West Bengal Assembly Election 2021: 'এবারে ২০১৬-র সেই আত্মবিশ্বাস নেই, মমতা এখন নার্ভাস-খিটখিটে'!

West Bengal Assembly Election 2021: 'এবারে ২০১৬-র সেই আত্মবিশ্বাস নেই, মমতা এখন নার্ভাস-খিটখিটে'!

তথাগতর নিশানায় মমতা

শুক্রবারই বাংলা-সহ পাঁচ রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচনের নির্ঘণ্ট প্রকাশ করেছে নির্বাচন কমিশন। আর তার কয়েক ঘণ্টা পরই এবার বিজেপি নেতা তথাগত রায় নিশানা করলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে।

  • Share this:

    #কলকাতা: মুখ্যমন্ত্রিত্বের হ্যাট্রিক নাকি বাংলার মসনদে এবার বিজেপি? ২০২১ সালে পশ্চিমবঙ্গের বিধানসভা নির্বাচন নিয়ে টানটান উত্তেজনা শুরু হয়ে গিয়েছে রাজনৈতিক মহলে। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বার বার চ্যালেঞ্জ করছেন, 'বিজেপি একা এক মহিলাকে এত ভয় পাচ্ছে কেন?' মমতা দাবি করছেন, দিল্লি-সহ গোটা দেশ থেকে বাংলাকে পাখির চোখ করে তাবড় নেতা-মন্ত্রীদের পাঠাচ্ছে বিজেপি। কিন্তু বাংলার জন্য তৃণমূলের পক্ষ থেকে তিনি একাই ১০০।

    শুক্রবারই বাংলা-সহ পাঁচ রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচনের নির্ঘণ্ট প্রকাশ করেছে নির্বাচন কমিশন। আর তার কয়েক ঘণ্টা পরই এবার বিজেপি নেতা তথাগত রায় নিশানা করলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে। শনিবার সকালে তথাগতর ট্যুইট, 'মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, এত লোক শুধু একজন মহিলাকে ভয় পায়! এটা কি তিনি নিজের মধ্যে সাহস সঞ্চারের জন্য বলেন? সত্যি কথা বলতে, এবারে মমতা নার্ভাস, বিরক্তিকর, খিটখিটে। ২০১৬ সালে মমতার মধ্যে বিজয়ী হওয়ার যে আত্মবিশ্বাস দেখেছিলাম, তা এবারে নেই।'

    শুক্রবারও রাজ্যে এসেছিলেন কেন্দ্রীয় দুই মন্ত্রী। উত্তরবঙ্গে ভোট প্রচারে সভা করেছেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং। অন্যদিকে, গড়িয়ায় মমতার পাল্টা চ্যালেঞ্জ হিসেবে স্কুটি চালিয়েছেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী স্মৃতি ইরানি। স্মৃতিও এসেছিলেন দক্ষিণবঙ্গে বিজেপির পরিবর্তন যাত্রায় সামিল হতে। প্রত্যেকেরই মুখে শোনা গিয়েছে মমতাকে ওপেন চ্যালেঞ্জের ভাষা। স্মৃতির মুখে শোনা গিয়েছিল, মমতার পুলিশকে কটাক্ষ করে চ্যালেঞ্জ। তিনি বলেছেন, 'সাধারণ মানুষের কাছে বিজেপি নেতা-কর্মীদের পৌঁছতে বাধা দিচ্ছে পুলিশ। কিন্তু তাতে আমরা দমবো না। দরকার হলে স্কুটারে করে মানুষের কাছে পৌঁছবো আমরা।' আবার অন্যদিকে, রাজনাথ সরাসরি মমতাকে বলেছেন, 'এবারে আরও বড় খেলা হবে।'

    মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যদিও বার বার দাবি করেই চলেছেন যে, নবান্নের দখল এবারও থাকছে তাঁদেরই হাতে। বাংলার ২৯৪ আসনে তিনিই প্রার্থী বলে প্রচার করে ফের একবার মানুষের পাশে দাঁড়ানোর বার্তা দিচ্ছেন তৃণমূল সুপ্রিমো। শুক্রবার নির্বাচন কমিশন ভোটের নির্ঘণ্ট ঘোষণা করার পর দেখা গেল, ভবানীপুরে ভোটগ্রহণ সপ্তম দফায়, ২৬ এপ্রিল। আর নন্দীগ্রামে দ্বিতীয় দফায়, ১ এপ্রিল। প্রথমটি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্বাচনী কেন্দ্র। আর দ্বিতীয়টি তৃণমূল-ত্যাগী শুভেন্দু অধিকারীর গড়। সম্প্রতি সেই নন্দীগ্রাম থেকেই ভোটে দাঁড়ানোর ইচ্ছা প্রকাশ করেছেন মমতা। শেষমেশ দু’টি কেন্দ্র থেকেই কি প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন তিনি? এই প্রশ্নই এখন ঘুরছে রাজনৈতিক মহলে।

    Published by:Raima Chakraborty
    First published:

    লেটেস্ট খবর