থিম মেকারের দলবদল নিয়ে উত্তাল দক্ষিণের দুই স্টার পুজো- বাদামতলা আষাঢ় সঙ্ঘ আর ৬৬ পল্লি

থিম মেকারের দলবদল নিয়ে উত্তাল দক্ষিণের দুই স্টার পুজো- বাদামতলা আষাঢ় সঙ্ঘ আর ৬৬ পল্লি

একজনের থিম বিবর্তন। অন্যজনের হাওয়া বদল। এই হাওয়া বদলের সঙ্গে সঙ্গে এবার ময়দানের মতো দলবদলের আবহ দক্ষিণের ছেষট্টি পল্লি এবং বাদামতলা আষাঢ় সঙ্ঘের পুজোয়।

  • Share this:

#কলকাতা: একজনের থিম বিবর্তন। অন্যজনের হাওয়া বদল। এই হাওয়া বদলের সঙ্গে সঙ্গে এবার ময়দানের মতো দলবদলের আবহ দক্ষিণের ছেষট্টি পল্লি এবং বাদামতলা আষাঢ় সঙ্ঘের পুজোয়। গত বছর ছেষট্টি পল্লির থিম মেকারকে নিজেদের পালে টেনে এবার তাদের মণ্ডপ সাজাচ্ছে বাদামতলা আষাঢ় সঙ্ঘ। উদ্যোক্তাদের দাবি, শিল্পী পূর্ণেন্দু দে তাদের ঘরের ছেলে। তিনি ঘরেই ফিরেছেন।

প্রায় চারশ ফুটের একটি লম্বা পরিসর। সেই পরিসরের মাঝখানে দু-শো ফুটের ফাঁক রেখে দু-প্রান্তে দক্ষিণ কলকাতার দু-দুটি নামকরা পুজো। একটি বাদামতলা আষাঢ় সঙ্ঘ এবং অন্যটি ছেষট্টি পল্লি। সারা বছর একটাই পাড়া। কিন্তু পুজোর ঢাকে কাঠি পড়তেই রাস্তার দু-প্রান্ত যেন ইস্টবেঙ্গল আর মোহনবাগান। ময়দানি দলবদলের বাজারে এবার কাটসুমিকে তুলে নিয়ে চমক দিয়েছে ইস্টবেঙ্গল। তেমনই এবার ছেষট্টি পল্লির গতবছরের থিম মেকার পূর্ণেন্দু দে-কে তুলে নিয়েছে বাদামতলা আষাঢ় সঙ্ঘ। যদিও একে দলবদল বলতে নারাজ কেউই।

কিন্তু যাকে নিয়ে এই দলবদলের হাওয়া দুই পুজো ঘিরে উন্মাদনাকে কয়েকগুণ বাড়িয়ে দিয়েছে তিনি নিজে কী বলছেন? শিল্পী পূর্ণেন্দু দের দাবি, পুজোয় প্রতিযোগিতা থাকে, রেষারেষি থাকে। কিন্তু তিনি একজন পেশদার শিল্পী হিসেবেই এবার বাদামতলা আষাঢ় সঙ্ঘের মণ্ডপ সাজানোর দায়িত্ব নিয়েছেন।

৭৯ বছরের আবহ আবার ফিরুক। আবারও একসঙ্গেই ধুমধাম করে হোক দেবীর আরাধনা। উদ্যোগও নিয়েছিলেন দুই পুজোর উদ্যোক্তারা। কিন্তু শেষবেলায় বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছে সেই মতের অমিল। ফলে অদৃশ্য কাঁটাতার রয়েই গিয়েছে।

First published: 02:45:59 PM Sep 01, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर