• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • ভোটের আগে ‘ডিজিটাল অস্ত্র’ তৃণমূল কংগ্রেসের, চালু হচ্ছে নয়া প্রচার

ভোটের আগে ‘ডিজিটাল অস্ত্র’ তৃণমূল কংগ্রেসের, চালু হচ্ছে নয়া প্রচার

"আওয়াজ উঠেছে বঙ্গে, আমরা দিদির সঙ্গে"। সোশ্যাল মিডিয়ায় এই প্রচারও এখন ট্রেন্ডিং হয়ে উঠেছে।

"আওয়াজ উঠেছে বঙ্গে, আমরা দিদির সঙ্গে"। সোশ্যাল মিডিয়ায় এই প্রচারও এখন ট্রেন্ডিং হয়ে উঠেছে।

"আওয়াজ উঠেছে বঙ্গে, আমরা দিদির সঙ্গে"। সোশ্যাল মিডিয়ায় এই প্রচারও এখন ট্রেন্ডিং হয়ে উঠেছে।

  • Share this:

#কলকাতা: আগামী বিধানসভা ভোটের আগে বিজেপির বিরুদ্ধে প্রচারে নামতে ডিজিটাল মাধ্যমকে হাতিয়ার করছে তৃণমূল কংগ্রেস। ভোটে জেতার জন্যে একাধিক ভুয়ো ইস্যু করে প্রচার চালাচ্ছে বিজেপি। এমনটাই অভিযোগ তৃণমূলের ৷ তারই মোকাবিলায় এবার পালটা ডিজিটাল অস্ত্র হাতিয়ার করছে তৃণমূল কংগ্রেস।

#বিজেপিসেহবেনা বা #BJPSeHobeNa এই প্রচার শুরু করছে তৃণমূল কংগ্রেস।ভোটের লড়াই, এবার নেটের ময়দানে। ভোট ঘোষণা হতে বাকি এখনও কিছু দিন। তার আগেই নেটে'র লড়াইয়ে জমজমাট সোশ্যাল মিডিয়া। গত কয়েক মাস ধরেই লড়াই চলছিল বিজেপি বনাম তৃণমূলের মধ্যে। জাতীয় রাজনীতিতে অবশ্য সব দলই জোর দিচ্ছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। বিহার বিধানসভা জিতে নেওয়ার পরে ইতিমধ্যেই বিজেপি শুরু করে দিয়েছে তাদের নেট ক্যাচলাইন #battleforbengal2021। পিছিয়ে নেই তৃণমূল কংগ্রেস ৷ রাজ্যের বিভিন্ন প্রকল্প থেকে শুরু করে, কেন্দ্রের একাধিক জন বিরোধী নীতির বিরোধিতা করে লাগাতার প্রচার শুরু করে দিয়েছে তৃণমূল কংগ্রেসও। তবে গত চারদিনে নেটের লড়াইয়ে ট্রেন্ডিং হয়ে গেছে শুভেন্দু অধিকারী। তিনি নিজে সরাসরি ফেসবুক বা ট্যুইটারে পোস্ট না করলেও তাঁর একাধিক ফ্যান পেজ ইতিমধ্যেই তৈরি হয়ে গিয়েছে। যেখানে ইতিমধ্যেই কয়েক হাজার "দাদার অনুগামী" প্রতিদিন যোগদান শুরু করে দিয়েছেন।

নেটের লড়াইয়ে নজর কেড়েছে ‘দাদার অনুগামী’দের ক্যাচ লাইন। যেমন "দিদি বলতেন তৃণমূল করতে গেলে ত্যাগী হতে হবে, তাইতো দাদা মন্ত্রীত্ব ত্যাগ করলেন।" আবার কোথাও স্লোগান, "একদিকে এক শান্ত মাথা, অন্যদিকে অহংকার, মানুষ জাগছে নতুন করে, বল তুমি পক্ষে কার!!!" আবার কোথাও লেখা হয়েছে "শুভেন্দু অধিকারীর সার্টিফিকেট লাগেনা। সার্টিফিকেট উনি নিজেই।"

ট্যুইটারে পোস্ট, "সবার মনের গহন গভীরের, হৃদ স্পন্দনে তোমার বাস।। লড়াইটা তো ছোট গল্প, সংগ্রামটা হবে উপন্যাস।" তবে সবচেয়ে বেশি শেয়ার হয়েছে, "শেষ হবে অমিতের রাজ, এটাই হবে জনগণের কাজ। তাই তো বলি বাংলাতে ভাই, শুভেন্দুদা তোমায় চাই....!!!" তবে "দাদার অনুগামী" দের লড়াইয়ে পিছিয়ে নেই দিদির লড়াই। পালটা সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রচার শুরু করে দিয়েছেন দিদির অনুগামীরা। অনেকেই বদলে ফেলেছেন তাদের ডিপি বা প্রোফাইল পিকচার। এই প্রচারে গুরুত্ব পাচ্ছে যে লাইন, তাতে উল্লেখ "আওয়াজ উঠেছে বঙ্গে, আমরা দিদির সঙ্গে"। সোশ্যাল মিডিয়ায় এই প্রচারও এখন ট্রেন্ডিং হয়ে উঠেছে।

আবীর ঘোষাল

Published by:Siddhartha Sarkar
First published: