কম সুদে পড়ুয়াদের ১০ লক্ষ ঋণ, 'দিদির দশ অঙ্গীকারে' কী কী প্রতিশ্রুতি?

কম সুদে পড়ুয়াদের ১০ লক্ষ ঋণ, 'দিদির দশ অঙ্গীকারে' কী কী প্রতিশ্রুতি?

তৃণমূলের ইস্তেহার প্রকাশ করছেন মুখ্য়মন্ত্রী৷

তৃণমূলের ইস্তেহারে মূল দশটি বিষয়ের উপরে জোর দেওয়া হয়েছে৷ যাকে বলা হচ্ছে 'দিদির দশ অঙ্গীকার৷'

  • Share this:

    #কলকাতা: মহিলাদের পাশাপাশি ছাত্র যুবদের মন জয়ের চেষ্টা৷ তৃণমূলের ইস্তেহারে তাই পড়ুয়াদের জন্যও বড় প্রতিশ্রুতি৷ এ দিন তৃণমূলের ইস্তেহার প্রকাশ করতে গিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন, পড়ুয়াদের স্বাবলম্বী করতে ক্ষমতায় ফিরলে নতুন ক্রেডিট কার্ডের ব্যবস্থা করবে দল৷ যার মাধ্যমে ১০ লক্ষ টাকা পর্যন্ত ঋণ পাবেন ছাত্রছাত্রীরা৷ মাত্র চার শতাংশ সুদে এই ঝণ পাওয়া যাবে৷ ঋণ পাওয়ার জন্য কোনও কিছু গচ্ছিতও রাখতে হবে না পড়ুয়াদের৷ ছাত্রছাত্রীদের হয়ে গ্যারান্টার হবে সরকারই৷

    এই প্রকল্পের ব্যাখ্যা করতে গিয়ে তৃণমূলনেত্রী বলেন, 'ছাত্ররা আমাদের ভবিষ্যৎ৷ বাংলার ছাত্র যুবকদের স্বাবলম্বী করতে এবং তাঁদের শিক্ষার সুবিধা করে দেওয়ার জন্য সব যোগ্য পড়ুয়াদের জন্য নতুন স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড প্রকল্প নিয়ে আসা হবে৷ এর মাধ্যমে মাত্র ৪ শতাংশ সুদে ১০ লক্ষ পর্যন্ত ঋণ পাবে৷ এর জন্য কোনও জামিন দিতে হবে না, সরকারই জামিনদার হবে৷ ফলে তাঁদের বাবা-মাকে কষ্ট করতে হবে না, চিন্তা করতে হবে না৷ নিজেরাই নিজেদের পড়াশোনার খরচ জোগাড় করতে পারবে৷ কন্যাশ্রী, শিক্ষাশ্রীর পাশাপাশি এই ক্রেডিট কার্ডের সুবিধে পাওয়া যাবে বলে দাবি করেছেন মুখ্যমন্ত্রী৷'

    তৃণমূলের ইস্তেহারে মূল দশটি বিষয়ের উপরে জোর দেওয়া হয়েছে৷ যাকে বলা হচ্ছে 'দিদির দশ অঙ্গীকার৷' এই দশ অঙ্গীকারের মধ্যে অন্যতম রাজ্যের সব পরিবারকে মাসে পাঁচশো টাকা বা বছরে ৬০০০ টাকা করে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী৷ ওবিসি, তপশিল, সংখ্যালঘুদের মতো পিছিয়ে পড়া সম্প্রদায়ের পরিবারগুলির ক্ষেত্রে এই সাহায্যের পরিমাণ হবে মাসিক ১০০০ টাকা৷ তবে এই দেওয়া হবে পরিবারের মহিলা সদস্যের নামে৷ মুখ্যমন্ত্রীর কথায়, 'খাদ্য, স্বাস্থ্য, শিক্ষা সবই বিনা পয়সায় পাচ্ছে৷ কিন্তু বিপদের সময় বাড়ির মেয়েদের হাতে টাকা না থাকলে অনেক সময়ই অসুবিধা হয়৷'

    তৃণমূলের ইস্তেহার অনুযায়ী, কৃষকবন্ধু প্রকল্পে কৃষকদের একর পিছু বার্ষিক সাহায্যের পরিমাণ বাড়িয়ে ১০ হাজার টাকা করা হবে৷ বছরে পাঁচ লক্ষ নতুন কর্মসংস্থানের অঙ্গীকারও করেছে রাজ্যের শাসক দল৷ বছরে দেড় কোটি পরিবারে দুয়ারে রেশন পৌঁছে দেওয়ার কথা বলা হয়েছে ইস্তেহারে৷ পাশাপাশি মা ক্যান্টিনে ৫ টাকায় বছরে ৭৫ কোটি ভর্তুকিযুক্ত আহারের কথা বলা হয়েছে ইস্তেহারে৷

    শিল্পক্ষেত্রেও আগামী ৫ বছরে ৫ লক্ষ কোটি টাকার নতুন বিনিয়োগ নিয়ে আসার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে শাসক দল৷ স্বাস্থ্য ক্ষেত্রে চিকিৎসক, নার্স, প্যারামেডিকদের জন্য আসন সংখ্যা দ্বিগুন করা হবে বলেও দাবি করা হয়েছে তৃণমূলের ইস্তেহারে৷ শিক্ষক নিয়োগ নিয়ে বার বার অস্বস্তিতে পড়লেও ইস্তেহারে শিক্ষকদের জন্য আসন সংখ্যা দ্বিগুন করার কথা বলা হয়েছে৷ দশ অঙ্গীকারের সবশেষে বাংলা আবাস যোজনায় দশ লক্ষ নতুন বাড়ি এবং প্রতিটি বাড়িতে ২৪ ঘণ্টা সুলভে বিদ্যুৎ পৌঁছে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছে শাসক দলের ইস্তেহারে৷

    Published by:Debamoy Ghosh
    First published: