Home /News /kolkata /
লড়াই শেষ, ভাড়াটিয়া-মালিক ঝগড়ার জেরে দগ্ধ শিশুর মৃত্যু

লড়াই শেষ, ভাড়াটিয়া-মালিক ঝগড়ার জেরে দগ্ধ শিশুর মৃত্যু

News 18 Bangla Creative

News 18 Bangla Creative

ভাড়াটিয়া-মালিক ঝগড়ায় ফুটন্ত ভাতের হাঁড়িতে পড়ে ঝলসে যাওয়া খুদে মেয়েটির মৃত্যু হয় এদিন

  • Last Updated :
  • Share this:

     #কলকাতা: ৯ দিন পর লড়াই শেষ ২ বছর ১০ মাসের শিশুকন্যার ৷ ভাড়াটিয়া-মালিক ঝগড়ায় ফুটন্ত ভাতের হাঁড়িতে পড়ে ঝলসে যাওয়া খুদে মেয়েটির মৃত্যু হয় শনিবার ৷ চিকিৎসকদের শত প্রচেষ্টা সত্ত্বেও বাঁচানো সম্ভব হল না দ্বীপান্বিতা ভুঁইয়াকে ৷ খুনের অভিযোগ দায়ের করেছে দীপান্বিতা ভুঁইয়ার পরিবার। অভিযুক্ত ভাড়াটে জামিন পেয়ে যাওয়ায় পুলিশের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলছেন দীপান্বিতার বাবা।

    ভাড়াটিয়া-বাড়ির মালিকের ঝগড়ার বলি আড়াই মাসের শিশু । অশান্তির জেরে বাড়ির মালিকের শিশুকে ধাক্কা মেরে ফেলে দেওয়ার অভিযোগ ওঠে ভাড়াটিয়া ও তাঁর আত্মীয়ের বিরুদ্ধে । ফুটন্ত ভাতের হাঁড়িতে পড়ে ঝলসে যায় দু বছর দশ মাসের শিশু। মঙ্গলবার উল্টোডাঙা থানার দাসপাড়ায় ঘটে এমনই নির্মম ঘটনা ৷ আহত শিশুকে এনআরএসে নিয়ে যাওয়া হলে চিকিৎসকরা জানিয়েছিলেন, শিশুটির শরীরের ৭৫ শতাংশই পুড়ে গিয়েছে ৷ গত পাঁচদিন ধরে আশঙ্কাজনক অবস্থায় লড়াই চালানোর পর এদিন ভোরে মৃত্যু হয় শিশুটির ৷

    এ কদিন এসএসকেএমে হত্যে দিয়ে পড়েছিলেন বাবা-মা, দাদু দিদিমা। দু বছরের ছোট্ট শিশুকে বাঁচাতে লড়াই করছিলেন চিকিৎসকরা। কিন্তু শেষরক্ষা হল না। মায়ের কোল খালি করে চলে গেল দীপান্বিতা।  শিশুর মৃত্যুর বিচার চায় পরিবার।

    ভাড়াটিয়ার বিরুদ্ধে খুনের অভিযোগ দায়ের করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে পরিবার ৷ অভিযোগের ভিত্তিতে যদিও আগেই দুই অভিযুক্তকে গ্রেফতার করে পুলিশ ৷ তবে গ্রেফতারির পরেই জামিনে মুক্তি পায় অভিযুক্তরা ৷ পুলিশের ভূমিকায় ক্ষুব্ধ পরিবার ৷

    আরও পড়ুন

    বাসি ভাত খেলেই নিমেষে দূর হবে এইসব অসুখ

    বি ১ / এইচ / ৬ , গোরাপদ সরকার লেন । উল্টোডাঙার দাসপাড়ায় ডালপট্টিতে পুরোন দোতলা বাড়ি । দশ বছর আগে বাড়িটি কেনেন সুষেন ভুঁইয়া। তারপর থেকেই বাড়িভাড়া নিয়ে তাঁর সঙ্গে বিবাদ চলছে ভাড়াটিয়া রাজকুমারী সাউয়ের পরিবারের। গত মঙ্গলবার চরমে ওঠে বিবাদ। বাড়ি মালিকের অভিযোগ, তাঁদের দু বছর দশ মাসের মেয়েকে গরম ভাতের হাঁড়িতে ফেলে পুড়িয়ে মারার চেষ্টা করেন রাজকুমারী ও তাঁর আত্মীয় সোনু গুপ্তা। তাঁর দাবি, ঘরের সামনে উঠোনে খেলছিল আড়াই বছরের দীপান্বিতা। খেলতে খেলতে রাজকুমারীদের ঘরের সামনে চলে যায় সে। সেখানে গ্যাস ওভেনে ভাত রান্না হচ্ছিল। শিশুকে ধাক্কা মেরে ফেলে দেওয়া হয়। ধাক্কার জেরে উল্টে যায় ফুটন্ত ভাতের হাঁড়ি। তাতে পড়ে ঝলসে যায় দীপান্বিতা।

    উল্টোডাঙা থানায় অভিযোগ দায়ের করে ভুঁইয়া পরিবার। অভিযুক্ত রাজেশ ও সোনু গুপ্ত গ্রেফতারির পরে জামিনও পেয়ে যান। পুলিশের ভূমিকা ক্ষুব্ধ দীপান্বিতার বাবা-মা।

    শরীরের পঁচাত্তর শতাংশ পুড়ে যাওয়ায় নদিন দিন যন্ত্রণায় ছটফট করেছে ছোট্ট দীপান্বিতা। মেয়ের বাড়ি ফেরার অপেক্ষা ছিলেন বাবা-মা, জেঠু-জেঠিমা। আর ফেরানো হল না। ভাঙা মন নিয়েই বিচার চেয়ে উল্টোডাঙা থানায় খুনের অভিযোগ দায়ের করেন বাবা। বিচারের অপেক্ষায় পরিবার।

    First published:

    Tags: Land Lord and Tenant Clash, Ultadanga, Ultadanga Burned Kid died, Ultadanga Kid