• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • আর নয় রাজনৈতিক 'হিংসা', কলকাতায় প্রভু জগন্নাথ ও শ্রী চৈতন্যদেবের মূর্তি প্রতিষ্ঠা 

আর নয় রাজনৈতিক 'হিংসা', কলকাতায় প্রভু জগন্নাথ ও শ্রী চৈতন্যদেবের মূর্তি প্রতিষ্ঠা 

রথের দিনেই উদ্বোধন হল প্রভু জগন্নাথ ও শ্রী চৈতন্য মহাপ্রভুর মূর্তির৷

রথের দিনেই উদ্বোধন হল প্রভু জগন্নাথ ও শ্রী চৈতন্য মহাপ্রভুর মূর্তির৷

উত্তর কলকাতার ১৩ নম্বর ওয়ার্ডে এদিন অধিষ্ঠিত হলেন শ্রী জগন্নাথদেব ও শ্রী চৈতন্যদেব। দু' জনেরই পূর্ণাবয়ব মূর্তি এদিন খুলে দেওয়া হয় সর্ব সাধারণের জন্য।

  • Share this:

#কলকাতা: নদের নিমাই আর নীলাচলের মহাপ্রভু। শ্রী চৈতন্যদেব ও প্রভু জগন্নাথ। কথিত আছে দু' জনেরই আবির্ভাব ঘটেছিল জগতের হানাহানি,  ভেদাভেদ ও বৈষম্য দূর করতে। সর্বধর্মের কথা, সবাইকে নিয়ে চলার বার্তা ছড়িয়েছেন দু'-জনে। রাজ্য রাজনীতির উত্তপ্ত আবহাওয়ার মধ্যেই রথযাত্রার দিনটি তাই বেছে নেওয়া। উত্তর কলকাতার ১৩ নম্বর ওয়ার্ডে এদিন অধিষ্ঠিত হলেন শ্রী জগন্নাথদেব ও শ্রী চৈতন্যদেব। দু' জনেরই পূর্ণাবয়ব মূর্তি এদিন খুলে দেওয়া হয় সর্ব সাধারণের জন্য। রাজনৈতিক হিংসার একের পর এক অভিযোগ নিয়ে এই মুহূর্তে সরব রাজ্য রাজনীতি। বিজেপির দিলীপ ঘোষ বলছেন 'হিংসার' কথা।  বলছেন যাঁরা হিংসা মানে না তাঁরা কাপুরুষ। আবার সায়ন্তন বসুর মুখে থানা জ্বালিয়ে দেওয়ার হুমকি। আর বারে বারে তার রাজনৈতিক প্রতুত্তরে কলকাতার প্রাক্তন মেয়র তথা প্রশাসক গোষ্ঠীর চেয়ারম্যান ফিরহাদ হাকিম জানান, মানুষকে নিয়ে চলার কথা,  শ্রী চৈতন্যদেবের বাংলার কথা। ২১ জুন ফিরহাদ হাকিম বিজেপির 'বদলা' সংস্কৃতির পাল্টা বলেন, " মেরেছো কলসির কানা তা বলে কি প্রেম দেবো না...!"

বিদায়ী মেয়রের মুখের কথা হাতে কলমে করার প্রয়াস ১৩ নং ওয়ার্ডের বিদায়ী কাউন্সিলর অনিন্দ্য কিশোর রাউতের। রথের দিন তিনি নিয়ম মেনে প্রতিষ্ঠা করলেন প্রভু জগন্নাথদেব এবং শ্রী চৈতন্যদেবকে। সর্বধর্মের প্রমাণও মিললো।  রাজনীতির রং ভুলে কংগ্রেসের কয়েকবারের নির্বাচিত কাউন্সিলর প্রকাশ উপাধ্যায় অনুষ্ঠানে এলেন সস্ত্রীক। ৩ নং বরোর পুর প্রতিনিধিদের সঙ্গে একসঙ্গে জমিয়ে খেলেন ভোগ। আর প্রকাশ উপাধ্যায় জানালেন, 'হিংসা রাজনীতির পথ নয়। বিজেপি ওসব করুক, আমরা কেন সেই পথে যাবো। সর্বধর্মের মধ্যে প্রেমের কথা বলা শ্রী চৈতন্যের পূর্ণাবয়ব মূর্তি দেখে খুশি। '

আর অন্যতম উদ্যোক্তা ৩ নম্বর বরোর কো-অর্ডিনেটর অনিন্দ্য কিশোর রাউত জানালেন,  'সর্বধর্মকে সঙ্গে নিয়ে চলাই দুই প্রভুর মূলমন্ত্র। মানুষকে পাশে নিয়ে চলি সারাবছর। মানুষের কথা শুনি ও সমস্যার সমাধানের চেষ্টা করি। রথের আদলে তৈরি এই প্রাঙ্গনে একবার এলেই সবার মন ভালো হয়ে যাবে প্রভুর আশীর্বাদে, এমনটাই আশা রাখি।' কাল থেকে প্রতিদিন দেখা যাবে দর্শন পাওয়া যাবে জগন্নাথ ও শ্রী চৈতন্যদেবের।

ARNAB HAZRA

Published by:Debamoy Ghosh
First published: