মাধ্যমিকের প্রশ্নপত্র ট্র্যাক করবে পর্ষদ, স্পর্শকাতর কেন্দ্রে থাকছে সিসিটিভি নজরদারি

Representational Image

মাধ্যমিকের প্রশ্নপত্র এবার ট্র্যাক করবে মধ্যশিক্ষা পর্ষদ ৷

  • Share this:

    #কলকাতা: মাধ্যমিকের প্রশ্নপত্র এবার ট্র্যাক করবে মধ্যশিক্ষা পর্ষদ ৷ সিল খোলা হলেই লোকেশন জানা যাবে ৷ নিরাপত্তা বাড়াতে প্রযুক্তিতে জোর দিচ্ছে পর্ষদ ৷ গতবছর হোয়াটসঅ্যাপে প্রশ্নপত্র বেরোনোর অভিযোগ হলে ঢোকার আগে প্রশ্নপত্র খোলা যাবে না ৷  তার জেরেই প্রশ্নপত্র ট্র্যাকের সিদ্ধান্ত নিয়েছে মধ্যশিক্ষা পর্ষদ ৷

    প্রশ্নপত্র অসন্তোষ নিয়ে কোনও বিশৃঙ্খলা বরদাস্ত করা হবে না। পরীক্ষাহলে ভাঙচুরের মতো ঘটনা ঘটলে ক্ষতিপূরণের দায় নিতে হবে বিশৃঙ্খল ছাত্রছাত্রীদের স্কুলকেই। জানালেন মধ্যশিক্ষা পর্ষদ সভাপতি কল্যাণময় গঙ্গোপাধ্যায়। প্রশ্নপত্র ফাঁসের মতো ঘটনা নিয়েও সতর্ক পর্ষদ। সোমবার থেকে শুরু হচ্ছে মাধ্যমিক পরীক্ষা। এবার পরীক্ষার্থীর সংখ্যা এগারো লক্ষের কিছু বেশি।

    পছন্দসই প্রশ্নপত্র না হলেই আক্রোশ-অসন্তোষ উগরে দেওয়া পরীক্ষার্থীদের দস্তুর হয়ে দাঁড়িয়েছে। কখনও কখনও সেই আক্রোশ থেকে পরীক্ষাকেন্দ্রে ভাঙচুরও করেন তারা। গত কয়েক বছর ধরে মাধ্যমিক পরীক্ষা ঘিরে এরাজ্যে তেমন ঘটনা না ঘটলেও এমন অপ্রীতিকর পরিস্থিতি ঠেকাতে সতর্ক মাধ্যমিক শিক্ষা পর্ষদ। পর্ষদের সভাপতি জানিয়েছেন, পরীক্ষা হলে ভাঙচুরের মতো ঘটনা ঘটলে পরীক্ষার্থীদের স্কুলকেই ক্ষতিপূরণ দিতে হবে।

    মাধ্যমিক ২০১৮ --------- এবার মোট পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ১১ লক্ষ ২৯২১ জন। ছাত্র ৪ লক্ষ ৮১ হাজার ৩৯৫ জন এবং ছাত্রী ৬ লক্ষ ২০ হাজার ৭০৩ জন। এ বছর ৩৭টি স্কুলের ৮৩২জন পরীক্ষার্থী অলচিকি ভাষায় পরীক্ষা দেবেন। বরাবরের মতো পরীক্ষাকেন্দ্রে ক্যালকুলেটর এবং মোবাইল নিয়ে ঢোকা নিষিদ্ধ।

    পরীক্ষা ও পরীক্ষার্থীদের নিরাপত্তা নিয়েও বাড়তি সতর্ক পর্ষদ। প্রশ্নপত্র ফাঁসের মতো ঘটনা রুখতে প্রযুক্তির সাহায্য নেওয়া হচ্ছে। পর্ষদ সভাপতি জানিয়েছেন,

    পর্ষদের পদক্ষেপ -------- স্কুলগুলিতে কীভাবে প্রশ্নপত্র পৌঁছছে তা পুরোটাই বিশেষ প্রযুক্তিতে ট্র্যাক করা হবে। প্রশ্নপত্রের প্যাকেটের সিল খোলা হলেই বিশেষ প্রযুক্তিতে তা ধরা পড়বে এবং এই ঘটনা কোথায় হল তাও জানা যাবে। পরীক্ষা হলে ঢোকার আগে প্রশ্নপত্র খোলা যাবে না। প্রতিটি পরীক্ষা কেন্দ্রেই পর্যাপ্ত নিরাপত্তার বন্দোবস্ত থাকবে, থাকবে মেডিক্যাল ইউনিটও। প্রায় প্রতিটি জেলাতেই কয়েকটি স্পর্শকাতর পরীক্ষাকেন্দ্র রয়েছে। সেই কেন্দ্রগুলিতে সিসি ক্যামেরায় নজরদারি চালানো হবে।

    First published: