হোম /খবর /কলকাতা /
'আমার কর্মসূচি নকল করেছে', উঠোন বৈঠক নিয়ে বিজেপিকে কটাক্ষ তৃণমূল বিধায়কের

TMC: 'আমার কর্মসূচি নকল করেছে', উঠোন বৈঠক নিয়ে বিজেপিকে কটাক্ষ তৃণমূল বিধায়কের

উঠোন বৈঠক ঘিরে রাজনৈতিক তরজা৷

উঠোন বৈঠক ঘিরে রাজনৈতিক তরজা৷

উত্তরবঙ্গের আদিবাসী এলাকায় অভিনব কর্মসূচি তৃণমূল কংগ্রেসের। চালু হচ্ছে উঠোন বৈঠক।

  • Share this:

#কলকাতা: উঠোন বৈঠক শুরু করেছিলেন উত্তর দিনাজপুরের ইটাহারের বিধায়ক মোশারফ হোসেন। বিজেপির তরফেও পঞ্চায়েত ভোটের আগে ডাক দেওয়া হয়েছে উঠোন বৈঠকের। আর তাকেই নকল করা হয়েছে বলে দাবি করলেন তৃণমূল কংগ্রেস বিধায়ক।

তার কথায়, "গত দুই-আড়াই মাস ধরে আমরা এই উঠোন বৈঠকের পরিকল্পনা নিয়েছিলাম। বেশ কিছুদিন হয়ে গেল আমরা সেই কাজ শুরু করে দিয়েছি। গ্রামে গ্রামে ভাল সাড়া মিলছে। তাই আমরা দুই দিনাজপুরের সর্বত্র এই কাজ শুরু করে দিয়েছি। বিজেপি আমাদের এই কর্মসূচি নকল করে পারবে না। ওদের বুথ স্তরে কোনও কর্মী নেই, যে মানুষের সঙ্গে কথা বলতে যাবে। আর মানুষ ওদের কথা শুনবেও না।"

আরও পড়ুন: বিধানসভা অধিবেশনের শেষ দিনে আজ বিধায়করা যাবেন আলিপুর সংগ্রহশালায়

উঠোন বৈঠক শুরু করেছে তৃণমূল কংগ্রেস। একাধিক গ্রামে গিয়ে তিনি দেখা করলেন সেখানের বাসিন্দাদের সঙ্গে। শুনছেন তাদের 'মন কী বাত'। তৃণমূল কংগ্রেসের বিধায়ক মোশারফ হোসেন জানিয়েছেন, ‘‘সভা বা মিটিং, মিছিল করে নয়। আমরা একেবারে মানুষের বাড়ি পৌঁছে যেতে চাই। তাঁরা কী বলছেন জানতে চাই। সেই কারণে আমি নিজেও একাধিক বাড়িতে গিয়েছি ৷ গ্রামের উঠোনে বসে গল্প করলাম। জানতে চাইলাম তাঁদের কী কী প্রয়োজন রয়েছে ? ’’

উত্তরবঙ্গের আদিবাসী এলাকায় অভিনব কর্মসূচি তৃণমূল কংগ্রেসের। চালু হচ্ছে উঠোন বৈঠক। আদিবাসীদের ঘরে ঘরে গিয়ে প্রকল্পের কথা বলবে তৃণমূল কংগ্রেস। বোঝাবে আদিবাসী সম্পর্কে তৃণমূল কংগ্রেসের অবস্থান।বিজেপি ভুল বোঝাচ্ছে এই বার্তা দেবে এই বৈঠকে। উত্তর দিনাজপুর ও দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা দিয়ে এই কর্মসূচি শুরু হল।

আরও পড়ুন: উঠোন বৈঠকে বিজেপি-ও, বীরভূম থেকেই শুরু বিজেপি-র নতুন জনসংযোগ কর্মসূচি

আদিবাসী ভোট পেতে মরিয়া বিজেপি শিবির। লোকসভা নির্বাচনে রাজ্যের বেশ কয়েকটি লোকসভা আসনে ফ্যাক্টর হবে আদিবাসী ভোট। ২০১৯ সালে লোকসভা ভোটে যে সব কেন্দ্রে জয় হাসিল করতে পেরেছিল, সেই সব সংসদীয় আসনের মধ্যে একাধিক জায়গায় আদিবাসী-জনজাতি ভোট ফ্যাক্টর ৷২০১৯ সালে লোকসভা ভোটের বিধানসভা ভিত্তিক ফলে এই আসনগুলিতে তৃণমূলকে টেক্কা দিয়েছিল বিজেপি৷ যদিও ২০২১-এর বিধানসভা ভোটে আদিবাসী অধ্যুষিত এলাকায় হারানো জমি অনেকটাই পুনরুদ্ধার করে শাসক দল৷ ।

যদিও শতাংশের বিচারে দুই দলের মধ্যে তুল্যমূল্য লড়াই চলছে। এই অবস্থায় তৃণমূল কংগ্রেসও চাইছে আদিবাসী, জনজাতি বা প্রান্তিক মানুষের কাছে জনসংযোগ বাড়াতে। তাই বড় বড় সভা, মঞ্চ বেঁধে বক্তৃতা না করে, একেবারে ঘরের উঠোনে বসে তাদের সমস্যা বুঝে নিতে। যা গ্রামাঞ্চলের ভোটে পঞ্চায়েত কেন্দ্রিক অংশে অত্যন্ত কার্যকর হবে বলে মত তাদের।

ইতিমধ্যেই দলের সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নিজে ঝাড়গ্রাম সফর করেছেন।আদিবাসী গ্রামে তাদের বাড়িতে গিয়ে সরাসরি কথা বলে পরিস্থিতি বুঝেছেন ৷ এবার বিশেষ নজরে উত্তরবঙ্গের বিস্তীর্ণ জেলাগুলি ৷ তাই অভিনব ‘উঠোন বৈঠক’ শুরু করা হল উত্তর দিনাজপুর দিয়ে। ধীরে ধীরে উত্তরের সব জেলায় ব্লক লেভেলে এই কর্মসূচি পালন করা হবে।

উত্তর দিনাজপুরে আছে ৯টি ব্লক। দক্ষিণ দিনাজপুরে আছে ৬ টি ব্লক। এর মধ্যে একাধিক ব্লকে আদিবাসী ভোট ফ্যাক্টর। আবার দক্ষিণ দিনাজপুরেই বিজেপির রাজ্য সভাপতির আসন। তাই দিনাজপুর দিয়েই শুরু হচ্ছে এই উঠোন বৈঠক।গ্রামের বেশ কয়েকটি পাড়ার মধ্যে, বাড়ি বাছাই করা হচ্ছে। তারই উঠোনে বসে চলছে বাসিন্দাদের সঙ্গে কথাবার্তা। তাঁদের অসুবিধা কোথায়, সরকারি প্রকল্পের সুবিধা পাচ্ছেন কি না, এসবই জানা হচ্ছে৷  এমন কি, দল যে আদিবাসীদের অসম্মান করছে না, তাও এভাবেই বোঝানো হচ্ছে।

Published by:Debamoy Ghosh
First published:

Tags: BJP, TMC