এপ্রিলের পুরভোট নিয়ে কাল তিন জেলা শাসকের সঙ্গে বৈঠক করবে কমিশন !

এপ্রিলের পুরভোট নিয়ে কাল তিন জেলা শাসকের সঙ্গে বৈঠক করবে কমিশন !

প্রাথমিক আলোচনার জন্য সংশ্লিষ্ট তিন জেলা শাসকের সঙ্গে বৈঠকে বসছেন রাজ্য নির্বাচন কমিশনার সৌরভ দাশ।

  • Share this:

#কলকাতা: এপ্রিলের মাঝামাঝি, কলকাতা ও হাওড়া কর্পোরেশনের ভোট ধরে প্রস্তুতি শুরু করে দিল রাজ্য নির্বাচন কমিশন। কাল সংশ্লিষ্ট দুই ২৪ পরগনা ও হাওড়ার,  তিন জেলা শাসকদের সঙ্গে বৈঠক করবে কমিশন। কলকাতার ভোটের নোডাল অফিসার দক্ষিন ২৪ পরগনার জেলা শাসক। সূত্রের খবর, ১২ ই এপ্রিল এই দুই কর্পোরেশনে ভোট করতে চায় সরকার। যদিও, দিনের শেষে পুর ও নগরোন্নয়ন মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম বলেন, ভোটের দিনক্ষন এখনো চূড়ান্ত নয়। কমিশন ভোট নিয়ে এখনো জানতে চায় নি। কমিশন চিঠি দিলে সরকার এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিয়ে কমিশনকে জানাবে।

এক সচিবের মতে, ''ভোটের দিনক্ষন স্থির করার এক্তিয়ার সরকারের। সরকার, কমিশনের সঙ্গে আলোচনা করে তা জানায়। এর জন্য সরকারকে কমিশনের চিঠি দেওয়ার দরকার নেই। তবে, সরকার চাইলে, তারা দিন জানতে চেয়ে চিঠি দেবে।" রাজ্য নির্বাচন কমিশন সূত্রে খবর, রাজ্যে মোট ১১২ টি মেয়াদ উত্তীর্ন পুরসভায় ভোট চেয়ে রাজ্য সরকারকে ইতিমধ্যেই  চিঠি দিয়েছে রাজ্য নির্বাচন কমিশন। পুর ও নগরোন্নয়ন দপ্তর সূত্রে জানা গেছে, দু দফায় ভোট করতে চায় রাজ্য। এপ্রিলের মাঝামাঝি  প্রথমে কলকাতা ও হাওড়া কর্পোরেশনের ভোট করে, এপ্রিলের শেষাশেষি রমজান মাস শুরুর আগে দ্বিতীয় দফায় ১১২ টি  পুরসভা ও ৪ কর্পোরেশনে ভোট করতে চায় সরকার। রাজ্য যেসব পুরসভার সীমানা পুনর্বিন্যাস চেয়েছিল, তা সম্পূর্ন করেই পুরসভা ভিত্তিক আসন সংরক্ষন করা হয়েছে। যদিও, সেই সংরক্ষন তালিকাকে চ্যালেঞ্জ করে ইতিমধ্যেই বেশ কিছু মামলা হয়েছে আদালতে। ওল্ড মালদা, ইংরেজবাজারের মত পুরসভার মামলার এখনো নিষ্পত্তি হয়নি। বোলপুর পুরসভার সীমানা পুনর্বিন্যাস সবে শেষ হয়েছে। এখনও আসন সংরক্ষনের তালিকা করা যায়নি। এইসব  জট খুলে শেষপর্যন্ত কতগুলি পুরসভায় ভোট হবে, তা এখনো চূড়ান্ত নয়।

তবে, উত্তর ২৪ পরগনার আট পুরসভার ভোট এখন করতে চায় না সরকার। ঐ পুরসভাগুলিকে একত্রিত করে কর্পোরেশন গড়ে বছরের শেষে ভোট হতে পারে। আসানসোল, ও বিধাননগর কর্পোরেশনের মেয়াদ শেষ হবে পূজোর আগে। ফলে, ঐ দুটি কর্পোরেশনেও এখন ভোট না হওয়ার সম্ভবনা রয়ছে। তবে, সরকারের মনোভাব আঁচ করেই, পুরভোটের প্রস্তুতিতে কোন ঢিলেমি করতে চায় না কমিশন। সেই লক্ষ্যেই কাল প্রাথমিক আলোচনার জন্য সংশ্লিষ্ট তিন জেলা শাসকের সঙ্গে বৈঠকে বসছেন রাজ্য নির্বাচন কমিশনার সৌরভ দাশ। কমিশন সূত্রে জানা গেছে, দুই কর্পোরেশনের ভোট করতে প্রায় কুড়ি হাজার নিবার্চন কর্মী দরকার। তাছাড়া, নিবার্চন পরিচালনার জন্য যানবাহন ও আনুষাঙ্গিক বিষয়ে আলোচনা সারতেই এই বৈঠক।

ARUP DUTTA 

First published: February 18, 2020, 11:02 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर