Home /News /kolkata /
BJP to celebrate Bengali New Year: মেনুতে এঁচোড় চিংড়ি, কচি পাঁঠার ঝোল! নববর্ষ উদযাপনে কোমর বেঁধে নামছে বঙ্গ বিজেপি

BJP to celebrate Bengali New Year: মেনুতে এঁচোড় চিংড়ি, কচি পাঁঠার ঝোল! নববর্ষ উদযাপনে কোমর বেঁধে নামছে বঙ্গ বিজেপি

প্রতীকী ছবি৷

প্রতীকী ছবি৷

সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে বিজেপি নেতৃত্বের পাশাপাশিই অংশ নেবেন অনেক প্রথিতযশা শিল্পী-কলাকুশলীরাও। অনুষ্ঠানের শেষে থাকছে পাত পেড়ে খাওয়ার ব্যবস্থাও।

  • Share this:

    #কলকাতা: দুর্গা পুজোর পর পয়লা বৈশাখে এবার 'নববর্ষ' উদযাপনে উদ্যোগী রাজ্য বিজেপি। আগামী ১৫ এপ্রিল বৈশাখের প্রথম দিনেই হেস্টিংসে দলীয় নির্বাচনী কার্যালয়ে পালিত হবে বাংলা নববর্ষের অনুষ্ঠান। বিজেপির নেতা-কর্মীরা ছাড়াও সেই উৎসবে সামিল হতে সমাজের গণ্যমান্যদেরও ইতিমধ্যেই আমন্ত্রন জানিয়েছে বিজেপি। বিজেপি সূত্রে খবর,

    প্রাথমিকভাবে সল্টলেকে আইসিসিআর প্রেক্ষাগৃহে এই অনুষ্ঠানের পরিকল্পনা করা হলেও পরে বিশেষ কারণে স্থল পরিবর্তন করে হেস্টিংসের নির্বাচনী দফতরেই নববর্ষ পালনের সূচি চূড়ান্ত হয়েছে।

    আরও পড়ুন: আগামিকাল ভোট, সকাল থেকেই দফায় দফায় এজেন্ট ও নেতাদের সঙ্গে বৈঠকে শত্রুঘ্ন-বাবুল 

    পয়লা বৈশাখের অনুষ্ঠানের পুরোভাগেই থাকছে বাংলার কৃষ্টি, সংস্কৃতির ছোঁয়া। সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে বিজেপি নেতৃত্বের পাশাপাশিই অংশ নেবেন অনেক প্রথিতযশা শিল্পী-কলাকুশলীরাও। অনুষ্ঠানের শেষে থাকছে পাত পেড়ে খাওয়ার ব্যবস্থাও। সম্পূর্ন বাঙালিয়ানা মেনেই স্থির করা হয়েছে মেনুও। কী থাকছে নববর্ষের মেনুতে?

    বিজেপি সূত্রে খবর, বাংলা নববর্ষের আহারে খাদ্যপদেও থাকবে বিশেষ চমক। মাটির থালায় ভাত, শুক্তো, দু'-চার রকমের ভাজা, এঁচোড় চিংড়ি, মাছ, কচি পাঁঠার মাংস, চাটনি, পাঁপরের সঙ্গেই থাকবে স্পেশাল মিষ্টান্নও। নববর্ষ উদযাপনের অনুষ্ঠানটি বিজেপি রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদারের মস্তিষ্কপ্রসূত হলেও দলের তরফে দায়িত্বে দেওয়া হয়েছে রুদ্রনীল ঘোষ, সুমন বন্দ্যোপাধ্যায়দের।

    আরও পড়ুন: রাজ্যের উন্নয়নে বিরাট পদক্ষেপ, নবান্নের এক বৈঠক ঘিরে শোরগোল তুঙ্গে

    যদিও বিজেপি-র এই নববর্ষ উদযাপনের বিষয়টি প্রকাশ্যে আসার পর থেকেই শুরু হয়েছে রাজনৈতিক তরজা। বিরোধীদের একাংশের অভিমত, ঘটা করে দুর্গাপুজো হোক কিংবা নববর্ষের অনুষ্ঠান, এগুলোর কোনওটাই কোনও রাজনৈতিক দলের সংস্কৃতি হতে পারে না। নির্বাচনের আগে এসব করে আসলে বাঙালি আবেগে শান দেওয়ার চেষ্টা করতে মরিয়া বিজেপি শিবির। বিধানসভা নির্বাচনে পরাজয়ের পর এখন সামনের পঞ্চায়েত ও লোকসভা নির্বাচনে বাঙালি সমর্থন আদায়েরই ব্যর্থ কৌশল বিজেপির নববর্ষ। যদিও বিরোধী শিবিরের এই যুক্তিকে মান্যতা দিতেই নারাজ বিজেপি রাজ্য সভাপতি।

    এই প্রসঙ্গে বালুরঘাটের সাংসদ ও রাজ্য বিজেপি সভাপতি সুকান্ত মজুমদার জানান, 'নববর্ষের উৎসব বাঙালি সমাজের নিবিড় যোগ। রাজনৈতিক দলও সমাজ বহির্ভূত নয়। বাঙালির উৎসব, দলেরও উৎসব। তাই আমরা নববর্ষের উৎসব পালন করার পরিকল্পনা নিয়েছি। এই উৎসবে শুধুমাত্র রাজনৈতিক কর্মীরাই সামিল হবেন না, বহু কৃতি প্রথিতযশা শিল্পী, গুণীজনদেরও আমরা আহ্বান জানিয়েছি। যাঁরা বলছেন আমরা বাঙালিয়ানা প্রমাণে মরিয়া, তাঁদের উদ্দেশে জানাই শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায় যিনি একজন বাঙালি, তাঁর ছবি, মূর্তি সারা ভারতের সমস্ত বিজেপি দফতরেই সযত্নে রেখে দেওয়া হয়, তাঁকে সম্মানও জানানো হয়। কিন্তু অন্য রাজনৈতিক দলের কার্যালয়গুলিতে অনেকসময় নেতাজির ছবিও খুঁজে পাওয়া দুষ্কর হয়ে ওঠে। এই অনুষ্ঠান এবার থেকে প্রতি নববর্ষেই পালন করবে বঙ্গ বিজেপি।'

    Sourajyoti Banerjee

    Published by:Debamoy Ghosh
    First published:

    Tags: Bengali New Year, BJP

    পরবর্তী খবর