সামনেই ভোট, লকডাউনের অন্ধকার কাটিয়ে ধীরে ধীরে আলোয় ফিরছে ডেকরেটর্স শিল্প

সামনেই ভোট, লকডাউনের অন্ধকার কাটিয়ে ধীরে ধীরে আলোয় ফিরছে ডেকরেটর্স শিল্প
লাল, নীল, সবুজ, গেরুয়া সব দলই আবার নেমেছে রাস্তায়। তারই হাত ধরে ধীরে ধীরে বাড়ছে সভা সমাবেশের সংখ্যা। আর তার সঙ্গেই বাড়ছে ডেকরেটরদের চাহিদাও।

লাল, নীল, সবুজ, গেরুয়া সব দলই আবার নেমেছে রাস্তায়। তারই হাত ধরে ধীরে ধীরে বাড়ছে সভা সমাবেশের সংখ্যা। আর তার সঙ্গেই বাড়ছে ডেকরেটরদের চাহিদাও।

  • Share this:

SHALINI DATTA

#কলকাতা: কোভিড পরবর্তী লকডাউনে আঁধার ঘিরে ছিল ডেকরেটর্স শিল্পে। রাজনৈতিক সভা-সমাবেশ তো বটেই, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানও একেবারে বন্ধ হয়ে গিয়েছিল। তারই জেরে ঝিমিয়ে পড়েছিল ডেকরেটর্স শিল্প। কিন্তু বাংলায় ফের ভোটের আঁচ বাড়তেই আবার চাঙ্গা হচ্ছে ডেকরেটর্স শিল্প। লাল, নীল, সবুজ, গেরুয়া সব দলই আবার নেমেছে রাস্তায়। তারই হাত ধরে ধীরে ধীরে বাড়ছে সভা সমাবেশের সংখ্যা। আর তার সঙ্গেই বাড়ছে ডেকরেটরদের চাহিদাও। এখন আবার আগের মতোই নাওয়া-খাওয়ার সময় পাচ্ছেন না ডেকরেটর্সরা ।


আয়ের পথ বন্ধ হয়ে যাওয়ায় শিল্পের সঙ্গে যুক্ত শ্রমিকেরাও ক্রমশ ঝুঁকছিলেন অন্য আয়ের পথে। প্রায় ২০ শতাংশ শ্রমিকই তাঁদের পেশা বদলে ফেলেছিলেন । তবে এথন সামনেই ভোট পুজো । এর সঙ্গে ধীরে ধীরে বাড়ছে বিয়ে বাড়ির সংখ্যাও। তার ফলে আরও বেশি করে বাড়ছে ডেকরেটরদের চাহিদা।

ডেকরেটরের ব্যবসার সঙ্গে যুক্ত রাজা বণিক বলেন, "লকডাউনে পরিস্থিতি খুবই খারাপ হয়ে পড়েছিল। এখন আস্তে আস্তে রাজনৈতিক সভা বাড়ছে। বাড়ছে বিয়ে বাড়ির সংখ্যাও। কাজেই আবার আমরা চেনা ছন্দে ফিরছি।"আর এক ব্যবসায়ী স্বর্ণদীপ নাগ বলেন, "আস্তে আস্তে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হচ্ছে। কয়েক দিন বাদে পরিস্থিতি আরও স্বাভাবিক হবে বলে আমরা আশা করছি। তাতে আমাদের ব্যবসাও আবার পুরনো অবস্থায় ফিরবে বলে মনে হচ্ছে।"  আবার আলোয় ফিরছে ডেকরেটর্স শিল্প।

Published by:Simli Raha
First published: