ভাঙা পায়েই লড়াই হবে, নবান্ন দখলে হুইল চেয়ারে বসা মমতাই বাজি তৃণমূলের

ভাঙা পায়েই লড়াই হবে, নবান্ন দখলে হুইল চেয়ারে বসা মমতাই বাজি তৃণমূলের

হুইল চেয়ারে পথে মমতা

হুইল চেয়ারে মমতার পথে নামাকেই রবিবাসয়ীর বাংলায় বড় করে তুলে ধরতে চাইছে তৃণমূল। মেয়ো রোড থেকে হাজরা মোড় পর্যন্ত মিছিলে হুইল চেয়ারে থাকবেন মমতা।

  • Share this:

    #কলকাতা: নন্দীগ্রাম দিবসেই হুইল চেয়ারে বসে পথে নামছেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায়। এদিনই একুশের নির্বাচনের ইস্তেহার প্রকাশ করার কথা থাকলেও তা পিছিয়ে দিয়েছে শাসক দল। বরং হুইল চেয়ারে মমতার পথে নামাকেই রবিবাসয়ীর বাংলায় বড় করে তুলে ধরতে চাইছে তৃণমূল। মেয়ো রোড থেকে হাজরা মোড় পর্যন্ত মিছিলে হুইল চেয়ারে থাকবেন মমতা। তারপর হাজরা মোড়ের সভা থেকে বক্তব্য রাখবেন তিনি। মমতা আসার আগেই এদিন মেয়ো রোড থেকে তৃণমূল সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, 'মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এখনও অসুস্থ, যন্ত্রণায় ভুগছেন। তবু তিনি হুইল চেয়ারে করেই আজকের মিছিল সঙ্গ দেবেন। বিজেপি ভয় পেয়েছে মমতাকে। তাই তাঁর উপর আক্রমণ করা হয়েছে।'

    এবারের নির্বাচনে তৃণমূলের অন্যতম স্লোগান 'খেলা হবে'। আর মমতা নন্দীগ্রামে আহত হওয়ার পর থেকেই তাঁর স্লোগান পালটে হয়েছে, 'ভাঙা পায়েই খেলা হবে।' ইতিমধ্যে সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়েছে সেই স্লোগান। অভিষেক যখন ভাষণ দিচ্ছেন মেয়ো রোডের মঞ্চে, তখনই মমতা হাজির হয়েছেন মেয়ো রোডে। অভিষেকও এদিন বলেন, 'ভাঙা পায়েই লড়াই হবে।' কারণ, 'বাংলা নিজের মেয়েকে চায়।'

    এদিন সকালেই নন্দীগ্রাম দিবস উপলক্ষ্যে ট্যুইট করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। লেখেন, 'প্রতিবছর এই দিনটিকে কৃষক দিবস হিসেবে পালন করি আমরা। কিষান রত্ন পুরস্কারও দেওয়া হয় আমাদের সরকারের পক্ষ থেকে। কৃষকরা আমাদের গর্ব। তাঁদের সর্বাঙ্গীন বিকাশে আমরা কাজ করে চলেছি। আমার নন্দীগ্রামের ভাই-বোনদের উৎসাহে, সেখানকার মানুষদের শ্রদ্ধা জানাতেই সেখান থেকে লড়াইয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছি আমি। আগামীদিনে নন্দীগ্রামের শহিদ পরিবারগুলিকে সঙ্গে নিয়েই বাংলা বিরোধী শক্তির সঙ্গে লড়বো।'

    আর যেভাবে তিনি এদিন নন্দীগ্রাম দিবস উপলক্ষ্যে হুইল চেয়ারে করেই নেমে পড়লেন কলকাতার রাজপথে। নন্দীগ্রামকেই এবারর নির্বাচনে পাখির চোখ করে ময়দানে নেমেছেন তৃণমূলনেত্রী। তবে শেষ পর্যন্ত শনিবার রাতে দলীয় তরফে জানানো হয় প্রযুক্তিগত কারণে রবিবার তৃণমূলের ইশতেহার প্রকাশ মুলতুবি রাখা হচ্ছে। যদিও নন্দীগ্রাম দিবস উপলক্ষে পথে নামলেন তৃণমূল নেত্রী-সহ দলের নেতা, কর্মী, সমর্থকরা।

    Published by:Suman Biswas
    First published: