Mamata to Modi: '৭০ অক্সিজেন প্ল্যান্টের অনুমতি চেয়ে পেয়েছি চারটের!' মোদিকে ফের পত্রাঘাত মমতার

ফের পত্রে আক্রমণ

রাজ্যের কৃষকরা যেদিন প্রথম কেন্দ্রীয় সরকারের কিসান সম্মান নিধি প্রকল্পের ২ হাজার টাকা পেলেন, সেদিন ফের প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি লিখলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী। এবারের বিষয়- রাজ্যের অক্সিজেন প্ল্যান্ট।

  • Share this:

    #কলকাতা: এক সপ্তাহের একটু বেশি সময়, রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে তৃতীয়বার শপথগ্রহণ করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee)। আর তারপর থেকেই প্রায় দিনই একটি করে চিঠি তিনি পাঠাতে শুরু করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে (Narendra Modi)। করোনা আবহে রাজ্যের জন্য সাহায্য চাওয়ার সূত্রেই অধিকাংশ চিঠি হলেও একে মমতার সুক্ষ্ম রাজনীতি বলেই মনে করছে রাজনৈতিক মহল। এর আগেও করোনা পরিস্থিতিতে রাজ্যের জন্য অক্সিজেন সরবরাহ বৃদ্ধির দাবি তুলেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী, লিখেছিলেন করোনার চিকিৎসা সরঞ্জামের উপর কর ছাড় দেওয়া হোক। আর রাজ্যের কৃষকরা যেদিন প্রথম কেন্দ্রীয় সরকারের কিসান সম্মান নিধি প্রকল্পের ২ হাজার টাকা পেলেন, সেদিন ফের প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি লিখলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী। এবারের বিষয়- রাজ্যের অক্সিজেন প্ল্যান্ট।

    চিঠিতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের লিখেছেন, 'করোনা পরিস্থিতিতে অক্সিজেন ঘাটতি মোকাবিলার জন্য রাজ্যের হাসপাতালগুলিতে পিএসএ অক্সিজেন প্ল্যান্ট বসাতে চায় সরকার। এই ধরনের ৭০টি প্ল্যান্ট বসানোর পরিকল্পনা নিয়েছে রাজ্য। কিন্তু কেন্দ্রের কাছে আবেদন করে মাত্র চারটির অনুমোদন পাওয়া গিয়েছে। এই বিষয়ে আপনার দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।' গত বুধবার তিনি চিঠিতে প্রধানমন্ত্রীকে দেশের প্রয়োজনে বিদেশ থেকে হলেও ভ্যাকসিন আনার অনুরোধ করেন মমতা। ইতিমধ্যেই বেশ কিছু রাজ্য বাইরে থেকে ভ্যাকসিন আনার তোড়জোড়ও শুরু করেছে।

    এর আগেও অবশ্য রাজ্যের অক্সিজেন প্রাপ্তি নিয়ে উষ্মা প্রকাশ করেছিলেন মমতা। দিন কয়েক আগেই একটি চিঠিতে মমতা মোদির উদ্দেশে লিখেছিলেন, 'করোনা পরিস্থিতিতে প্রতিদিন অক্সিজেনের চাহিদা বাড়ছে। গত ২৪ ঘণ্টায় অক্সিজেনের চাহিদা ছিল ৪৭০ মেট্রিক টন। অথচ রাজ্য এখন গড়ে দিনে অক্সিজেন পাচ্ছে ৩০৮ মেট্রিক টন। কিছুদিনের মধ্যেই ৫৫০ মেট্রিন টন অক্সিজেন দরকার পড়বে।' তাই প্রধানমন্ত্রীর কাছে মুখ্যমন্ত্রী আর্জি জানিয়েছিলেন, কেন্দ্র যাতে রাজ্যের জন্য বরাদ্দ অক্সিজেন আর না নেয়, এবং প্রয়োজনীয় অক্সিজেন সরবরাহ করা হয়।

    অপরদিকে, ভারতে করোনা সংক্রমণ চূড়ান্ত বৃদ্ধি পেলেও পর্যাপ্ত টিকার খোঁজ নেই। এমনই অভিযোগ তুলেছে একাধিক রাজ্য। ভ্যাকসিনের অভাবে টিকাকরণ কর্মসূচি বন্ধ রাখা হয়েছে বলেই দাবি তাঁদের। সেই তালিকায় আছে পশ্চিমবঙ্গও। টিকার জন্য কেন্দ্রীয় সরকারের কাছে আবেদন করার পরেও পর্যাপ্ত টিকা পাওয়া যাচ্ছে না বলে অভিযোগ বিজেপি শাসিত বহু রাজ্যেরও। সেক্ষেত্রে সরাসরি বিদেশ থেকে টিকা কেনার উদ্যোগ নিয়েছে দিল্লি, উত্তরপ্রদেশ, কর্নাটক, ওডিশার মতো বেশ কিছু রাজ্য।

    Published by:Suman Biswas
    First published: