• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • পন্ডিতিয়া আবাসনে গাড়ি ভাঙচুরে গ্রেফতার আরও ৩

পন্ডিতিয়া আবাসনে গাড়ি ভাঙচুরে গ্রেফতার আরও ৩

পণ্ডিতিয়া রোডে গাড়ি ভাঙচুরের ঘটনায় আরও তিনজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ ৷ ধৃতদের নাম সানু গুপ্ত, বান্টি গুপ্ত, অধীর সরকার ৷

পণ্ডিতিয়া রোডে গাড়ি ভাঙচুরের ঘটনায় আরও তিনজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ ৷ ধৃতদের নাম সানু গুপ্ত, বান্টি গুপ্ত, অধীর সরকার ৷

পণ্ডিতিয়া রোডে গাড়ি ভাঙচুরের ঘটনায় আরও তিনজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ ৷ ধৃতদের নাম সানু গুপ্ত, বান্টি গুপ্ত, অধীর সরকার ৷

  • Pradesh18
  • Last Updated :
  • Share this:

    #কলকাতা: পণ্ডিতিয়া রোডে গাড়ি ভাঙচুরের ঘটনায় আরও তিনজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ ৷ ধৃতদের নাম সানু গুপ্ত, বান্টি গুপ্ত, অধীর সরকার ৷ এর আগে রবিবার চারজনকে গ্রেফতার করে লেক থানার পুলিশ ৷ ধৃতদের নাম শক্তি সিং, রাজেশ চৌধুরী, অমৃতলাল যাদব ও প্রকাশ রায় ৷ এই নিয়ে পন্ডিতিয়া আবাসনে গাড়ি ভাঙচুরের ঘটনায় মোট সাতজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ ৷ হাজরায় দুর্ঘটনায় যুবকের মৃত্যু ঘিরে রণক্ষেত্র পণ্ডিতিয়া রোড। দফায় দফায় বিক্ষোভ। প্রথমে তীব্র উত্তেজনা ছড়ায় ওই এলাকার ফোর্ট ওয়েসিস কমপ্লেক্সে। আবাসনে ঢুকে ৭৮টি গাড়ি ভাঙচুর করে উত্তেজিত জনতা। পরে নিহতের দেহ নিয়েও চলে অবরোধ। অভিযোগ, ওই আবাসনেই যাতায়াত করত ঘাতক গাড়িটি। যদিও, আবাসনের বাসিন্দাদের দাবি, ঘাতক গাড়িটি তাঁদের কারও নয়। কী কারণে আচমকা অভিজাত আবাসনে ঢুকে এমন বেনজির হামলা? হাজরাকাণ্ডে এই প্রশ্নই উঠছে। শুধু কি ঘাতক গাড়ির নম্বরের সঙ্গে মিল নাকি, কোনও সিন্ডিকেট ও প্রোমোটারি চক্রের হাত? আবাসন কমিটির সদস্যদের কথাতেও তেমনি ইঙ্গিত। রহস্য রয়েছে গাড়িটি নিয়েও। এখনও পর্যন্ত গাড়ির মালিককে চিহ্নিত করতে পারেননি পন্ডিতিয়া আবাসনে গাড়ি ভাঙচুরের ঘটনায় চারজনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। ঘাতক মার্সিডিজ বেঞ্জের নম্বর- WB 02 AG 6911 । কিন্তু, আবাসনে গাড়ি ঢোকে WB 02 AB 6911 নম্বরের। গাড়ির নম্বরে অদ্ভুত মিল। শুধু একটিতে AB। আরেকটিতে AG। আর তার জেরেই এক যুবকের মৃত্যু ঘিরে এমন বেনজির তাণ্ডব। কিন্তু, স্রেফ প্রতিহিংসা মেটাতে এমন হামলা, নাকি পিছনে সিন্ডিকেট বা প্রোমোটারি চক্র? নজিরবিহীন এমন হামলা সন্দেহ উসকে দিয়েছে আবাসনের বাসিন্দাদেরও। শুধু গাড়ির নম্বরের ভুলেই এমন হতে পারে না বলে সন্দেহ আবাসিকদেরও। রহস্য বাড়ছে গাড়ির মালিকানা নিয়েও। লিটল স্টার টাই-আপ কোম্পানি’র নামে কেনা হয়েছিল গাড়িটি। ওই সংস্থার দফতরের ঠিকানা দেওয়া ছিল নোনাপুকুরে। কিন্তু, নোনাপুকুরের ৪ তলার ৪০৮ নম্বর ঘরে ওই সংস্থার কোনও দফতর নেই। টালিগঞ্জ থানার হাত থেকে ওই দুর্ঘটনার তদন্তভার দেওয়া হয়েছে লালবাজারের ফ্যাটাল স্কোয়াডকে। গাড়ির নম্বর নিয়ে ধন্দ হামলাকারীদের। মালিকানা নিয়ে ধন্দে পুলিশ। কিন্তু, শুধুমাত্র দুর্ঘটনায় একজনের মৃত্যু নিয়ে এমন দিনভর তাণ্ডবের পিছনে অন্য ইঙ্গিত মিলছে।

    First published: