• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • হাইকোর্টের নির্দেশের পরেও ইন্টারভিউয়ে সুযোগ পাওয়া নিয়ে ধোঁয়াশায় টেট উত্তীর্ণরা !

হাইকোর্টের নির্দেশের পরেও ইন্টারভিউয়ে সুযোগ পাওয়া নিয়ে ধোঁয়াশায় টেট উত্তীর্ণরা !

কলকাতা হাইকোর্টের এই নির্দেশের পরেও টেট উত্তীর্ণরা আদৌ ইন্টারভিউয়ে বসার সুযোগ পাবেন কি না, তা নিয়ে ধোঁয়াশা এখনও মিটছে না ৷

কলকাতা হাইকোর্টের এই নির্দেশের পরেও টেট উত্তীর্ণরা আদৌ ইন্টারভিউয়ে বসার সুযোগ পাবেন কি না, তা নিয়ে ধোঁয়াশা এখনও মিটছে না ৷

কলকাতা হাইকোর্টের এই নির্দেশের পরেও টেট উত্তীর্ণরা আদৌ ইন্টারভিউয়ে বসার সুযোগ পাবেন কি না, তা নিয়ে ধোঁয়াশা এখনও মিটছে না ৷

  • Pradesh18
  • Last Updated :
  • Share this:

    #কলকাতা:  কলকাতা হাইকোর্টের নির্দেশে ভালমতোই স্বস্তি পেয়েছিলেন টেট উত্তীর্ণ পরীক্ষার্থীরা ৷ গত বুধবার হাইকোর্টের বিচারপতি সমাপ্তি চট্টোপাধ্যায় টেট উত্তীর্ণ সব পরীক্ষার্থীদেরই ইন্টারভিউতে বসার সুযোগ দেওয়ার নির্দেশ দেন ৷ কিন্তু কলকাতা হাইকোর্টের এই নির্দেশের পরেও টেট উত্তীর্ণরা আদৌ ইন্টারভিউয়ে বসার সুযোগ পাবেন কি না, তা নিয়ে ধোঁয়াশা এখনও মিটছে না ৷ কারণ পর্ষদের পক্ষ থেক দাবি করা হয়েছে যে আদালতের রায়ের কপি এখনও তারা হাতে পাননি ৷  এর ফলে স্বভাবতই ফের কপালে চিন্তার ভাঁজ টেট উত্তীর্ণ পরীক্ষার্থীদের ৷ এর জন্য পুনরায় আদালতের দ্বারস্থ হওয়ার কথাও ভাবছেন তাঁরা ৷

    টেটের ফল প্রকাশের পরেই পশ্চিমবঙ্গ প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছিল যে সাত দিনের মধ্যে অনলাইনে পরীক্ষায় উত্তীর্ণদের চাকরির জন্য আবেদন করতে হবে ৷ অনলাইনে যেসব পরীক্ষার্থীরা আবেদন করতে সক্ষম হয়েছিলেন, শুধুমাত্র তাঁদেরই ইন্টারভিউতে ডাকে পর্ষদ ৷ ৭ অক্টোবর ছিল অনলাইনে আবেদনের শেষ দিন ৷ সার্ভারের সমস্যায় ফর্মফিলাপে বেশ কিছু সমস্যার সম্মুখীন হন বহু পরীক্ষার্থী ৷ কেউ কেউ আবার পরীক্ষার ফি জমা দিতে সমস্যায় পড়েন ৷ পুজোর ছুটি চলায় পর্ষদ অফিসের সাহায্য নেওয়া সম্ভব হয়নি বলে অভিযোগ জানান অনেকে ৷ কিন্তু, এসমস্ত পরীক্ষার্থীদের আর সুযোগ না দিয়েই পর্ষদ জানিয়ে দেয়, পূর্বে উল্লেখিত সময়সীমায় যাঁরা আবেদন করেছেন, একমাত্র তাঁরাই ইন্টারভিউয়ের জন্য ডাক পাবেন। এর ফলে রাজ্যের বিভিন্ন জেলায় বহু টেট উত্তীর্ণ পরীক্ষার্থীরাই ইন্টারভিউয়ে বসার সুযোগ হারান।

    রায়ের কপি হাতে না পাওয়ার বিষয় পর্ষদ সভাপতি মানিক ভট্টাচার্য জানান, “হাইকোর্টের যে মামলার কথা বলা হচ্ছে, তাতে পর্ষদের পক্ষ থেকে কোনও পার্টি ছিল না। রায়ের কপিও তাঁদের হাতে আসেনি। পর্ষদের আইনজীবীরা বিষয়টি খতিয়ে দেখছেন।”

    এদিকে পর্ষদের আদালতের রায়ের কপি হাতে না পাওয়ার দাবিতে স্বভাবতই হতাশ পরীক্ষার্থীরা ৷ জেলার পরীক্ষার্থীরা অনেকেই কলকাতার পর্ষদের অফিসে এসেছিলেন ৷ সেখানে তাঁদের ঢুকতে পর্যন্ত দেওয়া হয়নি বলে অভিযোগ ৷ স্পিডপোস্টের মারফত রায়ের কপি পাঠানো হয়েছে ৷ এরপরেও পর্ষদ আদালতের রায় অনুযায়ী টেট উত্তীর্ণ পরীক্ষার্থীদের ইন্টারভিউয়ে বসার সুযোগ না দিলে ফের হাইকোর্টে মামলা করার ব্যাপারে তাঁর চিন্তাভাবনা করছেন বলে জানিয়েছেন পরীক্ষার্থীরা ৷

    First published: