corona virus btn
corona virus btn
Loading

৫ দিন পর চালু হতে চলেছে দক্ষিণবঙ্গ থেকে উত্তরবঙ্গ যাওয়ার ট্রেন

৫ দিন পর চালু হতে চলেছে দক্ষিণবঙ্গ থেকে উত্তরবঙ্গ যাওয়ার ট্রেন

পাঁচ দিন পরে ট্রেন চালু। দক্ষিণবঙ্গ থেকে উত্তরবঙ্গ যাওয়ার ট্রেন চালু হতে চলেছে।

  • Share this:

ABIR GHOSHAL

#কলকাতা: পাঁচ দিন পরে ট্রেন চালু। দক্ষিণবঙ্গ থেকে উত্তরবঙ্গ যাওয়ার ট্রেন চালু হতে চলেছে। আপাতত কামরুপ, সরাইঘাট, কাঞ্চনজঙ্ঘা এক্সপ্রেস ও বালুরঘাট এক্সপ্রেস। হাওড়া, শিয়ালদহ ও কলকাতা স্টেশন থেকে ছাড়বে ট্রেন গুলি। উত্তর পূর্ব সীমান্ত রেল সূত্রে জানানো হয়েছে গুয়াহাটি, ডিবরুগড, শিলচর থেকেও ট্রেন আসবে হাওড়া, শিয়ালদহ ও কলকাতা স্টেশনে।

উত্তর পূর্ব সীমান্ত রেলের ইতিমধ্যেই ক্ষতি হয়েছে প্রায় ৭ কোটি টাকা। তার মধ্যে শুধুমাত্র এই রাজ্যের হরিশচন্দ্রপুর ও ভালুকা স্টেশনে ক্ষতি হয়েছে প্রায় সাড়ে তিন কোটি টাকা। মঙ্গলবার ট্রেন চালানোর জন্য উপযুক্ত করে তোলা হয়েছে হরিশচন্দ্রপুর স্টেশন। ভালুকা স্টেশনের পুরো প্যানেল রুম ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এছাড়া ক্ষতি হয়েছে স্টেশন বিল্ডিংয়েরও। তবে লাইন সারিয়ে ফেলা হয়েছে। উত্তর পূর্ব সীমান্ত রেল সূত্রে জানানো হয়েছে মালবাহী ট্রেন ইতিমধ্যেই চালানো হয়েছে। তাই কিছু দূরপাল্লার ট্রেনের গতি নিয়ন্ত্রণ করে ট্রেন চালানো সম্ভব। আপাতত ঠিক হয়েছে বুধবার দক্ষিণবঙ্গ থেকে উত্তরবঙ্গ যাওয়া বা উত্তর পূর্ব যাওয়ার জন্য চলবে -

হাওড়া থেকে ডিব্রুগড়গামী কামরুপ এক্সপ্রেস শিয়ালদহ থেকে শিলচর গামী কাঞ্চনজঙ্ঘা এক্সপ্রেস হাওড়া থেকে গুয়াহাটি সরাইঘাট এক্সপ্রেস কলকাতা থেকে বালুরঘাট এক্সপ্রেস

ঠিক একই রকম ভাবে হাওড়া, শিয়ালদহ, কলকাতা স্টেশন আসার জন্য কামরুপ, সরাইঘাট এক্সপ্রেস চলবে।

গত ৫ দিন ধরে আসাম ও পশ্চিমবঙ্গের বেশ কিছু জায়গায় নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলের প্রতিবাদে লাগাতার বিক্ষোভ চলেছে। যার জেরে ট্রেন পরিষেবা বন্ধ করে রাখা হয়েছিল। উত্তর পূর্ব সীমান্ত রেল সূত্রে জানানো হয়েছে, আসাম ও পশ্চিমবঙ্গের আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি উন্নতি হওয়ায় ট্রেন পরিষেবা চালু করা হচ্ছে। ভায়া মালদা ডিভিশন হয়েই ট্রেন চালানো হবে। ধাপে ধাপে বাকি ট্রেনগুলিও চালু করে দেওয়া হবে।

ট্রেন পরিষেবা এই দিকে চালু করা গেলেও পূর্ব রেলের কৃষ্ণনগর-লালগোলা ও আজিমগনজ-নিউ ফারাক্কা সেকশনে ট্রেন কবে থেকে চালু হবে তা নিশ্চিত করে বলতে পারছে না পূর্ব রেল। পূর্ব রেল সূত্রে খবর—- কৃষ্ণনগর- লালগোলা সেকশনে যেসব স্টেশন ক্ষতিগ্রস্ত সেগুলো হল-লালগোলা, কৃষ্ণপুর, সরগাছি, বেলডাঙা, রেজিনগর

মোট দুরত্ব ১২৯ কিলোমিটার রেজিনগর - ক্ষতি হয়েছে স্টেশন বিল্ডিং ও প্যানেল রুমের। কৃষ্ণপুর - ক্ষতি হয়েছে প্যানেল রুম। এছাড়া এখানে লাইনের ক্ষতি। ট্রেন কোচ পোড়ানো হয়েছে।

সরগাছি ও বেলডাঙ্গা - প্যানেল রুম ক্ষতিগ্রস্ত। স্টেশনের সমস্ত আসবাবপত্র ভেঙে ফেলা হয়েছে। কিছু আসবাব আগুন লাগানো হয়েছে। লালগোলা - প্যানেল রুম ক্ষতিগ্রস্ত। স্টেশন বিল্ডিং ক্ষতিগ্রস্ত। অন্যদিকে, আজিমগঞ্জ -নিউ ফারাক্কা সেকশন- মোট দুরত্ব ৭৭ কিলোমিটার নিমতিতা, সুজনিপুর, ধুলিয়ান গঙ্গা, নোয়াপাড়া হল্ট, বাসুদেবপুর হল্ট, মনিগ্রাম।

নিমতিতা - প্যানেল রুম তছনছ। বুকিং অফিস ক্ষতিগ্রস্ত। সিগন্যাল টেলিকম বিভাগের ওএফসি ঘর নষ্ট হয়েছে।

সুজনিপারা - প্যানেল রুম তছনছ। বুকিং অফিস ক্ষতিগ্রস্ত। সিগন্যাল ওএফসি রুম ক্ষতিগ্রস্ত। স্টেশনের সমস্ত আসবাবপত্র ভেঙে লাইনে ফেলে আগুন লাগানো হয়েছে।

ধুলিয়ান গঙ্গা - একই অবস্থা সুজনিপারার মতো নোয়াপাডা - বুকিং অফিস নষ্ট। রেল লাইন নষ্ট হয়ে গেছে। ইলাস্টিক রেল ক্লিপ খোলা আছে।

বাসুদেবপুর - বুকিং অফিস ক্ষতিগ্রস্ত মনিগ্রাম - সিগন্যাল কন্ট্রোল রুম ক্ষতিগ্রস্ত। এছাড়াও ১২ টা এল সি গেট ক্ষতিগ্রস্ত

ফলে এই সমস্ত পরিকাঠামো সারানো না গেলে রেল পরিষেবা পুরোপুরি স্বাভাবিক হবে না। তবে দক্ষিণের সাথে উত্তরের যোগাযোগ ধীরে ধীরে চালু হওয়ায় খুশি যাত্রী ও পর্যটক উভয় পক্ষই। ট্রেন ছাড়াও বুধবার কলকাতা থেকে ২০টি অতিরিক্ত বাস এন বি এস টি সি চালাবে।

First published: December 17, 2019, 8:53 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर