দেশে একদিন এক নম্বর হবে বাংলা ও অসম। কলকাতায় ভবিষ্যবাণী করে গেলেন অসমের মুখ্যমন্ত্রী

দেশে একদিন এক নম্বর হবে বাংলা ও অসম। কলকাতায় ভবিষ্যবাণী করে গেলেন অসমের মুখ্যমন্ত্রী

যে প্রতিবাদের শুরুটা অসমের মাটি থেকে । সেই নতুন নাগরিক আইন নিয়ে কলকাতায় বসে টুঁ শব্দটি করেননি বিজেপি শাসিত রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী।

  • Share this:

#কলকাতা: মানুষ মানুষের জন্য...থুড়ি, অসম বাংলার জন্য। আর তাই দেশে ১ নম্বর হতে বাংলাকে পাশে চায় অসম। রবিবার কলকাতায় এসে এমন মৈত্রীবার্তা দিয়ে গেলেন অসমের মুখ্যমন্ত্রী সর্বানন্দ সনোয়াল। জমকালো ফিল্মফেয়ার অনুষ্ঠান নিয়ে যখন ফের অসমে বিতর্ক মাথাচাড়া দিচ্ছে ঠিক সেই সময় রবিবার কলকাতায় আসা অসমের মুখ্যমন্ত্রীর।

রাসেল স্ট্রিটে অসম ভবনের  অনুষ্ঠান ছিল সাহিত্যসম্রাট লক্ষ্মীনাথ বেজবড়ুয়া'র পূর্ণ অবয়ব মূর্তি উন্মোচন। অসমের উপমুখ্যমন্ত্রী ডক্টর হেমন্ত বিশ্ব শর্মা কে পাশে নিয়ে মঞ্চে উঠলেন। বক্তব্যের মধ্যে বার বার তুলে ধরার চেষ্টা করলেন অখন্ডতা এবং অসম- বাংলার সাংস্কৃতিক মেলবন্ধনের কথা। সাংবাদিকদের শত চেষ্টাতেও অসমের মুখ্যমন্ত্রী'র এনআরসি ডিফেন্স ভাঙা গেল না। বাংলা এনআরসি ও সিএএ নিয়ে সারা দেশে এখন প্রতিবাদের মুখ। যে প্রতিবাদের শুরুটা অসমের মাটি থেকে। নতুন নাগরিক আইন নিয়ে কলকাতায় বসে টুঁ শব্দটি করেননি বিজেপি শাসিত রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী। বিকেলে বিধাননগরের অসম ভবনের উদ্বোধনেও যান সর্বানন্দ সনোয়াল এবং ডঃ হিমন্ত বিশ্ব শর্মা। সেখানে হেমন্তবাবু যেভাবে কাজের ফিরিস্তি দিয়ে চললেন  তাতে বোঝার উপায় নেই কয়েক মাস পর ১১০ পুরসভার ভোট কোথায়, বাংলায় না  অসমে। ৪২০০০ কোটি টাকার রাজস্ব আয় থেকে ৭৬০০০ কোটি টাকা অসমের মানুষের জন্য খরচ করেছে সেখানকার সরকার। অসম ভবনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে অসমের মুখ্যমন্ত্রীর বার্তা," বাংলা এবং আসামের সম্পর্কের বন্ধন দীর্ঘদিনের। সামাজিকভাবে,সাহিত্যগতভাবে এবং সাংস্কৃতিক আদান-প্রদানে একে অপরের আত্মিক যোগ রয়েছে। আমরা একযোগে হাতে হাত ধরে এগিয়ে যেতে পারবো সব ক্ষেত্রে। একদিন দেশের মধ্যে এক নম্বর রাজ্য হতে পারব আমরা।"

এনআরসি এবং সিএএ নিয়ে প্রতিক্রিয়া দেয়ার এবারও অনুরোধ গেল। আবারো মুখ বন্ধ রাখলেন মুখ্যমন্ত্রী। তৃণমূল কংগ্রেসের প্রতিনিধি দলকে গুয়াহাটি বিমানবন্দর ছেড়ে বের হতে দেয়নি সেখানকার সরকার। সেইসব বৈরিতা এখন পুরনো। ঝাড়খন্ড, দিল্লি নির্বাচনের পর গোটা দেশের রাজনৈতিক সমীকরণ বদলেছে হয়তো। তাই বৈরিতা ছেড়ে পশ্চিমবঙ্গের সঙ্গে একযোগে কাজ করার মৈত্রী বার্তা অসমের। যা এক বাক্যে মনে করিয়ে দিচ্ছে ভূপেন হাজারিকার সেই বিখ্যাত গানের লাইনটিকে, মানুষ মানুষের জন্য..।

ARNAB HAZRA

First published: February 16, 2020, 8:50 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर