দখলের লড়াইয়ে স্বীকৃতি পেতে চলেছে ‘পশ্চিমবঙ্গের চাল’

দখলের লড়াইয়ে স্বীকৃতি পেতে চলেছে ‘পশ্চিমবঙ্গের চাল’
Rice

দখলের লড়াইয়ে জিতল রাজ্য, স্বীকৃতি পেল ‘পশ্চিমবঙ্গের চাল’

  • Share this:

 #কলকাতা: ঘরের চাল ঘরেই থাকবে। রাজ্যে উৎপাদিত সুগন্ধী চাল তুলাইপাঞ্জি ও গোবিন্দভোগে অবশেষে পড়ল জিওগ্রাফিক্যাল ইন্ডিকেশনের সিলমোহর। এবার থেকে বিশ্বের যে কোনও প্রান্তে এই দু'প্রকার চাল পশ্চিমবঙ্গের চাল হিসেবে পরিচিত হবে। অন্য কোনও রাজ্য বা দেশ তাদের উৎপাদিত বলে দাবি করতে পারবে না।

চাল থেকে রসগোল্লা। পান থেকে পানিফল। এদের ওপর কার ক‍র্তৃত্ব থাকবে তা নিয়ে চলছে দখলের বিশ্বযুদ্ধ। ওয়ার্ল্ড ট্রেড অর্গানাইজেশন এই যুদ্ধের নির্ণায়ক। এই রাজ্যে উৎপাদিত সুগন্ধী তুলাইপাঞ্জি ও গোবিন্দভোগ চালের GI রেজিস্ট্রেশনের জন্য রাজ্য সরকার ২০১৫ সালের অগাস্টে আবেদন করে। বার্ষিক কয়েক কোটি টাকার রফতানি সংক্রান্ত তথ্য তুলে দেওয়া হয়। দু বছরের বেশি সময় ধরে পরীক্ষা-নিরীক্ষা চালিয়ে তুলাইপাঞ্জি ও গোবিন্দভোগ চালে রাজ্যকে GI সার্টিফিকেট দিতে চলেছে WTO ৷ রাজ্যের মুকুটে উঠছে নতুন পালক।

তুলাইপাঞ্জি চাল দুই দিনাজপুরে বেশি উৎপাদন হয়।বর্ধমানের রায়না গোবিন্দভোগ চালের জন্য বিখ্যাত। দু প্রকার চালেরই বাজার চাহিদা তুঙ্গে।

এতে কী সুবিধা রাজ্যের ?

-- তুলাইপাঞ্জি ও গোবিন্দভোগের বাজার মূল্য আরও বাড়বে

-- দু' প্রকার চাল ব্র্যান্ডিং করা যাবে

-- ব্যবসা কয়েক গুণ বেড়ে যাবে

দু সপ্তাহের মধ্যে রাজ্য সরকার এই সংক্রান্ত শংসাপত্র পাবে। রসগোল্লার কর্তৃত্ব নিয়েও ওড়িশার সঙ্গে এ রাজ্যের ধুন্ধুমার লড়াই চলছে। তবে তুলাইপাঞ্জি ও গোবিন্দভোগের জন্য তেমন প্রতিযোগিতার মুখে রাজ্যকে পড়তে হয়নি। ব্যবসার কথা ভেবেই GI সার্টিফিকেটের জন্য আবেদন করে রাজ্য।

First published: 03:24:33 PM Oct 27, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर