corona virus btn
corona virus btn
Loading

রাম-রক্ষায় জন্য প্রাণ দিয়েছেন দুই দাদা, কলকাতা থেকে অযোধ্যা যাচ্ছেন পূর্ণিমাদেবী

রাম-রক্ষায় জন্য প্রাণ দিয়েছেন দুই দাদা, কলকাতা থেকে অযোধ্যা যাচ্ছেন পূর্ণিমাদেবী
ভাইদের ছবির সামনে পূর্ণিমাদেবী।

সে সময়ে কলকাতায় আরএসএস-এর তিনটি শাখা সংগঠন ছিল। তিনটিতেই অবাধ যাতায়াত ছিল কোঠারি ভাইদের। সেইখান থেকেই মাটি যাচ্ছে অযোধ্যায়।

  • Share this:

#কলকাতা: ডাক পাঠিয়েছে অযোধ্যা। অনন্ত অপেক্ষার পর আজ বুকের মাঝে শব্দেরা জমাট বেঁধে আছে। রামমন্দিরের মাটিতে দাঁড়িয়েই সেই শব্দদের মুক্তি দেবেন পূর্ণিমা কোঠারি। রামমন্দির আন্দোলনে নিহত বাংলার দুই করসেবক শরৎ ও রাম কোঠারির বোনের আজ খুব তাড়া। আমন্ত্রণ এসেছে অযোধ্যা থেকে।

১৯৯০ সাল। উত্তরপ্রদেশে তখন মুলায়ম সিংহের সরকার মসনদে। বারাণসী হয়ে অযোধ্যা যান বজরং দলের সক্রিয় কর্মী রাম ও শরদ কোঠারি। ৩০ অক্টোবর উত্তরপ্রদেশ পৌঁছতেই অযোধ্যা থেকে ২০০ কিলোমিটার দূরে তাঁদের বাধা দেওয়া হয়। ২ নভেম্বর ফের রওনা দেন তাঁরা। অভিযোগ সেই সময়েই পুলিশের গুলিতে মৃত্যু হয় রাম ও শরদ কোঠারির। কোঠারি ভাইদের শহিদের আখ্যা দেয় বিজেপি।

পূর্ণিমা কোঠারি বলেন, "৩০ বছর অপেক্ষা করেছি। আমাদের সময় সেদিনেই থেমে গিয়েছে। এই প্রথম খুশি হয়েছি।"

কোঠারি পরিবার প্রতিবছর রামজন্মভূমিতে গিয়েছে তার পর থেকে। কিন্তু সময়ের নিয়মেই বার্ধক্য়জনিত কারণে মৃত্যু হয়েছে পূর্ণিমাদেবীর বাবা-মায়ের। সে কথা বলতে গিয়েই চোখে জল পূর্ণিমাদেবী।

সে সময়ে কলকাতায় আরএসএস-এর তিনটি শাখা সংগঠন ছিল। তিনটিতেই অবাধ যাতায়াত ছিল কোঠারি ভাইদের। সেইখান থেকেই মাটি যাচ্ছে অযোধ্যায়। বন্দোবস্ত পাকা করেই রওনা হচ্ছেন পূর্ণিমাদেবী। এতদিন চোখের জল ফেলেছেন, কিন্তু এবারের অযোধ্যা তাঁর কাছে আলাদা। এবার প্রাণ ভরে শ্বাস নেবেন তিনি।

এদিকে রাত পেরোলেই প্ৰধানমন্ত্রী আসছেন অযোধ্যায়, তাঁর জন্য আঁটোসাঁটো নিরাপত্তার ব্যবস্থা চাই। মাথায় রাখতে হচ্ছে কোভিড সংক্রমণের কথাও। তাই মঙ্গলবারও গ্রাউন্ড রিপোর্ট সংগ্রহে নেমেছিলেন যোগী আদিত্যানাথ। বুধবার সারাদিন জোরকদমে চলছে শেষমুহূর্তের প্রস্তুতি। এদিকে অতিথিরা আমন্ত্রণপত্রও পেয়ে গিয়েছেন, সব মিলিয়ে অযোধ্যায় এখন সাজোসাজো রব। আমন্ত্রণ পেয়েছেন  রাম জন্মভূমি-বাবরি মসজিদ মামলার অন্যতম মামলাকারী ইকবাল আনসারী। তবে পূর্ণিমাদেবীর কাছে বার্তাটি সম্পূর্ণ অন্যরকম। আজও যে হৃদয়ে রক্তক্ষরণ। পূর্ণিমাদেবীর আমন্ত্রণপত্রটি চোখের জলে ভেজা...

Published by: Arka Deb
First published: August 4, 2020, 4:23 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर