Home /News /kolkata /
West Bengal: গ্রামে গ্রামে এবার গ্রামীণ হাট, পঞ্চায়েত নির্বাচনের মুখে রাজ্যের নয়া সিদ্ধান্ত নিয়ে আলোচনা তুঙ্গে

West Bengal: গ্রামে গ্রামে এবার গ্রামীণ হাট, পঞ্চায়েত নির্বাচনের মুখে রাজ্যের নয়া সিদ্ধান্ত নিয়ে আলোচনা তুঙ্গে

প্রতীকী ছবি

প্রতীকী ছবি

West Bengal: ইতিমধ্যেই প্রতিটি শিল্প কেন্দ্র থেকে তাদের জেলার হাট-বাজার নিয়ে একটা বিস্তারিত রিপোর্ট পাঠিয়েছে নবান্নে।

  • Share this:

#কলকাতা: রাজ্যের নজরে এবার গ্রামীণ অর্থনীতি ও কৃষিজাত পণ্যের বাণিজ্য। গ্রামীণ অর্থনীতিকে চাঙ্গা করতে জেলায় জেলায় হাট বাজার তৈরির সিদ্ধান্ত রাজ্যের। মূলত কৃষিজাত পণ্যের বাণিজ্যের বিকাশে এই নয়া কর্মসূচি গ্রহণ রাজ্যের ক্ষুদ্র মাঝারি ও কুটির শিল্প দফতরের। প্রতিটি জেলাকে গ্রামীণ হাট বাজারের পরিকাঠামোগত উন্নয়নের যে প্রয়োজন রয়েছে তার তালিকা-সহ বিস্তারিত তথ্য পাঠানোর নির্দেশ। পাশাপাশি কোন কোন এলাকায় গ্রামীণ হাটবাজার তৈরি করতে হবে, তারও তালিকা পাঠানোর নির্দেশ। সেই রিপোর্টে উল্লেখ করতে হবে এলাকার নাম, রেলস্টেশন বা কোন গুরুত্বপূর্ণ বড় রাস্তা সংশ্লিষ্ট গ্রামীণ বাজার হাট থেকে কতটা দূর তা জানাতে হবে। আর যদি কোন গ্রামীন হাট থেকে থাকে তার কোন পরিকাঠামোগত উন্নয়নের প্রয়োজন রয়েছে নাকি তাও জানাতে হবে। দ্রুত এই রিপোর্ট পাঠানোর নির্দেশ জেলাগুলিকে। পঞ্চায়েত নির্বাচনের দিকে লক্ষ্য রেখে গ্রামের হাট বাজার গুলির পরিকাঠামো উন্নয়নের জোর? জল্পনা তা নিয়ে।

আরও পড়ুন - কলকাতা পুরসভার ১০০ বছরের প্রাচীন ছাপার যন্ত্র! আরও কত আশ্চর্য ইতিহাস, দেখতে পাবেন সবাই

ইতিমধ্যেই প্রতিটি শিল্প কেন্দ্র থেকে তাদের জেলার হাট-বাজার নিয়ে একটা বিস্তারিত রিপোর্ট পাঠিয়েছে নবান্নে। তার ভিত্তিতেই রাজ্যের ক্ষুদ্র,মাঝারি ও কুঠির শিল্প দফতরের সচিব রাজেশ পান্ডে জেলাশাসকদের চিঠি দিয়ে জেলার হাট বাজারের পরিকাঠামো বিকাশে নির্দিষ্ট প্রস্তাব চেয়েছেন। তাঁর মতে রাজ্য সরকার গ্রামীণ অর্থনীতি, বিশেষ করে কৃষিজাত বাণিজ্য বিকাশে এই নয়া কর্মসূচি গ্রহণ করেছে।

আরও পড়ুন - নিউটাউনে পার্ক ব্যবহারে আজব ফরমান ঘিরে বিস্মিত বাসিন্দারা

চিঠিতে তিনি স্পষ্ট করে জানিয়েছেন, যে সমস্ত গ্রামীণ হাট-বাজারের পরিকাঠামোগত উন্নয়নের প্রয়োজন রয়েছে, তার তালিকা-সহ বিস্তারিত তথ্য দ্রুত পাঠাতে হবে। সংশ্লিষ্ট হাট বা বাজার যদি অন্য কোনও সরকারি দফতরের নিয়ন্ত্রণে থাকে, প্রস্তাব পাঠানোর সময় তা ক্ষুদ্র,মাঝারি ও কুঠির শিল্প দফতরের নামে হস্তান্তর করে পাটাতে হবে। রিপোর্টের অবশ্যই করে উল্লেখ করে এলাকার নাম, রেল স্টেশন ও জাতীয় বা রাজ্য সড়ক বা অন্য কোনও গুরুত্বপূর্ণ বড় রাস্তা থেকে সংশ্লিষ্ট বাজার বা হাটের দূরত্ব কতটা। কোনও অ্যাপ্রোচ রোড থাকলে তাও উল্লেখ করতে হবে বিস্তারিতভাবে। বাজার বা হাটে কোনও নির্মাণ থাকলে তা ভাঙার প্রয়োজন হলে তা উল্লেখ করতে হবে। সঙ্গে কত স্টল রয়েছে, কত মানুষ পেশাগতভাবে এর সঙ্গে যুক্ত, কী কী ধরনের সুযোগ সুবিধা করে দিতে হবে সব বিস্তারিতভাবে উল্লেখ করতে হবে।

সোমরাজ বন্দ্যোপাধ্যায়

Published by:Uddalak B
First published:

Tags: West Bengal Government

পরবর্তী খবর