• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • WEST BENGAL GOVERNMENT WANTS REPORT ON RAPE CASES AS PER NHRC REPORT ON POST POLL VIOLENCE SB

NHRC Report on Bengal: যাদবপুরের ঘটনা 'ক্লোজ চ্যাপ্টার', NHRC রিপোর্টের পাল্টা প্রত্যাঘাতের পথে নবান্ন

'ঘর' গোছাচ্ছে রাজ্য

NHRC Report on Bengal: জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের রিপোর্টে 'ভোট পরবর্তী হিংসা'র ঘটনায় যতগুলি ধর্ষণের অভিযোগ উঠে এসেছে, প্রতিটি ঘটনার রিপোর্ট চাইলেন রাজ্যের অ্যাডভোকেট জেনারেল কিশোর দত্ত।

  • Share this:

    #কলকাতা: 'ভোট পরবর্তী হিংসা' নিয়ে মানবাধিকার কমিশনের রিপোর্টে (NHRC Report) উল্লেখিত সমস্ত ঘটনায় ধরে ধরে জেলা প্রশাসনের কাছে রিপোর্ট চেয়েছিলেন রাজ্যের স্বরাষ্ট্র সচিব বিপি গোপালিকা। আরও একধাপ এগিয়ে থানাভিত্তিক রিপোর্ট তৈরি করে পাঠানোরও নির্দেশ দেওয়া হয়েছে নবান্নের তরফে। এই পরিস্থিতিতে রাজ্য সরকারের জন্য কিছুটা স্বস্তি বয়ে আনলেন এই বিষয়ে হাইকোর্টের একটি নির্দেশ। যাদবপুরে জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের সদস্যদের 'আক্রান্ত' হওয়ার ঘটনায় আইপিএস রশিদ মুনির খানকে ওই ঘটনায় শোকজ করেছিল কলকাতা হাইকোর্ট। সেই শোকজের জবাব দিয়েছেন ওই আইপিএস। জানা গিয়েছে, রশিদ মুনির খানের জমা দেওয়া উত্তরে সন্তুষ্ট আদালত। ইতিমধ্যেই আদালতের তরফে জানানো হয়েছে, বিষয়টি 'ক্লোজ চ্যাপ্টার'।

    এদিকে, জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের রিপোর্টে 'ভোট পরবর্তী হিংসা'র ঘটনায় যতগুলি ধর্ষণের অভিযোগ উঠে এসেছে, প্রতিটি ঘটনার রিপোর্ট চাইলেন রাজ্যের অ্যাডভোকেট জেনারেল কিশোর দত্ত। আদালতের কাছে ধর্ষণের 'ঘটনাগুলির' তথ্য রাজ্যকে দেওয়ার আর্জি জানান তিনি। সেই ভিত্তিতেই আদালতে পাল্টা রিপোর্ট দেবে রাজ্য। রাজ্যের সেই আর্জির প্রেক্ষিতে হাইকোর্টের ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি জানান, ধর্ষণের তথ্য কোনওভাবেই যাতে জনসমক্ষে আনা যাবে না।

    ইতিমধ্যেই জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের রিপোর্টে কাঠগড়ায় তোলা হয়েছে রাজ্যের শাসক দলকে। একইসঙ্গে প্রশ্নের মুখে পড়েছে প্রশাসনও। কারণ ভোট-হিংসা প্রতিরোধে প্রশাসন দায়িত্ব পালন করেনি বলে কমিশনের রিপোর্টে দাবি করা হয়েছে। ফলে প্রতিটি ঘটনা ধরে ধরে জবাব দিতে উদ্যোগী হয়েছে রাজ্য সরকার। ইতিমধ্যেই রিপোর্ট পাঠাতে বলা হয়েছে সংশ্লিষ্ট জেলা প্রশাসনগুলিকে। পরে থানা ধরে ধরে রিপোর্ট পাঠানোর জন্য জেলা পুলিশ সুপারদের নির্দেশ দিয়েছেন রাজ্যের স্বরাষ্ট্র সচিব বিপি গোপালিকা।

    নবান্নের তরফে থানাগুলিকে এমনও বলা হয়েছে, মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় শপথ নেওয়ার পর থেকে কোন থানায় কত অভিযোগ জমা পড়েছে, তারমধ্যে রাজনৈতিক হিংসার অভিযোগ কতগুলি, তা পৃথকভাবে রিপোর্টে উল্লেখ করতে বলা হয়েছে। রাজনৈতিক খুনের অভিযোগ কতগুলি, সেই তথ্যও উল্লেখ করতে হবে ওই রিপোর্টে।

    Published by:Suman Biswas
    First published: