TMC: ২৯৪ কেন্দ্রেই BJP-কে নিশানা, পেট্রোলের 'গলাকাটা' দাম নিয়ে সংসদেও সরব হবে তৃণমূল

প্রতিবাদে সরব তৃণমূল

TMC: পেট্রোপণ্যের 'গলাকাটা' দামের বিরুদ্ধে সংসদ অধিবেশনেও সরব হবে তৃণমূল। টানা আন্দোলনের পথেই থাকতে চায় শাসক দল।

  • Share this:

#কলকাতা:  পেট্রোপণ্যের দাম কমা না পর্যন্ত আন্দোলনের পথেই থাকতে চায় তৃণমূল কংগ্রেস। শনি ও রবিবার রাজ্যের ২৯৪ টি বিধানসভা কেন্দ্রে পেট্রোপণ্যের লাগামছাড়া মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে বিক্ষোভ অবস্থান কর্মসূচিতে সামিল হয়েছে রাজ্যের শাসক দল। তবে এই দুদিনই নয়, যতক্ষণ না পর্যন্ত নিয়ন্ত্রণে আসছে পেট্রোল, ডিজেল, রান্নার গ্যাস এবং কেরোসিনের দাম, ততদিন নানা কর্মসূচির মাধ্যমে আন্দোলন চালিয়ে যাওয়া হবে। এমনটাই জানিয়েছেন তৃণমূলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়।

আগামী দিনে আরও বড় আন্দোলনের হুঁশিয়ারিও দিয়েছেন তিনি। পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের অভিযোগ, 'সেঞ্চুরি পার করেছে পেট্রোল। ডিজেলও সেঞ্চুরির দোরগোড়ায়। রান্নার গ্যাসের দাম আকাশছোঁয়া হাওয়ায় হেঁসেলে আগুন জ্বলছে। কেরোসিনের দামও চড়া। এই ভয়াবহ অবস্থায় দাম নিয়ন্ত্রণের ব্যাপারে হাত গুটিয়ে রয়েছে কেন্দ্র। আমরা আন্দোলনের পথ থেকে সরছি না। পেট্রোপণ্যের মূল্যবৃদ্ধি হওয়ার কারণে স্বাভাবিকভাবে বাজারেও তার প্রভাব পড়েছে। অথচ কেন্দ্রের কোনও হেলদোল নেই'।

কেন্দ্রের বিরুদ্ধে সুর চড়িয়ে পার্থ চট্টোপাধ্যায় এও বলেন,' বিশ্ব বাজারে পেট্রোপণ্যের  দাম বাড়ার কারণে এই মূল্যবৃদ্ধির কেন্দ্র যে যুক্তি দেখাচ্ছে তা একদমই ঠিক নয়। রীতিমতো তথ্য দিয়ে পার্থবাবু বুঝিয়ে দেন বিশ্ববাজারে তেলের দাম অনেকটাই এখন কম। অথচ প্রতিদিনই ঊর্ধ্বমুখী জ্বালানির দাম'। রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তের মত এদিন নিজের বিধানসভা কেন্দ্র বেহালাতেও বিক্ষোভ অবস্থান কর্মসূচিতে অংশ নেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়। সেখানেই নিউজ 18 বাংলা-র মুখোমুখি হয়ে রাজ্যের মন্ত্রী তথা দলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায় স্পষ্ট করে দেন , 'পেট্রোল-ডিজেলে আমরা ইতিমধ্যেই এক টাকা সেস কমিয়েছি। তাও যে হারে দাম বাড়ছে তাতে সাধারণ মানুষের নাভিশ্বাস উঠেছে। আগামী দিনে শুধু এরাজ্যেই নয়, যেখানেই পেট্রোপণ্যের প্রতিবাদ হবে তৃণমূল কংগ্রেস সেখানে সমর্থন জানাবে।'

সংসদের অধিবেশনেও যে তৃণমূল সাংসদরা পেট্রোপণ্যের ইস্যু নিয়ে সরব হবেন তাও এদিন জানান পার্থ চট্টোপাধ্যায়। অবস্থান মঞ্চে শুধু পেট্রোপণ্যের লাগামছাড়া মূল্যবৃদ্ধিই যে তৃণমূল নেতৃত্বের হাতিয়ার ছিল, তা নয়। কেন্দ্রের বিরুদ্ধে নানান জনবিরোধী কার্যকলাপ নিয়েও সোচ্চার হন আন্দোলনকারীরা। পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের  নেতৃত্বে এদিনের শাসকদলের বিক্ষোভ অবস্থান মঞ্চে পার্থ চট্টোপাধ্যায় সরব হন কেন্দ্রের তরফে মাস্ক- স্যানিটাইজারের ওপর জিএসটি লাগু করা নিয়েও। তৃণমূলের মহাসচিব বলেন, 'করোনা  মোকাবিলায় অত্যাবশ্যকীয় সামগ্রির ওপর থেকে জিএসটি  প্রত্যাহার করার ব্যাপারে ইতিমধ্যেই প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। আমরা বলছি মাস্ক-স্যানিটাইজারের ক্ষেত্রে 0% জিএসটির কথা। খুব বেশি হলে সাধারণ মানুষের স্বার্থের কথা ভেবে 1% জিএসটি ধার্য করা হোক। তাতেও নিরুত্তর কেন্দ্র'।

Published by:Suman Biswas
First published: