• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • সবুজ ঝড়ে পদ্ম‘কাঁটা’, তৃণমূলের চিন্তা বাড়াচ্ছে গেরুয়া শিবির

সবুজ ঝড়ে পদ্ম‘কাঁটা’, তৃণমূলের চিন্তা বাড়াচ্ছে গেরুয়া শিবির

কাঁথি দক্ষিণে বড় ব্যবধানে জয় পেলেও, তৃণমূল কংগ্রেসকে ভাবাচ্ছে পদ্মফুলের কাঁটা।

কাঁথি দক্ষিণে বড় ব্যবধানে জয় পেলেও, তৃণমূল কংগ্রেসকে ভাবাচ্ছে পদ্মফুলের কাঁটা।

কাঁথি দক্ষিণে বড় ব্যবধানে জয় পেলেও, তৃণমূল কংগ্রেসকে ভাবাচ্ছে পদ্মফুলের কাঁটা।

  • Share this:

    #কাঁথি: কাঁথি দক্ষিণে বড় ব্যবধানে জয় পেলেও, তৃণমূল কংগ্রেসকে ভাবাচ্ছে পদ্মফুলের কাঁটা। উপনির্বাচনে বাম-কংগ্রেসকে পিছনে ফেলে ভোট ভাগাভাগিতে দ্বিতীয় স্থানে উঠে এসেছে বিজেপি। কোন রাজনৈতিক অঙ্কে এই ম্যাজিক? বামনেতারাই মেনে নিচ্ছেন, তাঁদের ভোট ব্যাঙ্কেও ধস নামিয়েছে গেরুয়াশিবির।

    পূর্ব মেদিনীপুর তৃণমূল কংগ্রেসের গড়। গতবছরেই কাঁথি দক্ষিণ কেন্দ্র থেকে বিপুল ভোটে জেতেন দিব্যেন্দু অধিকারী। সেই বিধানসভা কেন্দ্রে তৃণমূল কংগ্রেসের জয় নিয়ে কোনও আশঙ্কাই করেনি ঘাসফুল শিবির। কিন্তু, সেখানেই মোট প্রাপ্ত ভোটের নিরিখে শাসকদলের পরেই বিজেপি। গতবারের চেয়ে সাড়ে তিন গুন ভোট বাড়িয়ে দক্ষিণ কাঁথি বিধানসভায় উপনির্বাচনে দ্বিতীয় স্থানে গেরুয়াশিবির।  বিজেপির প্রাপ্ত ভোট ২০১১ সালে বিধানসভা নির্বাচনে ৫০০৪ ভোট ২০১৪ সালের লোকসভা নির্বাচনে ২২০৬২ ভোট ২০১৬ সালের বিধানসভা নির্বাচনে ভোট কমে ১৫২২৩ ২০১৭ সালের উপনির্বাচনে ভোট বেড়ে ৫২৮৪৩

    রাজ্যে ক্রমশই শক্তি হারিয়েছে বামেরা। কাঁথি দক্ষিণ কেন্দ্রে দ্বিতীয় স্থানও তাদের হাতছাড়া হওয়ায় চিন্তিত একসময়ে রাজ্যের শাসকদল ও তৃণমূল কংগ্রেস জমানায় প্রধান বিরোধী শক্তি। তথ্য বলছে,

    কাঁথি দক্ষিণে তৃতীয়স্থানে বামেরা ২০১১ সালের বিধানসভা ভোট, ২০১৪ সালের লোকসভা ভোট, এমনকী ২০১৬ সালের বিধানসভা ভোটেও ওই কেন্দ্রে দ্বিতীয় স্থান ধরে রাখে বামেরা। ২০১৭-র উপনির্বাচনে তৃতীয় স্থানে নেমে গেল বাম

    বিজেপির দ্বিতীয়স্থানে উত্থানকে অবশ্য তেমন আমল দিতে নারাজ তৃণমূল কংগ্রেস। তাদের দাবি, বাম থেকে রাম, দলবদলের এই অঙ্কেই বিজেপির বাড়বাড়ন্ত। খোদ দলনেত্রী মমতা বন্দ্য়োপাধ্যায় বলছেন, ‘কে দ্বিতীয়, কে তৃতীয় তা ভাবার প্রয়োজন নেই ৷ মানুষ আমাদের আরও বেশি সমর্থন করেছে ৷ রাম কবে বাম হবে, এ নিয়ে ভেবে লাভ নেই ৷ আসলে বিজেপির কোলে সিপিএম দোলে ৷ ওরা নিজেদের মধ্যে ট্রান্সফার করে নেয় ৷’

    ভোট সুইংয়ের এই অঙ্ক মেনে নিচ্ছেন জেলা তথা রাজ্যের বামনেতারাও। তাঁদের ব্যাখ্যা, উত্তরপ্রদেশের বিপুল জয় দেখে বহু বামকর্মীই বিজেপির কাছে আত্মসমর্পণ করছেন।

     উত্তরপ্রদেশে বিপুল জয়ের পর মোদি-অমিত শাহের ঘোষিত টার্গেট পশ্চিমবঙ্গ। বিরোধীরা যাই দাবি করুন, কাঁথি দক্ষিণের ফল কিছুটা হলেও চাঙ্গা করবে বিজেপি শিবিরকে।

    First published: