Home /News /kolkata /
Varispladib Tablet: সাপে কামড়ানো রোগীকে বাঁচাবে ট্যাবলেট! গোটা পূর্ব ভারতকে পথ দেখাচ্ছে কলকাতার হাসপাতাল

Varispladib Tablet: সাপে কামড়ানো রোগীকে বাঁচাবে ট্যাবলেট! গোটা পূর্ব ভারতকে পথ দেখাচ্ছে কলকাতার হাসপাতাল

Varispladib Tablet: সাপে কামড়ানো রোগীর জীবন বাঁচাবে এই ওরাল ট্যাবলেট! কলকাতা আবার চিকিত্সায় নতুন দিশা দেখাচ্ছে।

  • Share this:

#ওঙ্কার সরকার, কলকাতা: সাপের কামড়ে এবার নয়া ওষুধ। ওরাল ট্যাবলেটের মাধ্যমে এবার চিকিৎসা শুরু হতে চলেছে আমাদের রাজ্যেই।

পূর্ব ভারতে প্রথমবার ন্যাশনাল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পরীক্ষামূলকভাবে প্রয়োগ করা হল এই ট্যাবলেটের। মঙ্গলবার মধ্যরাতে ২১ বছর বয়সী দক্ষিণ ২৪ পরগনার এক যুবককে সাপে কামড়ায়। এর পর পরিবার তড়িঘড়ি নিয়ে আসে পার্ক সার্কাসের ন্যাশনাল মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে।

রোগীকে আনার পরই তাঁর দেহের সমস্ত প্যারামিটার দেখে চিকিৎসকরা *varespladib মিথাইল* দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন। পরীক্ষামূলকভাবে পূর্ব ভারতে এই প্রথমবার প্রয়োগ করা হল এই ট্যাবলেট। চিকিৎসকরা জানাচ্ছেন সঙ্গে অ্যান্টি ভেনামও দেওয়া হয়েছে ওই রোগীকে।

আরও পড়ুন- অশনি আতঙ্কে ইতি টানল হাওয়া অফিস, সমুদ্রেই বিলীন হবে শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড়

প্রসঙ্গত, বাংলার ক্ষেত-খামারে কাজ করা কৃষকদের কাছে বড় আতঙ্কের নাম সাপ। চাষের কাজের সময় সামান্য অসতর্ক হলেই সাপের বিষে প্রাণ হারাতে হয় বহু কৃষককেই। বিশেষত দক্ষিণ ২৪ পরগনা, বাঁকুড়া, পুরুলিয়ায় জেলায় সাপের কামড়ে মৃত্যু হয় বহু মানুষের।

আমাদের দেশের এক সমীক্ষা বলছে, ২০০০ সাল থেকে ২০১৯ সাল পর্যন্ত সাপের কামড়ে মৃত্যু হয়েছে প্রায় ১২ লাখ মানুষের। অর্থাৎ দেশে বছরে কমবেশি ৫৮ হাজার মানুষের মৃত্যু হয় সাপের বিষে।

সাপের কামড়ে মৃত্যু হার এত বেশি হওয়ার কারণ, সঠিক সময় চিকিৎসা শুরু না হওয়া। এবার সেই মারণ বিষের কথা মাথায় রেখেই তৈরি হয়েছে বিশেষ ওরাল এই ট্যাবলেট।

চিকিৎসকদের ভাষায় এই ট্যাবলেটের নাম varispladib। আর সেই ট্যাবলেটের প্রয়োগ মঙ্গলবার পূর্ব ভারতে প্রথমবার করলেন ন্যাশনাল মেডিকেল কলেজের মেডিসিন বিভাগের প্রধান পার্থ প্রতিম মুখোপাধ্যায় এবং তাঁর চিকিৎসক দল।

চিকিৎসক মুখোপাধ্যায় জানিয়েছেন, বর্তমানে আমাদের রাজ্যে অ্যান্টি স্নেক ভেনাম তৈরি হয় না। ফলে এই অ্যান্টি স্নেক ভেনাম আনতে হয় দক্ষিণের রাজ্যগুলো থেকে। আর এতেই সমস্যা বাড়ে। দক্ষিণের সাপের প্রোটিন আর আমাদের রাজ্যের সাপের প্রোটিনের মধ্যে বিস্তর ফারাক আছে। তাই ব্যয় সাপেক্ষ এই অ্যান্টি স্নেক ভেনাম অনেক মাত্রায় দিলেও তা অনেক সময় কাজ করে না।

এই ট্যাবলেট দিয়ে যদি অ্যান্টি স্নেক ভেনাম দেওয়া যায় তা হলে মৃত্যু আটকানো অনেক ক্ষেত্রেই সম্ভব হবে। এই বিষয়ে ভ্যাকসিন ফিসিলেটর স্নেহেন্দু কোনার জানান, আমাদের রাজ্যের আগে চণ্ডীগড় এবং কেরালায় মোট ১০ জনকে এই ট্যাবলেট দেওয়া হয়েছে এবং সেই রোগীরা  চিকিৎসায় ভালো সাড়া দিয়েছেন।

আরও পড়ুন- আগামী দু'দিন দক্ষিণবঙ্গের ৫ জেলায় জোরদার বৃষ্টিপাত! কলকাতা আবহাওয়ার বিরাট Update

মঙ্গলবার পূর্ব ভারতে এই প্রথম ট্যাবলেট দেওয়া হয়েছে। আশা করা যায় ভাল ফল পাওয়া যাবে। তিনি আরও জানান, দেশে মোট ১১২ জনের উপর এবং আমাদের রাজ্যে ন্যাশনাল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ২৫ জনের উপর পরীক্ষামূলক প্রয়োগ করা হবে এই ট্যাবলেট।

Published by:Suman Majumder
First published:

Tags: Snake Bite, Snake venom

পরবর্তী খবর