'নিজের রাজ্যে নির্যাতিতার বাবাকে খুন করছে অপরাধী, আর বাংলায় ভোট প্রচারে যোগী?'

নুসরত জাহান

নুসরত কয়েকদিন আগেই উত্তরপ্রদেশের হাথরসে ঘটা এক মেয়ের বাবাকে যৌন হেনস্থাকারীর গুলি করে খুন করার প্রসঙ্গ টেনে এনেছেন ট্যুইটে। তিনি প্রশ্ন করেছেন, কেন নিজের রাজ্যে মহিলাদের সুরক্ষা দিতে অপারগ যোগীর বিজেপি সরকার?

  • Share this:

    #কলকাতা: উত্তরপ্রদেশে অনবরত বাড়তে থাকা মহিলাদের প্রতি হিংসা ও নির্যাতনের ঘটনায় কী ভাবে বাংলায় এসে ভোট প্রচার করছেন যোগী আদিত্যনাথ? এমনই কড়া ভাষা প্রয়োগ করে উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী আদিত্যনাথকে আক্রমণ করলেন তৃণমূল কংগ্রেস সাংসদ নুসরত জাহান। দিন দিন উত্তরপ্রদেশে নারী নির্যাতন বাড়ছে, সেখানে এ রাজ্যে এসে ভোট প্রচার করলেন যোগী? ট্যুইট করে ঝাঁঝালো বক্তব্য রেখেছেন নুসরত।

    নুসরত কয়েকদিন আগেই উত্তরপ্রদেশের হাথরসে ঘটা এক মেয়ের বাবাকে যৌন হেনস্থাকারীর গুলি করে খুন করার প্রসঙ্গ টেনে এনেছেন ট্যুইটে। তিনি প্রশ্ন করেছেন, কেন নিজের রাজ্যে মহিলাদের সুরক্ষা দিতে অপারগ যোগীর বিজেপি সরকার? সেখানে এই পরিস্থিতিতে বাংলায় এসে ভোট প্রচার করছেন তিনি? প্রশ্ন তৃণমূল সাংসদের। তিনি ট্যুইটে লিখেছেন, 'শকিং! বিজেপি শাসিত উত্তরপ্রদেশ কী করছে তা বর্ণনা করতে পারছি না! কেন যোগী আদিত্যনাথ ওই পরিবারের সুরক্ষাকে গুরুত্ব দিলেন না? বিজেপির কাছে কি বাংলার ভোট এর চেয়েও বেশি গুরুত্বপূর্ণ?'

    মঙ্গলবারই মালদহে বিজেপির ভোট প্রচারে এসেছিলেন উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ। রাজ্যে গরুপাচারকাণ্ডকে হাতিয়ার করে শাসক শিবিরকে আক্রমণ করেন তিনি। দাবি করেন, বিজেপি এলে এই অরাজকতা থেকে মুক্তি মিলবে। সঙ্গে টেনে আনের বাংলায় 'লভ জিহাদ' প্রসঙ্গও। তাঁর দাবি, 'হিংসার ভূমি হয়ে উঠেছে বাংলা। বিজেপি কর্মীরা আক্রান্ত হচ্ছেন। বাংলায় লাভ জিহাদের ঘটনা ঘটছে। উত্তরপ্রদেশে আইন হয়েছে, বাংলায় শুধু তোষণ-রাজনীতি হয়ে চলেছে।' এরই সঙ্গে তিনি যোগ করেন, 'এখন বাংলায় অপরাধ, অরাজকতা বেড়েছে। এখানে কেন্দ্রের প্রকল্প চালু হয় না। বাংলায় দুর্গাপুজো করতে দেওয়া হয় না। দুর্গাপুজো করতে এখানে সমস্যায় পড়তে হয়।'

    এর পরই যোগী আদিত্যনাথের বিরুদ্ধে মুখ খোলে তৃণমূল কংগ্রেস। নুসরত জাহানের পাশাপাশি আসরে নামেন মেয়র ফিরহাদ হাকিম ও সাংসদ কাকলি ঘোষ দস্তিদার। দু'জনেই হাথরসের ভিডিও ট্যুইট করে 'বিজেপি হটাও, বেটি বাঁচাও' হ্যাশট্যাগে তীব্র নিন্দা করেন উত্তরপ্রদেশের বিজেপি সরকারের। গত বছরের সেপ্টেম্বরে হাথরসে ২০ বছরের এক দলিত মেয়েকে গণধর্ষণের অভিযোগ ওঠে উচ্চবর্ণের কয়েকজন দুষ্কৃতীর বিরুদ্ধে। এর পর দিল্লির এইমসে মেয়েটির মৃত্যু হয়। গোটা দেশ এই ঘটনায় উত্তাল হয়েছিল। এর পরেও গত মাসে মাহোবা জেলায় ফের ১৬ বছরের এক দলিত মেয়েকে ধর্ষণ করে খুন করার অভিযোগ সামনে এসেছে।

    Published by:Raima Chakraborty
    First published: