‘একটি সম্প্রদায়কে নিশানা করা হচ্ছে’, মাদ্রাসায় জঙ্গিযোগ মন্তব্য নিয়ে একসুরে অভিযোগ তৃণমূল-সিপিএম-কংগ্রেসের

Bangla Editor | News18 Bangla
Updated:Jul 03, 2019 07:29 PM IST
‘একটি সম্প্রদায়কে নিশানা করা হচ্ছে’, মাদ্রাসায় জঙ্গিযোগ মন্তব্য নিয়ে একসুরে অভিযোগ তৃণমূল-সিপিএম-কংগ্রেসের
Bangla Editor | News18 Bangla
Updated:Jul 03, 2019 07:29 PM IST

#কলকাতা: ফের কেন্দ্রের বিরোধিতায় কাছাকাছি এ রাজ্যের শাসক ও বিরোধী বাম-কংগ্রেস। রাজ্যের মাদ্রাসাগুলিকে ব্যবহার করছে জেএমবি। কেন্দ্রের এই বক্তব্যের বিরোধিতায় বিধানসভায়কার্যত সর্বদলীয় নিন্দা প্রস্তাবের সম্ভাবনা জোরাল। যদিও অনড় অবস্থান কেন্দ্র ও রাজ্য বিজেপির।

কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর মন্তব্য ঘিরে পারদ চড়ল পশ্চিমবঙ্গের বিধানসভায়। মঙ্গলবার, রাজ্যের ২ বিজেপি সাংসদের প্রশ্নের লিখিত জবাবে স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী জি কিষান রেড্ডি দাবি করেন,খবর মিলেছে, বর্ধমান এবং মুর্শিদাবাদের কিছু মাদ্রাসাকে ব্যবহার করছে জামাত-উল-মুজাহিদিন বাংলাদেশ। তারা যুবকদের মগজধোলাই করছে। নতুন সদস্য নিয়োগ করছে।

মোদি সরকারের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর এই মন্তব্যের বিরোধিতায়, বুধবার, বিধানসভায় এক সুর তৃণমূল-সিপিএম-কংগ্রেসের। পরিষদীয় দলনেতা সুজন চক্রবর্তীর দাবি, হিংসা ছড়ানোর চেষ্টা করছে বিজেপি ৷ একই সুর বিরোধী দলনেতা আবদুল মান্নানের গলায় ৷ বলেন, একটি বিশেষ সম্প্রদায়কে নিশানা করা হচ্ছে ৷ পরিষদীয় প্রতিমন্ত্রী তাপস রায়ের বক্তব্য, বিশেষ কোনও সম্প্রদায়কে নিশানা করা ঠিক নয়। জঙ্গি থাকলে সেরকম তথ্য দিক। কলকাতা পুলিশ তো গ্রেফতার করছে ৷

মাদ্রাসা নিয়ে মোদি সরকারের মন্ত্রীর মন্তব্যের বিরোধিতায় সরব হয় তৃণমূলও। পার্থ চট্টোপাধ্যায় বলেন, এ নিয়ে একটি নিন্দা প্রস্তাব আনা যেতে পারে। যাতে সম্মতি দেন স্পিকার। কেন্দ্র ও রাজ্য বিজেপি অবশ্য নিজেদের অবস্থানে অনড়।

সম্প্রতি, রাজ্যে বিজেপিকে মোকাবিলায় কংগ্রেস-সিপিএমকে আহ্বাণ জানান মুখ্যমন্ত্রী। মান্নান-সুজনরা অবশ্য তার বিরোধিতা করেন। এরপর, গত সোমবার, সাম্প্রদায়িকতা ইস্যুতে বিধানসভায় শাসকের পাশে থাকার বার্তা দেয় বাম-কংগ্রেস। তবে শর্তসাপেক্ষে। এই প্রেক্ষাপটে, এবার মাদ্রাসা নিয়ে মোদি সরকারের মন্ত্রীর মন্তব্যের প্রেক্ষিতে একজোট তৃণমূল-সিপিএম ও কংগ্রেস। যা বিজেপির বাড়বাড়ন্তের হাওয়ায় রাজনৈতিক ভাবে যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ।

First published: 07:29:06 PM Jul 03, 2019
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर