দক্ষিণদাড়িতে উদ্ধার ২ জনের দেহ, খুন না দুর্ঘটনা, তদন্তে পুলিশ

দক্ষিণদাড়িতে উদ্ধার ২ জনের দেহ, খুন না দুর্ঘটনা, তদন্তে পুলিশ

জিআরপি ঘটনাস্থলে এসে দু’জনের দেহ ময়নাতদন্তে পাঠায়। ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার হয়েছে স্বপনের ফোন কিন্তু এখনও পাওয়া যায়নি সাজানের ফোন।

  • Share this:

Susovan Bhattacharjee

#কলকাতা: বছরের শুরুতেই চাঞ্চল্য দক্ষিণদাড়ির চব্বিশ নম্বর রেল গেটে। বর্ষশেষের রাতে দুই যুবকের দেহ উদ্ধার ঘিরে রহস্য। লেকটাউনের দক্ষিণদাঁড়িতে রেললাইনের ধারে মেলে জোড়া দেহ। একজনের পা ভাঙা ছিল। অন্যজনের গলায় দাগ। মৃতদের তিন বন্ধু উধাও। খুনের অভিযোগ পরিবারের। খুন না দুর্ঘটনা, তদন্তে পুলিশ।

সকালে পাড়ায় সাজানের খোঁজ শুরু করে তার মা। নিজের বাড়িতে না দেখে  এদিক ওদিক খোঁজের পর ঢিল ছোঁড়া দুরত্বের রেল লাইনের ধারে যায় সাজনের মা। দেখেন ছেলে পড়ে আছে, তার পাশেই আছে সাজানের বন্ধু স্বপন। পরে উল্টোডাঙ্গা থানায় খবর গেলে দমদম জিআরপিকে জানানো হয়। জিআরপি ঘটনাস্থলে এসে দু’জনের দেহ ময়নাতদন্তে পাঠায়। ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার হয়েছে স্বপনের ফোন কিন্তু এখনও পাওয়া যায়নি সাজানের ফোন।

২৩ বছরের সাজান ও উনিশ বছরের স্বপন দুজনেই পেশায় চালক। লেকটাউনের একটি জায়গায় সদ্য ছয় মাসের চাকরি। নিজ গাড়ি না থাকায় অন্যের গাড়ি নিয়ে চালাচ্ছিল দুজনেই। বছরের শেষ দিন বাড়ির কাছেই নববর্ষের পার্টি করে সাজান ও স্বপন।  প্রায় ৩০ জনকে নিয়ে শুরু হয় তাদের পার্টি।

রাতের দিকে একটি ফোন আসে সাজানের মোবাইলে। সাজানের বন্ধু আকাশ জানান, তার কাছে ফোন করে তার পরিচিত তিন বন্ধু।  তার কাছে আসার কথা বললে সে রাজি হয়ে যায়। কিছু সময়ের মধ্যেই তারা চলে আসে। তাদের পার্টিতে অংশ নিলেও বলা হয় রেল লাইনের ধারে যেতে। পাঁচ জন তারা রেল লাইনের দিকে চলে যায়। এলাকার বাসিন্দা শানু প্রসাদ জানান সাজানের হাত, পায়ে ও মুখে রক্ত দেখা যায়। স্বপনের গলায় একাধিক দাগ দেখা যায়। গত ২৫ ডিসেম্বর তিনজন বন্ধু বচসা হয়। দমদম জিআরপি পুরো বিষয়টি তদন্ত করছে, কি কারণে মৃত্যু তা জানার চেষ্টা চলছে। যদিও সেই তিনজনের খোঁজ পাওয়া যাচ্ছে না।

First published: 05:05:58 PM Jan 01, 2020
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर