• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • WE WANT STRICT SURVEILLANCE FOR TRANSPARENT VOTER LIST BJP SAYS AT ELECTION COMMISSION ALL PARTY MEET ED

'সর্ষের মধ্যে ভূত', স্বচ্ছ ভোটার তালিকার জন্যে চাই কড়া নজরদারি: বিজেপি

দুর্নীতির সম্ভাবনার অভিযোগ জানিয়েছে বিজেপিই। কারণ তাদের মতে রাজ্য প্রশাসনের ‘চাপে’ কাজ করে সরকারি কর্মীরা ৷ সেক্ষেত্রে সর্ষের মধ্যে ভূত ও ভুতুড়ে ভোটার থেকে যাওয়ার সমূহ সম্ভাবনা বলে মনে করছে রাজ্যের গেরুয়া শিবির ৷

দুর্নীতির সম্ভাবনার অভিযোগ জানিয়েছে বিজেপিই। কারণ তাদের মতে রাজ্য প্রশাসনের ‘চাপে’ কাজ করে সরকারি কর্মীরা ৷ সেক্ষেত্রে সর্ষের মধ্যে ভূত ও ভুতুড়ে ভোটার থেকে যাওয়ার সমূহ সম্ভাবনা বলে মনে করছে রাজ্যের গেরুয়া শিবির ৷

  • Share this:

#কলকাতা: বঙ্গে শীতের মুখে ভোটের হাওয়া গরম। একুশের ভোটের জন্য তৈরি হচ্ছে নির্বাচন কমিশন। সব রাজনৈতিক দল যে যার মত করে কোমর বাঁধছে। তার মধ্যেই সোমবার রাজ্যের ভোটার তালিকা সংশোধন নিয়ে মুখ্য নির্বাচনী আধিকারিকের সঙ্গে সর্বদল বৈঠক হয়।

ত্রুটিমুক্ত ভোটার তালিকা তৈরি ও কেউ যেন ভোটদান থেকে বঞ্চিত না হন, তা নিশ্চিত করতে মুখ্য নির্বাচনী আধিকারিকের কাছে দাবি জানিয়েছে সব রাজনৈতিক দল। এদিনের সর্বদলীয় বৈঠকে সুর চড়িয়েছে বিজেপি। ভোটার তালিকা সংশোধন প্রক্রিয়া প্রসঙ্গে বিজেপির অভিযোগ, রাজ্য নির্বাচন কমিশনের নির্দিষ্ট পরিকাঠামো নেই। তাই রাজ্য সরকারি কর্মীদের দিয়েই সংশোধনের কাজ হবে। এক্ষেত্রেও দুর্নীতির সম্ভাবনার অভিযোগ জানিয়েছে বিজেপিই। কারণ তাদের মতে রাজ্য প্রশাসনের ‘চাপে’ কাজ করে সরকারি কর্মীরা ৷ সেক্ষেত্রে সর্ষের মধ্যে ভূত ও ভুতুড়ে ভোটার থেকে যাওয়ার সমূহ সম্ভাবনা বলে মনে করছে রাজ্যের গেরুয়া শিবির ৷

কমিশনের সর্বদল বৈঠকে বিজেপির তরফে জয়প্রকাশ মজুমদারের অভিযোগ, ‘নির্বাচন কমিশনের নিজেদের পরিকাঠামো নেই। ভোটার তালিকা সংশোধনের যাবতীয় কাজ করার জন্য রাজ্য প্রশাসনের ওপরই নির্ভর করতে হয়। আপনারা জানেন এখন রাজ্য প্রশাসনের কর্মীদের শাসকদলের চাপে কিভাবে কাজ করতে হচ্ছে। আমরা জানিয়েছি এখন সর্ষের মধ্যেই ভূত লুকিয়ে রয়েছে। নির্বাচন কমিশনকে সেটা জানিয়েছি। আমরা এটাও বলেছি বুথ লেভেল অফিসাররা বুথে থাকেন না। বাড়ি থেকেই অনেক সময় কাজ হয়ে যায়। এটার জন্য নজরদারি দরকার।’

এদিন নির্বাচন কমিশনের তরফে প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে রাজ্যে ভোটার তালিকার বিশেষ সংশোধনের কাজ চলবে ১৮ নভেম্বর থেকে ১৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত। এই সময়ে চলবেন নাম তোলা ও বাদ দেওয়ার আবেদন গ্রহণ,শুনানি। তবে ১৮ই নভেম্বর খসড়া তালিকা প্রকাশের আগে আপাতত বুথ পুনর্গঠন,বুথের পরিকাঠামো,ভোটার তালিকাতে একই পরিবারের সকল সদস্য যাতে একই পার্ট নম্বরের মধ্যে থাকে সেই সংক্রান্ত কাজ চলছে। একই ভোটারের একাধিক নাম একাধিক স্থানে একই ভোটারের নাম ইত্যাদি সংশোধন করে যতটা সম্ভব নির্ভুল খসড়া তালিকা প্রকাশ করতে হবে নির্বাচন কমিশনকে। অফলাইন ছাড়াও অনলাইনেও ধারাবাহিকভাবে সংশোধনের কাজ চলছে। তবে বর্তমান করোনা পরিস্থিতিতে রাজ্যে এবার বুথের সংখ্যা কার্যত বাড়তে চলেছে বলেই নির্বাচন কমিশন সূত্রে খবর।

Somraj Bandopadhyay

Published by:Elina Datta
First published: