• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • THE NARENDRA MODI CABINET RESHUFFLE WITH WEST BENGAL ANGLE WHY 4 MOS FROM BENGAL SB

Central Minister form Bengal: পদে-পদে হিসেব, নিশীথ-শান্তনুদের মন্ত্রী করার কারণ সেই ২০২৪-এর মহারণ!

কোন অঙ্কে চার মুখ?

Central Minister form Bengal: বাবুল সুপ্রিয়, দেবশ্রী চৌধুরী মন্ত্রীপদ থেকে ইস্তফা দিয়েছেন, তবে বাংলার চার মুখকে মন্ত্রিসভায় জায়গা করে দিয়েছেন নরেন্দ্র মোদি।

  • Share this:

#কলকাতা: লোকসভা নির্বাচনের বছর তিনেক আগেই কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার রদবদলে বাংলাকে আলাদা গুরুত্ব দিলেন নরেন্দ্র মোদি, অমিত শাহরা। যদিও বাবুল সুপ্রিয়, দেবশ্রী চৌধুরী মন্ত্রীপদ থেকে ইস্তফা দিয়েছেন, তবে বাংলার চার মুখকে মন্ত্রিসভায় জায়গা করে দিয়েছেন নরেন্দ্র মোদি। রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের মতে, নিশীথ প্রামাণিক, সুভাষ সরকার, জন বার্লা ও শান্তনু ঠাকুরকে মন্ত্রী করার ভবিষ্যতের ভোটব্যাঙ্কের কথা মাথায় রেখেই।

রাজবংশী নিশীথকে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী করা হয়েছে। কোচবিহারের সাংসদ সীমান্তবর্তী এলাকায় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের মাধ্যমে বিশেষ তাৎপর্যপূর্ণভাবে কাজ করবেন বলেই মনে করা হচ্ছে। অপরদিকে, জন বার্লাকে দেওয়া হয়েছে সংখ্যালঘু উন্নয়ন মন্ত্রকের প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব। গত মাস থেকেই আলাদা উত্তরবঙ্গ রাজ্য বা কেন্দ্রীয় শাসিত অঞ্চল করার দাবি তুলেছেন জন বার্লা। তাঁর নেতৃত্বেই ২০২১-এর বিধানসভা নির্বাচনে আলিপুরদুয়ারে ঈর্ষণীয় ফল করেছে বিজেপি। যা উত্তরবঙ্গে বিজেপির ভিত একইরকম শক্ত রাখতে সাহায্য করেছে। সেই সূত্রে জন বার্লাকে মন্ত্রী করা বিশেষ তাৎপর্যপূর্ণ তো বটেই। তাঁর হাত ধরেই আদিবাসী ভোট ব্যাঙ্ক অক্ষত রাখতে চাইছে গেরুয়া শিবির। চা বাগান ও রাজবংশী ভোট ব্যাঙ্ক কোনওভাবেই খোয়াতে চাইছেন না নরেন্দ্র মোদিরা। তাই উত্তরবঙ্গের দুই সাংসদ মন্ত্রীপদে বসিয়ে বিশেষ চাল দিয়েছে গেরুয়া শিবির, এমনটাই মত অনেকের।

অপরদিকে, শান্তনু ঠাকুরকে মন্ত্রী করে মতুয়া ভোট ব্য়াঙ্ক ধরে রাখাই লক্ষ্য অমিত শাহদের। সিএএ নিয়ে শান্তনুর ক্ষোভও মন্ত্রিত্ব দিয়ে কিছুটা প্রশমণ করা যাবে বলেই মত গেরুয়া শিবিরের অন্দরের অনেকের। তিনি মন্ত্রী হওয়ার পর মতুয়া ঠাকুরবাড়িতে আনন্দ উদযাপন করতে দেখা গিয়েছে। অর্থাৎ, ঠাকুর বাড়ির প্রতিনিধিকে মন্ত্রিসভায় এনে মতুয়াদের মন জয়ই লক্ষ্য নরেন্দ্র মোদিদের।

একইভাবে অঙ্ক কষে, জঙ্গলমহলের পিছিয়ে পড়া মানুষের প্রতিনিধি হিসেবে চিকিৎসক সুভাষ সরকারকে জায়গা দেওয়া হয়েছে মন্ত্রিসভায়। তাঁকে শিক্ষা মন্ত্রকের প্রতিমন্ত্রী করাও করা বিশেষ তাৎপর্যপূর্ণ। তৃণমূল মুখপাত্র কুণাল ঘোষের অবশ্য কটাক্ষ, 'মন্ত্রিসভার রদবদলের পাটিগণিত বাংলার ক্ষেত্রে খাটবে না। তবে, এটা বোঝা যাচ্ছে, বাংলায় হেরে বিজেপির এখন লক্ষ্য ২০২৪ সালের গদি বাঁচানো।'

Published by:Suman Biswas
First published: