশাসক বোর্ড। বুধবার সরকারি নির্দেশনামার মাধ্যমে এই প্রশাসক বোর্ড করে দেওয়া হয়। বিদায়ী মেয়র ফিরহাদ হাকিমকে বোর্ডের মাথায় বসানো হয়। আর বিদায়ী মেয়র পারিষদদের করা হয় বোর্ডের সদস্য।

এই বোর্ড গঠন করার সিদ্ধান্ত কিভাবে নেওয়া হল, সিদ্ধান্ত কে নিলেন, সিদ্ধান্তের কথা রাজ্যপালকে কেন জানানো হল না, এসব জানতে চেয়ে বুধবার রাতেই রাজভবনের তরফে চিঠি যায় মুখ্যসচিবের কাছে। বৃহস্পতিবার সকালে এ বিষয়ে ট্যুইটও করেন রাজ্যপাল। ট্যুইটে ক্ষোভ প্রকাশ করে তিনি বলেন, ‘‌আমার নামে অর্ডার বেরোলো কিন্তু আমাকে কিছু জানানো হল না।’‌

সংবিধানের ১৬৭ অনুচ্ছেদ প্রয়োগ করে মুখ্যমন্ত্রীর কাছ থেকে তিনি জবাব চেয়েছেন বলে রাজ্যপাল জানিয়েছেন ট্যুইট করে। সংবিধানের এই অনুচ্ছেদ অনুযায়ী সরকারি সিদ্ধান্তের বিষয় রাজ্যপালকে অবহিত করা মুখ্যমন্ত্রী কর্তব্য। সে কথা এদিন ট্যুইট করে মনে করিয়ে দিয়েছেন রাজ্যপাল। কলকাতা পুরসভার মাথার উপরে প্রশাসক বসানোর বিষয়ে নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত তাকে না জানানোয় তিনি যথেষ্ট ক্ষুব্ধ তা কার্যত তার ট্যুইটের মাধ্যমেই মনোভাব বুঝিয়ে দিয়েছেন।

সোমরাজ বন্দ্যোপাধ্যায়

Published by:Uddalak Bhattacharya
First published: