অনলাইনে পঞ্চায়েতের মনোনয়ন নিয়ে মামলাতেও অস্বস্তিতে নির্বাচন কমিশন

অনলাইনে পঞ্চায়েতের মনোনয়ন নিয়ে মামলাতেও অস্বস্তিতে নির্বাচন কমিশন

file photo

অনলাইনে পঞ্চায়েতের মনোনয়ন নিয়ে মামলাতেও অস্বস্তিতে নির্বাচন কমিশন

  • Share this:

     #কলকাতা: ফের আদালতে হোঁচট নির্বাচন কমিশনের ৷ মঙ্গলবারে মামলায় সিঙ্গল বেঞ্চের নির্দেশে ১৪ মে পঞ্চায়েত নির্বাচন হওয়া নিয়ে তৈরি হয়েছে জটিলতা ৷ ফের নির্বাচন প্রক্রিয়া বাধাপ্রাপ্ত হওয়ায় অস্বস্তিতে কমিশন ৷ গতকালের পর এদিনও আবার কলকাতা হাইকোর্টে আপাত গুরুত্বহীন মামলাতেও অস্বস্তির মুখে নির্বাচন কমিশন ৷

    অনলাইনে মনোনয়ন নিয়ে আপত্তি জানায় নির্বাচন কমিশন ৷ সেই নিয়েই আদালতের দ্বারস্থ সিপিআইএম ৷ বুধবার শুনানির সময় সব শুনে কমিশনের আইনজীবীর মন্তব্যে ক্ষুব্ধ হন বিচারপতি বিশ্বনাথ সমাদ্দার ৷ আইনজীবীর কাছে বিচারপতি পাল্টা জানতে চান, ‘নির্দেশ দেওয়ার আগেই আপত্তি কীসের? শুধু বিবেচনা করার কথা বলতেই আপত্তি?’

    অনলাইনে মনোনয়নের আবেদন নিয়ে সিপিআইএমের আইনজীবী দাবি করেন, যারা ইমেলে জমা দিয়েছেন মনোনয়ন ৷ রাজ্য নির্বাচন কমিশনকে তাদের মনোনয়ন গ্রহণ করতে হবে ৷ ডিভিশন বেঞ্চে সোমবার ফের এই মামলার শুনানি রয়েছে ৷

    আরও পড়ুন 

    ১৪ মে পঞ্চায়েত ভোট নিয়ে অনিশ্চয়তা, এবার নির্বাচনের দিন চূড়ান্ত করবে কলকাতা হাইকোর্ট

    প্রসঙ্গত, ভাঙড়ের জমিরক্ষা কমিটির ইচ্ছুক ৯ জন এর আগে আদালতের নির্দেশে মনোনয়ন জমা দিতে যান ৷ অভিযোগ, ৯ জনের মনোনয়নের নথি ছিঁড়ে ফেলা হয় ৷ পরে তারা হোয়াটসঅ্যাপে বিডিওকে নথি পাঠান তাঁরা ৷ স্ক্রুটিনিতে সেই মনোনয়ন যেন বাতিল না হয়, সেই আর্জি নিয়ে হাইকোর্টে দ্বারস্থ হন ভাঙড়ের পোলেরহাটে ৯ জন ইচ্ছুক প্রার্থী ৷ ভাঙড়ের পোলেরহাটে ৯ জনের অনলাইনে জমা দেওয়া মনোনয়নে ২৪ এপ্রিলই সায় দেন বিচারপতি সুব্রত তালুকদার ৷

    আরও পড়ুন 

    পঞ্চায়েত ভোটে নিরাপত্তা নিয়ে নয়া তথ্য, ১৯ শতাংশ বুথে লাগবে না কোনও বাহিনী !

    অন্যদিকে, মঙ্গলবার কলকাতা হাইকোর্টের সিঙ্গল বেঞ্চের পর্যবেক্ষণে ১৪ মে ভোট হওয়া নিয়ে ফের তৈরি হল অনিশ্চয়তা। ভোটের দিন নিয়ে এবার সিদ্ধান্ত নেবে কলকাতা হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চ। ভোটের তারিখ নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত জানা যাবে ৪ মে ।

    ভোট প্রস্তুতি হোক বা ভোটের দিন ঘোষণার বিজ্ঞপ্তি - সবক্ষেত্রেই স্পষ্ট কমিশনের সিদ্ধান্তহীনতা । প্রতি পদে কমিশনের ভুল ধরাচ্ছে আদালত।

    First published: